Home /News /entertainment /
KK passes away: বিশেষ কোনও নায়কের কণ্ঠস্বর হতে আপত্তি ছিল, কেন একথা খোলাখুলি জানিয়েছিলেন কেকে?

KK passes away: বিশেষ কোনও নায়কের কণ্ঠস্বর হতে আপত্তি ছিল, কেন একথা খোলাখুলি জানিয়েছিলেন কেকে?

বিশেষ কোনও নায়কের কণ্ঠস্বর হতে আপত্তি ছিল, কেন একথা খোলাখুলি জানিয়েছিলেন KK?

বিশেষ কোনও নায়কের কণ্ঠস্বর হতে আপত্তি ছিল, কেন একথা খোলাখুলি জানিয়েছিলেন KK?

KK দেশের সেই হাতে গোনা গায়কদের একজন, যাঁর একটা নির্দিষ্ট পরিচিতি ছিল নিজস্ব গায়ক হিসাবে।

  • Share this:

#কলকাতা: এই প্রসঙ্গও এখন তাঁর অন্যতম জনপ্রিয় গানের মতোই- বিতেঁ লমহে (Beetein Lamhe)! ভোরের আলো সব সময়ে যে সুসংবাদ নিয়ে আসে না, তা আমরা অনেকেই এতদিনে জেনে গিয়েছি (KK passes away)। আজ কলকাতার পক্ষে দিনটা আরও বেশি মনখারাপের, এই শহর থেকে কনসার্টের পরেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বিদায় নিয়েছেন কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ (Krishnakumar Kunnath); দেশ যাঁকে চেনে নামের আদ্যক্ষরের সূত্রে, KK বলে!

KK দেশের সেই হাতে গোনা গায়কদের একজন, যাঁর একটা নির্দিষ্ট পরিচিতি ছিল নিজস্ব গায়ক হিসাবে। KK বললেই যে সব গান সাধারণত আমাদের মাথায় আসে, তার খুব কমই ছবির গান। যে গায়ক বলিউডে কাজ করেও গ্ল্যামার থেকে নিজেকে রেখেছিলেন সযতনে তফাতে, তাঁর পক্ষে এই নিজস্ব পরিচিতি তৈরি করা কঠিন কিছু নয়। সত্যি বলতে কী, এটা খুব সচেতন ভাবেই করে উঠতে পেরেছিলেন কেকে। সংবাদসংস্থা IANS-কে দেওয়া এক টেলিফোনিক ইন্টারভিউতে সে কথা উল্লেখ করতেও দ্বিধা ছিল না তাঁর।

আরও পড়ুন- অনুষ্ঠান চলাকালীনই অস্বস্তি বোধ করছিলেন, কেকে-র প্রয়াণে অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু

আসলে, প্রসঙ্গটা এসেছিল বজরঙ্গি ভাইজান (Bajrangi Bhaijaan) ছবির সূত্রে। সেই সময়ে সলমন খানের (Salman Khan) লিপে KK-র গাওয়া ‘তু যো মিলা’ (Tu Jo Mila) দেশের চার্টবার্স্টারে জায়গা করে নেয়। এই সাফল্য কেমন উপভোগ করছেন, সেটাই জানতে চাওয়া হয়েছিল প্রয়াত গায়কের কাছে। "ওঁর হয়ে গান গেয়ে ভাল লেগেছে। তবে আমি আমার গান নির্দিষ্ট কারও জন্য সীমাবদ্ধ করে রাখতে চাই না। বিশেষ কারও কণ্ঠস্বর আমি হয়ে উঠতে চাই না। সে আজ বলে নয়, ছোট থেকে কোনও দিনই এরকম কোনও ইচ্ছা আমার ছিল না’’, জানিয়েছিলেন KK।

আরও পড়ুন-অনুষ্ঠান চলাকালীনই ঘামছিলেন, কলকাতার কনসার্টে শেষ গান কী ছিল তাঁর ? দেখুন ভিডিও

এটুকুতেই থেমে না থেকে নিজের জনপ্রিয়তার কারণটাও ব্যাখ্যা করে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন আত্মবিশ্বাসী এই গায়ক। জানিয়েছিলেন যে স্বাধীনভাবে গাইতে পারাটাই তাঁকে জনপ্রিয় করে তুলেছে, সেটাই তৈরি করেছে তাঁর পরিচিতি। বিশেষ কোনও বিখ্যাত ব্যক্তির ছায়া হিসাবে তাঁর পরিচিতি তাই তৈরি হয়নি। সেকারণেই যদি ছবিতে গান গাওয়ার ডাক আসে, মুহূর্ত বিচার করে তারপর রাজি হন তিনি।

ভাগ্যিস! না হলে তারেঁ জমিন পর (Taare Zameen Par) ছবির মা (Maa) গানটা আমরা পেতামই না!

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

পরবর্তী খবর