Neel Bhattacharya: সিরিয়ালে দুই সন্তান ! তৃণাও দিলেন খুশির খবর ! আনন্দে গান ধরলেন নীল ! ভাইরাল ভিডিও

Neel Bhattacharya: নীল খালি গলায় নিজের বাড়িতে বসেই গাইছেন, "দিল ইয়ে মেরা বস মে নেহি, পেহলে কভি এয়সা হোতা থা নেহি, তু হি বাতা ইস দিল কা ম্যায় আব কেয়া করু' গানটি।

Neel Bhattacharya: নীল খালি গলায় নিজের বাড়িতে বসেই গাইছেন, "দিল ইয়ে মেরা বস মে নেহি, পেহলে কভি এয়সা হোতা থা নেহি, তু হি বাতা ইস দিল কা ম্যায় আব কেয়া করু' গানটি।

  • Share this:

    #কলকাতা: নীল ভট্টাচার্য (Neel Bhattacharya)। টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা। জনপ্রিয় ধারাবাহিক কৃষ্ণকলি-তে নিখিলের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। ধারাবাহিকে নিখিল এখন বাবা। তাও একটি নয় দু'টি সন্তানের। যদিও সন্তানদের ছোটবেলায় দেখেননি নিখিল। কারণ শ্যামা ওরফে কৃষ্ণকলি হারিয়ে গিয়েছিল। বহু বছর পর আবার ফিরে এসেছে শ্যামা। সঙ্গে তাঁর সন্তানরাও। এদিকে জেল থেকে ছাড়া পেয়ে সাধু সেজে বাড়ি এসেছে মেজ ভাই অশোক। কিন্তু ভালোমানুষের মুখোশ পরে থাকলেও এখনও সেই মুখ্য ভিলেন। শিবা কি সত্যিই শ্যামার ছেলে? এসব নিয়ে জল্পনা চলছে। বাড়ি থেকেই শ্যুটিং করে এতদিন দেখানো হয়েছে এই ধারাবাহিক। এতো গেল সিরিয়ালের কথা।

    বাস্তব জীবনে নিখিল বিয়ে করেছেন তৃণা সাহাকে। তৃণা আবার 'খড়কুটো' ধারাবাহিকের মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন। তাঁর চরিত্রের নাম গুনগুন। গুনগুনকে সবাই পছন্দ করে। আজই খড়কুটো-র ৩০০ এপিসোড পুরো হবার খবর জানিয়েছেন তৃণা। এদিকে সেই খুশিতেই খালি গলায় গান গেয়ে উঠলেন নীল। স্ত্রীর সাফল্যে খুশি না হয়ে পারা যায়। কয়েক মাস আগেই ধুমধাম করে বিয়ে হয়েছে তাঁদের। প্রেম, বন্ধুত্ব থেকে বিয়ে। ছোট বেলার বন্ধু তাঁরা। মাঝ খানে একটু বিরতি থাকলেও তাঁদের প্রেম ছিল সত্যি। বিয়ের পর আদরের নীলকে জামাইষষ্ঠী করতেও দেখা গিয়েছে।

    নীল আজই তাঁর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে একটি গান গেয়ে পোস্ট করেছেন। তিনি খালি গলায় নিজের বাড়িতে বসেই গাইছেন, "দিল ইয়ে মেরা বস মে নেহি, পেহলে কভি এয়সা হোতা থা নেহি, তু হি বাতা ইস দিল কা ম্যায় আব কেয়া করু' গানটি। এই গান শেয়ার করা মাত্রই ভাইরাল হয়। সকলে নেট দুনিয়ায় বলতে শুরু করেছেন এই গান কার জন্য গাইছেন? অবশ্যই তৃণার জন্য। নীল সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুণ অ্যাক্টিভ। সব কিছুর আপডেট তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর ভক্তদের দেন। তিনি যে শুধু ভালো অভিনেতা নন, খুব ভালো গানটাও করেন, তা এই ভিডিওই প্রমাণ করল।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: