Bigg Boss OTT Day 26 Highlights: টাস্কের সময়ে মিলিন্দ গাবা ও প্রতীক সহজপালের নজরকাড়া পারফরম্যান্স

এদিনের টাস্কে রাকেশ বাপট (Raqesh Bapat) ও শমিতা শেঠি (Shamita Shetty) ছিলেন সঞ্চালকের ভূমিকায়।

এদিনের টাস্কে রাকেশ বাপট (Raqesh Bapat) ও শমিতা শেঠি (Shamita Shetty) ছিলেন সঞ্চালকের ভূমিকায়।

  • Share this:

#মুম্বই: Bigg Boss OTT-র ঘরে এই সপ্তাহের বস ম্যান এবং বস লেডি বাছাইয়ের টাস্ক শুরু হয়। এদিন ল্যাডার গেমের প্রতিযোগিতা রাখা হয়। প্রতিযোগীরা ছিলেন অক্ষরা সিং (Akshara Singh) ও কানেকশন মিলিন্দ গাবা (Milind Gaba), নিশান্ত ভাট (Nishant Bhatt) ও কানেকশন মুজ জাটানা (Moose Jattana), প্রতীক সহজপাল (Pratik Sehajpal) ও কানেকশন নেহা ভাসিন (Neha Bhasin)। প্রতিযোগীদের একটি ল্যাডার বানাতে বলা হয়। তার জন্য প্রতি ধাপে একটি করে চিঠি আসার কথা ছিল। সেই চিঠি প্রত্যাখ্যান করে বস ম্যান এবং বস লেডি টাস্কে ল্যাডার বানাতে বলা হয়। প্রতিযোগীদের পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়ে যে তাঁরা ওই চিঠির সাহ্যয্যে নিজেরা ল্যাডার বানাবেন না অন্য কাউকে চিঠি পড়বার সুবিধা করে দেবেন! এই ভাবে একে বারে শেষ পর্যন্ত যেই জুটি থাকতে পারবে সেই জুটি এই টাস্কের জয়ী বলে ঘোষিত হবে বলে বিগ বস ঘোষণা করেন।

এদিনের টাস্কে রাকেশ বাপট (Raqesh Bapat) ও শমিতা শেঠি (Shamita Shetty) ছিলেন সঞ্চালকের ভূমিকায়। প্রথম চিঠি এসেছিল দিব্যা আগরওয়ালের (Divya Agarwal) জন্য। মিলিন্দ গাবা দিব্যার জন্য আসা চিঠি পড়তে দেয়। ফলে ল্যাডার তৈরির প্রথম ধাপ ছেড়ে দিতে হয়। খেলার তৃতীয় রাউন্ডে টুইস্ট আসে। অক্ষরার নামে চিঠি আসে, তিনি নিজের জন্য আসা চিঠি পড়তে অস্বীকার করেন। তাঁদের কানেকশন ল্যাডারের ধাপ বানাতে সক্ষম হয়। এরপর চিঠি আসে নেহার জন্য। নেহা সেই চিঠি নিজের হাতে নেন। এরপর মিলিন্দের নামে চিঠি আসে। টাস্কের অন্য দুই প্রতিযোগী প্রতীক সহজপাল ও নিশান্ত ভাট মিলিন্দকে চিঠি দিয়ে দেন। প্রতীক এদিনের টাস্কে ভালো পারফর্ম করেন। নিজের নামের চিঠি ছিঁড়ে ফেলে ল্যাডার বানাবার কাজ করেন। শমিতা শেঠির জন্য আসা চিঠি নিশান্ত দিয়ে দেন এই ভাবে এদিনের টাস্ক সময় মতো শেষ হলেও টাই হয়ে যায়। শেষমেশ কোনও জুটি বস ম্যান এবং বস লেডি হিসেবে নির্বাচিত হতে পারেনি।

জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো বিগ বসের (Bigg Boss) ডিজিটাল ভার্সন জমে উঠেছে। ২৪ ঘণ্টা OTT প্ল্যাটফর্ম Voot-এ লাইভ করা হচ্ছে। আগামীতে আরও কী কী চমক থাকছে এখন সেই দিকেই নজর রয়েছে দর্শকদের।

First published: