Home /News /entertainment /
Pallavi Dey Death: পল্লবীর মৃত্যু নিয়ে মুখ খুললেন একদা 'রুমমেট' প্রত্যুষা, কী বললেন অভিনেত্রী?

Pallavi Dey Death: পল্লবীর মৃত্যু নিয়ে মুখ খুললেন একদা 'রুমমেট' প্রত্যুষা, কী বললেন অভিনেত্রী?

Pallavi Dey Death: কাজ নিয়ে অবসাদ ছিল, এমনটা হতেই পারে না- একথাই বারবার বলছেন প্রত্যুষা৷ কারণ একটা ধারাবাহিক শেষ হওয়ার পর পরের কাজের জন্য যোগাযোগ করতেন পল্লবী৷ এমনটাই জনাচ্ছেন প্রত্যুষা৷

  • Share this:

    #কলকাতা: পল্লবীর দে-র মৃত্যুর পরে এবার মুখ খুললেন একদা রুমমেট, অভিনেত্রী প্রত্যুষা পাল৷ একসঙ্গেই ওঠাবসা ছিল তাঁদের৷ দিদি নম্বর ওয়ানেও একসঙ্গে এসেছিলেন তাঁরা৷ সঙ্গে ছিলেন মায়েরা৷ শেয়ার করেছিলেন মজার মজার কত কথা৷ পল্লবীর ফ্ল্যাটে থাকতে এসেছিলেন প্রত্যুষা৷ ভাগাভাগি করে রান্না করতেন৷ লকডাউনে যে যার বাড়ি চলে যান৷ কিন্তু বন্ধুত্ব ছিল একই৷ মৃত্যুর আগের রাতে পল্লবী তাঁর ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে প্রত্যুষার সঙ্গেই ছবি দিয়েছিলেন৷ সেই স্টোরি শেয়ার করেছিলেন প্রত্যুষা৷ বন্ধুর মৃত্যুর পর থমকে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী৷ তবে এবার মুখ খুললেন তিনি৷

    আরও পড়ুন: আগেই 'বিবাহিত' প্রেমিক সাগ্নিক! আত্মহত্যা নাকি খুন? অভিনেত্রী পল্লবীর ময়নাতদন্তে যা ইঙ্গিত...

    'কাজ নিয়ে অবসাদ ছিল, এমনটা হতেই পারে না'- একথাই বারবার বলছেন প্রত্যুষা৷ কারণ একটা ধারাবাহিক শেষ হওয়ার পর পরের কাজের জন্য যোগাযোগ করতেন পল্লবী৷ এমনটাই জনাচ্ছেন প্রত্যুষা৷ প্রত্যুষাই জানিয়েছেন, সাগ্নিক তাঁদের সামনে পল্লবীকে বহু উপহার দিতেন। তবে সেই উপহার পল্লবীই কিনে দিত কিনা, তা তাঁর জানা নেই। পল্লবীও যে টাকাটা রোজগার করতেন তাও সীমিত টাকা। সেই টাকা দিয়ে কি এত বিলাসবহুল জীবনযাপন করা যায়? প্রশ্ন থাকছে।

    টেলি অভিনেত্রী পল্লবী দের অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটনায় টানা ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার হয়েছেন তাঁর লিভ ইন পার্টনার সাগ্নিক চক্রবর্তী। বুধবার তাঁকে আলিপুর আদালতে পেশ করা হবে। তাঁর বিরুদ্ধে ৩০২, ১২০বি, ৪২০, ৪০৩, ৪০৬, ৩৪১ এবং ৩২৩ ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ৷ অর্থাৎ খুন , ষড়যন্ত্র, প্রতারণা, জিনিস চুরি, বিশ্বাস ভঙ্গ, আটকে রাখা ও মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে সাগ্নিককে৷

    আরও পড়ুন Actress Pallavi Dey death: পল্লবীর মৃত্যুতে মন খারাপ টেলি তারকাদের, কে কী বলছেন, পড়ুন ...

    পুলিশ সূত্রে খবর, খুনের ঘটনায় পারিপার্শ্বিক তথ্য প্রমাণ জোগাড়ে সাগ্নিককে নিয়ে পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় যায়। পল্লবীর ফিক্সড ডিপোজিটে নমিনি ছিলেন সাগ্নিক। এছাড়াও নিউটাউনে আশি লক্ষ টাকার ফ্ল্যাটে বুকিং করা হয়েছিল, যেটা সাগ্নিক ও তাঁর বাবার নামে রয়েছে। সেখানে পল্লবী টাকা দিয়ে ছিলেন ওই ফ্ল্যাট কেনার জন্য। ২৫ লক্ষ  টাকা সাগ্নিকের বাবা দিলেও বাকি প্রায় ৫০লক্ষ টাকা দিয়েছিলন পল্লবী, দাবি মৃতের পরিবারের । পল্লবীর অ্যাকাউন্টের নমিনি ছিলেন সাগ্নিক। সেখানেই গরমিলের অভিযোগ। ফলে আর্থিক লেনদেন প্রতারণা অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।
    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: Pallavi dey

    পরবর্তী খবর