corona virus btn
corona virus btn
Loading

নববর্ষে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের বার্তা

নববর্ষে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের বার্তা

নতুন জামা, হালখাতা, ফুল, মিষ্টি মন্দিরের বাইরে লম্বা লাইন। এই দিনে ব্যবসায়ীদের ভারী ব্যস্ততা, পয়লা বৈশাখ বলে কথা।

  • Share this:

#কলকাতা: নতুন জামা, হালখাতা, ফুল, মিষ্টি মন্দিরের বাইরে লম্বা লাইন। এই দিনে ব্যবসায়ীদের ভারী ব্যস্ততা, পয়লা বৈশাখ বলে কথা। চৈত্র সেল থেকে কেনা নতুন জামা পরে সকলে ফিটফাট, দুপুরে কব্জি ডুবিয়ে ভুরিভোজ। নববর্ষ এভাবেই কাটান বাঙালি। তবে এই বছর এর মধ্যে কোনটাই হলো না। চৈত্র সেল-এ বাছাই করে জামা-কাপড় কেনা হলো না। নেমন্তন্ন খেতে দোকানে দোকান যাওয়াও হলো না। বাড়িতে বোঝাই হলো না মিষ্টির বাক্স, ক্যালেন্ডার। এ বছরটা অন্য। অন্যরকম। এই নববর্ষের অতিথি করোনা ভাইরাস। তাই বাড়িতেই সকলকে পালন করতে হবে নববর্ষ, এই বার্তাই দিলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

অভিনেতা বললেন, 'বড়রা আমার প্রণাম নেবেন। ছোটদের শুভেচ্ছা, ভালোবাসা। এবছরের নববর্ষটা আলাদা। সকলের মন খারাপ। আনন্দ করতে পারছিনা আমরা। তবু কোথাও মনে হয় আমরা সকলে পরিবারের সঙ্গে আছি। মা-বাবা, ভাই-বোন একসঙ্গে রয়েছি সেটাই বা কম কীসের। সকলে মিলে হাসিমুখে নববর্ষ পালন করতে হবে। আমরা মিস করবো আমাদের বন্ধুবান্ধবদের। তবে কিছু করার নেই এ বছরটা আমাদের মেনে নিতে হবে।'

প্রসেনজিৎ ঈশ্বরের উপর বিশ্বাস রাখেন। এবছরের তেমন আনন্দ না করতে পারলেও আমরা আগামী সমস্ত নববর্ষ খুব আনন্দ করে কাটাবো, অনেক বড় ভাবে উদযাপন করব। কিন্তু তার জন্য এই মুহূর্তে বাড়িতে থাকাটা খুব প্রয়োজন। সকলকে বাড়িতে থাকার অনুরোধ করলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে প্রসেনজিৎ বললেন 'এই লড়াই সকলকে মিলে লড়তে হবে। আপনারাও লড়ছেন। আমরাও লড়ছি। পরিস্থিতি কারও জন্য সোজা নয়। কিন্তু লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। এই লড়াইয়ে যদি আমরা জয়ী হই তাহলে সাধারণ মানুষই পারবে নতুন একটা নববর্ষ নিয়ে আসতে। আমি জানি আপনারা পারবেন।'

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় একটি আর্জি সকলের কাছে বারবার করলেন, 'আপনার দয়া করে বাড়িতে থাকুন। মন খারাপ লাগবে। ছোটদের কষ্ট হবে। তাদেরকে বোঝান। ঝোঁকের মাথায় বেরিয়ে পড়বেন না। তাহলে কিন্তু এই বিপদ আটকানো সম্ভব হবে না। আমার এটা দৃঢ় বিশ্বাস আমরা আবার একটা নতুন দিন, নতুন আলো, নতুন সূর্যোদয় দেখব। শুধু নিজের নয় আশপাশের মানুষের কথা ভাবুন। তাঁদের কথা ভেবে নিজের কর্তব্য পালন করুন। এবং এই মুহূর্তে একটাই কর্তব্য বাড়িতে থাকা। সেটা মেনে চলুন।'

First published: April 14, 2020, 3:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर