Bollywood: ঝিমিয়ে পড়েছে কেরিয়ার! এ কী বললেন সুন্দরী করিনা কাপুর খান!

ব্যক্তিগত জীবন এবং সন্তানের সঙ্গে ব্যালেন্স করে বেবোকে পেশাদার কাজগুলি করতে হয়।

ব্যক্তিগত জীবন এবং সন্তানের সঙ্গে ব্যালেন্স করে বেবোকে পেশাদার কাজগুলি করতে হয়।

  • Share this:

#মুম্বই: জীবনের বিভিন্ন সিদ্ধান্তে একাধিক স্টিরিওটাইপ ভেঙেছেন অভিনেত্রী করিনা কাপুর খান (Kareena Kapoor Khan)। কেরিয়ার মধ্যগগনে থাকাকালীন ২০১২ সালে অভিনেতা সইফ আলি খানের (Saif Ali Khan) সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন এই বি-টাউন অভিনেত্রী। বিয়ের পর, এমনকি সন্তান হওয়ার পরও কাজ করে চলেছেন বেবো। কিন্তু বিয়ের আগে করিনাকেও শুনতে হয়েছিল যে বিয়ের পর তিনি আর আগের মতো সিনেমায় নায়িকা হওয়ার প্রস্তাব পাবেন না। তবে বাস্তবে করিনা যে সকলের ধারণা একেবারে চোখে আঙুল দিয়ে ভুল প্রমাণিত করেছেন তা বলাই বাহুল্য।

বিয়ের বছরেই করিনা এজেন্ট বিনোদ (Agent Binod), হিরোইন (Heroine) এবং তলাশ (Talash) সিনেমায় নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। এর পর দাবাং ২ (Dabang 2)-তে করিনাকে ভক্তরা আইটেম নম্বরেও দেখতে পান। বিয়ের পর বিগত নয় বছরে সিংহম রিটার্নস (Singham Returns), বজরঙ্গী ভাইজান (Bajrangi Bhaijaan), উড়তা পঞ্জাব (Udta Punjab), গুড নিউজ (Good Newz) সহ বিভিন্ন সুপারহিট সিনেমায় তাঁকে নায়িকা হিসাবে পাওয়া গিয়েছে।

বিয়ে কিংবা সন্তান হওয়ার পর করিনার জীবনের প্রাধান্য বদলে গিয়েছে। সেক্ষেত্রে ব্যক্তিগত জীবন এবং সন্তানের সঙ্গে ব্যালেন্স করে বেবোকে পেশাদার কাজগুলি করতে হয়। এপ্রসঙ্গে ২০১৮ সালে একটি ইন্টারভিউতে করিনা জানিয়েছিলেন যে কী ভাবে তিনি পেশাদার এবং ব্যক্তিগত জীবনের মধ্যে সমতা বজায় রাখেন। করিনা বলেন, "পরিবার, আমার সন্তান, আমার স্বামী- তাঁরাই আমার কাছে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমি যতটা আমার কাজকে ভালোবাসি ততটাই আমি মা হওয়াকে ভালোবাসি। আমি ভারসাম্যপূর্ণ কাজ করে অন্যদের জন্য উদাহরণ হতে চাই।" এক্ষেত্রে বিয়ে কিংবা সন্তান হওয়ার পর সংখ্যায় কম সিনেমা করেও তিনি যে যথেষ্ট সন্তুষ্ট তা বুঝিয়ে দিয়েছেন করিনা। তাঁর মতে, "আমাকে বলা হয়েছিল যে বিয়ের পরে আমি কাজ পাব না। কিন্তু আমি এই ধারণার বদল এনেছি। হ্যাঁ, বিয়ের পর অল্প ছবিতে কাজ করেছি। তবে এটা যদি আমার ভুল হয়ে থাকে তাতে আমার কোনও আফসোস নেই।"

বিয়ে কিংবা সন্তান করিনার কেরিয়ারে সে ভাবে কোনও প্রতিবন্ধকতা নিয়ে আসেনি। বরং তিনি স্বেচ্ছায় নিজে থেকেই পরিবারকে সময় দিতে চেয়েছেন। পূর্ণ সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন সইফও। পরিবার, সন্তান এবং কেরিয়ারের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে স্বামী-স্ত্রী উভয়েই নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া করেছেন। এপ্রসঙ্গেই করিনা বলেছিলেন, "সিনেমা তো চলতে থাকবেই, কিন্তু আমি একবারে একটি সিনেমাই করব। কারণ আমার স্বামী কোনও ব্যবসায়ী নন যিনি সন্ধ্যে ৬টায় বাড়ি ফিরে আসবেন। তিনিও একজন অভিনেতা, এবং আমাদের তৈমুরের জন্য সময় ব্যালেন্স করতে হবে। আমরা তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে আমরা একই সময়ে একটি সিনেমা করব। যার ফলে কেরিয়ার ঝিমিয়ে পড়বে বটে। তবে সেই নিয়ে আমার কোনও সমস্য়া নেই।"

প্রসঙ্গত, করিনা এবং সইফ এবছরের শুরুতে দ্বিতীয় সন্তানকে স্বাগত জানিয়েছেন। গর্ভবতী থাকাকালীনই আমির খানের (Aamir Khan) বিপরীতে করিনা লাল সিং চাড্ডা (Lal Singh Chaddha) সিনেমার কাজ শেষ করেন। একই সঙ্গে তাঁর রেডিও শো-এর রেকর্ডিং করেন। এর পর ডেলিভারির পর খুব বেশি বিরতি না নিয়ে স্টার ভার্সেস ফুড (Star vs Food) নামে একটি ফুড শো-এর এক পর্বে কাজ করেন।

সন্তান হওয়ার পর কখনওই নিজেকে কাজের বাইরে রাখতে চাননি সইফ-পত্নী। গর্ভবস্থায় এবং ডেলিভারির পর নিজের স্বাচ্ছন্দ্যে করিনা চুটিয়ে কাজ করে গিয়েছেন। গর্ভবতী মহিলারা আর কাজ পাবেন না এই স্টিরিওটাইপ ধারণার বদল করে নিজেকে বরাবরই সমাজের কাছে উদাহরণ হিসাবে তুলে ধরতে চেয়েছেন করিশমা কাপুরের (Karisma Kapoor) বোন। বরং করিনা মনে করেন, যত মহিলারা কাজের মধ্যে থাকবেন ততই সন্তান স্বাস্থ্যবান হবে। 'ওয়ার্কিং মাদার' হওয়ায় নিজের প্রতি গর্ববোধ করেন এই গ্ল্যামারাস অভিনেত্রী। আগামী দিনেও করিনা একইভাবে নিজের পরিবার এবং কেরিয়ারের মধ্যে সামঞ্জস্য রেখে কাজ করে যাবেন বলে জানিয়েছেন।

Published by:Suman Majumder
First published: