বিনোদন

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

নিচু জাত ! নিজের গ্রামেই এক-ঘরে নওয়াজ ! এখনও জাত নিয়ে কথা শুনতে হয় অভিনেতাকে !

নিচু জাত ! নিজের গ্রামেই এক-ঘরে নওয়াজ ! এখনও জাত নিয়ে কথা শুনতে হয় অভিনেতাকে !

নওয়াজ উত্তরপ্রদেশের খুব ছোট একটি গ্রামে থাকতেন।

  • Share this:

#মুম্বই: কালো, রোগা, না খেতে পাওয়া চেহারা। কাজ চাইলে ফিরেও তাকানো হত না তাঁর দিকে। তবে উত্তরপ্রদেশের ছোট এক গ্রাম থেকে অনেক স্বপ্ন নিয়ে বলিউডে পা রেখেছিলেন নওয়াজ উদ্দিন। কিন্তু তাঁর ছিল না হিরো সুলভ চেহারা। না ছিল মাথার ওপর কারও হাত। ছিল পকেট ভর্তি স্বপ্ন। আর অভিনয়ে ভরসা। এক লাইন ইংরেজি বলতে পারেন না তিনি। জানেন কেবল হিন্দি। তাকে কে কাজ দেবে? কিন্তু সেই নওয়াজ শক্ত করেছেন বলিউডের মাটি। 'গ্যাংস অফ ওয়াসিপুর'-এর মতো ছবিতে বুলান্দি আওয়াজ নওয়াজ।

ছোট চরিত্রে কাজ পেয়েছেন, তাতেই এমন অভিনয় যে মানুষের মনে দাগ কেটে গেছে। কে রে ওই লোকটা? কালো মতো, ছোট খাট ? এই খোঁজই তাঁকে আজকের নওয়াজ বানিয়েছে। অভিনয়ের খিদে তাঁকে বলিউডে মাটি দিয়েছে। আজ নওয়াজ একা টেনে নিয়ে যেতে পারেন যেকোনও ছবি। তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন নায়ক হতে গেলে সলমন খান হতে হয় না। পাশের বাড়ির ছেলেটাও পারে পর্দা কাঁপাতে।

নওয়াজ উত্তরপ্রদেশের খুব ছোট একটি গ্রামে থাকতেন। তিনি একটি ইন্টারভিউতে জানিয়েছেন। তাঁদের গ্রামের লোকেরা সব সময় তাঁদের একঘরে করে রাখত। কারণ তাঁর ঠাকুমা নিচু জাতের মেয়ে ছিলেন। আর সেই জন্য গোটা গ্রাম তাঁদেরকে দূরে সরিয়ে রেখেছিল। সব জায়গায় যাওয়ার অনুমতি ছিল না। সবার সঙ্গে মেশার অনুমতি ছিল না। প্রায় এক ঘরে হয়ে থাকার মতোই থাকতে হয়েছে। নওয়াজ জানিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের এই গ্রামে এখনও জাতপাত সবার ওপরে। উচু জাতের মানুষরা এখনও অবহেলা করেন নিচু জাতের মানুষদের। দেশ এত উন্নতি করছে, কিন্তু এখনও এ দেশে মাথা তুলে দাঁড়িয়ে আছে জাতপাতের লড়াই।

তিনি আরও জানান, 'গ্রামের লোকের কাছে এটা কোনও ব্যাপারই না আমি কি করি ! আমি সিনেমার স্টার তাতে ওদের কিছু আসে যায় না। যতই বিখ্যাত হয়ে যাও, নিচু জাতের মানুষদের ওরা পাত্তা দেয় না। এখনও কিছুই বদলাইনি। খুব খারাপ অবস্থা দেশের। এখন যেন এসব আরও বেড়ে গেছে।"

নওয়াজ হাথরস ধর্ষণ ঘটনাতেও কথা বলেন। তিনি বলেন, যা হয়েছে তার থেকে খারাপ আর কিছু হতে পারে না। আমাদের সকলের একজোট হয়ে প্রতিবাদ করতে হবে। এবার এসব সত্যিই বন্ধ হওয়া দরকার।

Published by: Piya Banerjee
First published: October 10, 2020, 9:46 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर