Priyanka Chopra: দেশের জনতাকে ভ্যাকসিন নিতে বলা প্রিয়াঙ্কার অপরাধ! সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেত্রীকে ঘিরে তুমুল নিন্দা

Priyanka Chopra: দেশের জনতাকে ভ্যাকসিন নিতে বলা প্রিয়াঙ্কার অপরাধ! সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেত্রীকে ঘিরে তুমুল নিন্দা

নায়িকার মতে যদি এই বিপদ থেকে দেশ এবং নিজেকে রক্ষা করতেই হয়, তাহলে ভ্যাকসিন নেওয়াটা অত্যন্ত জরুরি।

নায়িকার মতে যদি এই বিপদ থেকে দেশ এবং নিজেকে রক্ষা করতেই হয়, তাহলে ভ্যাকসিন নেওয়াটা অত্যন্ত জরুরি।

  • Share this:

#মুম্বই: কোভিড ১৯-এর দ্বিতীয় তরঙ্গ দেশের স্বাস্থ্যব্যবস্থার হাল ভেঙে দিয়েছে বললেই চলে! সেই সূত্রে আরও অনেক সঙ্কটের মুখেই পড়তে চলেছে ভারত। ইতিমধ্যেই খোদ রাজধানীতে অ্যাম্বুল্যান্স সার্ভিস, অক্সিজেনের মতো প্রাথমিক পরিষেবা নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে কালোবাজারি। দেশের কোনও রাজ্য হাঁটছে পূর্ণ লকডাউনের পথে, তো কোথাও আবার আপাতত বেছে নেওয়া হচ্ছে আংশিক লকডাউনের মেয়াদ। এই সব কিছুর মধ্যেই ১ মে থেকে ১৮ বছরের উর্ধ্বে সব ভারতীয় নাগরিকদের জন্য ভ্যাকসিন গ্রহণের ব্যবস্থা করে দিয়েছে সরকার।

সেই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন বলিউডের তারকারাও। যাঁরা নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল মারফত কোভিড আর্তদের সেবার জন্য ত্রাণ সংগ্রহ করছেন, চেষ্টা করছেন কোভিড সচেতনতা গড়ে তোলার, তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস (Priyanka Chopra Jonas)। বিদেশে থাকলেও তাঁকে ভাবিয়ে তুলেছে দেশের পরিস্থিতি। নায়িকার মতে যদি এই বিপদ থেকে দেশ এবং নিজেকে রক্ষা করতেই হয়, তাহলে ভ্যাকসিন নেওয়াটা অত্যন্ত জরুরি। এই মর্মে তিনি নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল থেকে দেশবাসীকে সত্বর ভ্যাকসিন নেওয়ার অনুরোধও জানিয়েছেন। এবং সেটাই আপাতত তাঁকে ফেলেছে নেটিজেনের বিক্ষোভের মুখে।

এক নেটিজেন যেমন প্রিয়াঙ্কার এক ট্যুইটের উত্তরে সাফ জানিয়েছেন যে আপাতত ভ্যাকসিনের ব্যাপারে আমাদের দেশ স্বয়সম্পূর্ণ একটা জায়গায় এসে দাঁড়াতে পারছে। ইউনাইটেড স্টেচস থেকে ভ্যাকসিন তৈরির কাঁচামাল সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে, অতএব ভারত পর্যাপ্ত পরিমাণে ভ্যাকসিন তৈরি করে নিতে সক্ষম হবে। কিন্তু হাসপাতালের শয্যা, অক্সিজেন, অক্সিজেন কনসেনট্রেটর- এগুলোর অভাব মেটানোর কোনও উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। তাই প্রিয়াঙ্কা যেন আপাতত ভ্যাকসিনের দিক থেকে তাঁর নজর সরিয়ে নেন, বদলে এই দিকগুলো নিয়ে একটু ভাবেন- সেটাই তাঁর উচিত হবে!

প্রিয়াঙ্কা অবশ্য এই ব্যঙ্গের উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন যে এই অভাবগুলোর বিষয়ে তিনি অবগত আছেন। কিন্তু দেশ যদি ভ্যাকসিন নিয়ে সম্মিলিত ইমিউনিটি গড়ে না তোলে, তাহলে কোভিড ১৯-এর সঙ্গে লড়াই করা সম্ভব হবে না! অন্য দিকে কিছু দিন আগে মার্কিন সরকারকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি ভারতে AstraZeneca পাঠানোর বিষয়ে। আর সেখান থেকে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। এক নেটিজেন লিখেছেন যে মার্কিন দেশ থেকে যে ভ্যাকসিন আসছে তা FDA অনুমোদিত নয়, মার্কিন জনতাও তা ব্যবহার করছে না বলে পড়ে থেকে সেগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এই ভ্যাকসিন যদি ভারতের মানুষ নেন, তাহলে গণহত্যায় প্ররোচণা দেওয়ার জন্য নায়িকার গ্লানি রাখার জায়গা থাকবে না!

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: