‘রাইমা আজ বন্ধু, কেরিয়ারের শুরুতে আমার কাছে দ্য রাইমা সেন ছিল’: পরমব্রত

‘রাইমা আজ বন্ধু, কেরিয়ারের শুরুতে আমার কাছে দ্য রাইমা সেন ছিল’: পরমব্রত

প্রথম পর্দায় একসঙ্গে কাজ ‘নিশিযাপন’। তারপর ‘বং কানেকশন’। এই ছবিটি মুক্তি পায় ২০০৬ সালে।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রথম পর্দায় একসঙ্গে কাজ ‘নিশিযাপন’। তারপর ‘বং কানেকশন’। এই ছবিটি মুক্তি পায় ২০০৬ সালে। মাঝখানে কেটে গিয়েছে ১৪ বছর। একসঙ্গে বহু ছবিতে কাজ করেছেন রাইমা সেন, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। এখন বন্ধুত্ব বেশ ভাল। তবে প্রথম থেকে বিষয়টা মোটেও এমন ছিল না। বরং ছিল বেশ ফর্মাল।

পরমব্রত তখন কেরিয়ার নতুন শুরু করেছেন। নায়কের কথায় ‘‘ রাইমা তখন, দ্য রাইমা সেন। সুচিত্রা সেনের নাতনি’’। পরমব্রত তাঁকে বেশ ভয় পেতেন, সম্মান করেই কথা বলতেন রাইমার সঙ্গে। এদিকে পরমব্রতর ফর্মাল থাকার কারণ কিছুই জানেন না রাইমা। তাঁর মনে হতো এই নায়ক ভীষণ লাজুক। দু’জনেই দু’জনের সম্পর্কে ভুল ধারণা তৈরি করেছিলেন।

এই ব্যাপারটা চলছিল বেশ কিছু দিন। ‘বং কানেকশন’-এর শ্যুটিং শেষে সহজ হয়ে গেল সবকিছু। এর পিছনেও একটা গল্প রয়েছে। অঞ্জন দত্তের এই ছবিতে রাইমা এবং পরমব্রতর একসঙ্গে খুব একট বেশি সিন ছিল না। সায়ন মুনশির সঙ্গেই বেশি স্ক্রিন টাইম ছিল নায়িকার। পরমব্রতর অংশের শ্যুটিং শেষ, তিনি সন্দীপ রায়ের ‘টিনটোরেটোর যিশু’র শ্যুটিং ব্যস্ত। রাইমা তখনও অঞ্জন দত্তর সঙ্গে ‘বং কানেকশন’-এর শ্যুটিং করছেন। শ্যুটিং-এর শেষ দিনে অঞ্জন দত্ত ফোন করেন পরমব্রতকে, খানিক কথা বলে তিনি রাইমাকে ফেনটা দিয়ে দেন, বলেন ‘‘ রাইমার সঙ্গে কথা বলো।’’ পরমব্রত ভদ্রতার খাতিরে রাইমাকে তাঁর শ্যুটিং কেমন হয়েছে জিজ্ঞেস করেন। উত্তর পেয়ে বেশ চমকেই যান তিনি। রাইমা এই প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ‘‘ছবিতে সবচেয়ে ভাল চরিত্রটা আমার। কারণ আমি দু’টি পুরুষকেই পাই।’’

‘বং কানেকশন’ ছবিতে রাইমা যেহেতু দু’টি ছেলের সঙ্গে প্রেম করার সুযোগ পেয়েছেন, তাই তাঁর মনে হয়েছে সেরা চরিত্রটা তাঁরই। এই কথাটা শোনার পর রাইমা সম্পর্কে সব আজগুবি ধারণায় ভেঙে যায় পরমব্রতর। তারপর থেকে যখনই সুযোগ পান রাইমাকে নিয়ে হাসি-ঠাট্টা করতে ছাড়ান না তিনি। পরমব্রতর সঙ্গে বন্ধুত্বটা বেশ উপভোগ করেন রাইমাও। নায়িকার মা মুনুমন সেনের মতে, পরমব্রত সঙ্গেই পর্দায় সবচেয়ে ভাল দেখায় রাইমাকে। প্রচুর ছবি একসঙ্গে করেছেন তাঁরা। বন্ধত্ব থাকার কারণেই পর্দায় এতো সাবলিল এই জুটি।

First published: January 26, 2020, 9:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर