নেপোটিজম বিতর্কের জবাব, করণ জোহর এ বার খুঁজবেন দেশের প্রতিভাদের!

নেপোটিজম বিতর্কের জবাব, করণ জোহর এ বার খুঁজবেন দেশের প্রতিভাদের!

এজেন্সির স্টেটমেন্ট অনুযায়ী, এই এজেন্সি একটা ট্যালেন্ট পাওয়ার হাউজ তৈরি করবে এবং আর্টিস্ট ম্যানেজমেন্টে সাহায্য করবে সকলকে।

এজেন্সির স্টেটমেন্ট অনুযায়ী, এই এজেন্সি একটা ট্যালেন্ট পাওয়ার হাউজ তৈরি করবে এবং আর্টিস্ট ম্যানেজমেন্টে সাহায্য করবে সকলকে।

  • Share this:

#মুম্বই: বলিউডের স্টার কিডদের নিয়ে সিনেমা তৈরি থেকে বেরিয়ে নতুন কাজে মন বসিয়েছেন করণ জোহর (Karan Johar)। না, কোনও শোয়ের বিচারক নন। এটা একদমই একটা অন্য কাজ। যার কথা নিজেই তিনি জানিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media)। জানিয়েছেন এ কাজ করতে তিনি খুবই এক্সাইটেড। আর এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় গুঞ্জন শুরু হয়েছে। বলা হচ্ছে, এ ভাবেই না কি নেপোটিজম বিতর্কের অবসান ঘটাতে চাইছেন বলিউডের (Bollywood) এই প্রযোজক-পরিচালক।

আসলে বান্টি সাচদে-র সঙ্গে মিলে তিনি একটি নতুন ট্যালেন্ট হান্ট এজেন্সি খুলেছেন। গতকাল সেই এজেন্সি Dharma Cornerstone Agency (DCA)-র লঞ্চ হয়। লঞ্চের পর এই নতুন ভেঞ্চারের কথা তিনি নিজেই জানান সোশ্যাল মিডিয়ায়। এর আগে কোম্পানিটির নাম ছিল Cornerstone। যার মালিক ছিলেন বান্টি একা। এ বার তাতেই যুক্ত হল করনের Dharma প্রোডাকশন। গতকাল এই খুশির খবরটি দেওয়ার পাশাপাশি এজেন্সির লোগোও সকলের সঙ্গে শেয়ার করে নেন তিনি।

অন্য আরেকটি ট্যুইটে লেখেন, সব চেয়ে ভালো ট্যালেন্ট খুঁজে নিয়ে আসা হবে। পাশাপাশি ট্যালেন্টের পাওয়ার হাউজে পরিণত হবে এই এজেন্সি।

ট্যুইটারের (Twitter) পাশাপাশি ইন্টাগ্রামেও (Instagram) এই নিয়ে স্টোরি আপলোড করেন তিনি গতকাল। তাঁর এই নতুন কাজের কথা জানতে পেরে, তাঁকে ভালোবাসা ও অভিনন্দনে ভরিয়ে দেন তাঁর অনুগামীরা।

তাঁকে অভিনন্দন জানাতে শুরু করেন বলিউডের অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও। অভিনন্দন জানান রিতেশ দেশমুখ, মালাইকা আরোরা, অমৃতা আরোরা, প্রীতি জিনটা, মোহিত মারওয়া প্রমুখরা।

এ দিকে DCA-র তরফে জানানো হয়েছে, গত ৪০ বছরেরও বেশি সময় ধরে বলিউডে কাজ করছে Dharma Production। তাদের বিরাট অবদান রয়েছে এই ইন্ডাস্ট্রিতে। মিউজিক আর্টিস্ট খুঁজে বের করা থেকে অভিনেতা-অভিনেত্রী, সব ক্ষেত্রেই ট্যালেন্ট খুঁজে বের করায় তাদের অবদান রয়েছে। এমন অনেক মানুষকে তারা কাজ দিয়েছে, কেরিয়ার তৈরিতে সাহায্য করেছে।

এজেন্সির স্টেটমেন্ট অনুযায়ী, এই এজেন্সি একটা ট্যালেন্ট পাওয়ার হাউজ তৈরি করবে এবং আর্টিস্ট ম্যানেজমেন্টে সাহায্য করবে সকলকে। পাশাপাশি এটা একটা সেফ হোমে পরিণত হবে, যেখানে যোগাযোগ করলেই প্রফেশনাল ও কনটেম্পোরারি ট্যালেন্টের খোঁজ পেতে পারবেন সকলে।

করণ জোহরের এই নতুন কাজ OTT প্ল্যাটফর্মে ও বিভিন্ন ইভেন্টে ভালো কনটেন্ট ও ট্যালেন্টেড লোকজন দিয়ে সাহায্য করবে বলে মনে করছেন অনেকে।

Published by:Piya Banerjee
First published: