corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রচুর গালিগালাজ শুনছি, খুব কষ্ট হচ্ছে, মুম্বই ছাড়লাম: কঙ্গনা

প্রচুর গালিগালাজ শুনছি, খুব কষ্ট হচ্ছে, মুম্বই ছাড়লাম: কঙ্গনা

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই বলিউডের ঠোঁট কাটা নায়িকা বলে পরিচিত কঙ্গনা রানাওয়াত পড়েছেন বিপাকে ৷

  • Share this:

#মুম্বই: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই বলিউডের ঠোঁট কাটা নায়িকা বলে পরিচিত কঙ্গনা রানাওয়াত পড়েছেন বিপাকে ৷ প্রথমে নেপোটিজম নিয়ে বিতর্ক, তারপর মুম্বইকে ‘পাকিস্তান’ বলে সম্বোধন করায় কঙ্গনা শিব সেনার নজরে রীতিমতো ভিলেন ৷ তার ওপর বারুদ ঢাললেন সঞ্জয় রাওতের হারামখোর মন্তব্য এবং তার বিরুদ্ধে কঙ্গনার সাহসী জবাব ৷ এরপর জল গড়ালো একেবারে অন্যদিকে, বিএমসি হঠাৎই বেআইনি কাঠামোর অজুহাতে ভেঙে দিল কঙ্গনার প্রযোজনার অফিস ! ব্যস, নতুন করে শুরু বিতর্ক ৷

রীতিমতো শিবসেনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমে পড়লেন কঙ্গনা রানাওয়াত ৷ কঙ্গনার মুখ যত খুলল, বিতর্ক ততই বেড়েই গেল ৷ সেই বাকযুদ্ধের মাঠ ছেড়ে এবার ছাড়লেন কঙ্গনা ৷ সম্প্রতি ট্যুইট করে কঙ্গনা টিম জানিয়ে দিল, মুম্বই ছাড়ছেন তিনি ৷
তা কী লিখলেন কঙ্গনা রানাওয়াত? কঙ্গনা ট্যুইট করে লিখলেন, ‘বড্ড কষ্ট হচ্ছে ৷ তবুও উপায় নেই ৷ যেভাবে আমাকে গালিগালাজ, বিপাকে ফেলা হচ্ছে, ভেঙে দেওয়া হচ্ছে আমার অফিস, হুমকি দেওয়া হচ্ছে আমার বাড়ি ভেঙে দেওয়ার, সারাক্ষণ নিরাপত্তারক্ষীদের নিয়ে চলেছি ৷ এই পরিস্থিতি অস্বাস্থ্যকর ৷ সত্যিই মুম্বইকে পাকিস্তানের সঙ্গে তুলনা করাটা যুক্তিযুক্ত !’

কঙ্গনা রানাওয়াত ও শিবসেনার উদ্ভব ঠাকরের লড়াই তুঙ্গে। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরেকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মন্তব্য করায় কঙ্গনার নামে পুলিশে এফআইআর করা হয়। তবে এই অভিযোগটি ঠাকরে করেননি। করেছেন হাইকোর্টের উকিল নিতিন মানে।  যদিও এই অভিযোগের কথা জানাজানি হতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হতে শুরু করেন ঠাকরে। তবে কঙ্গনা দমে যাওয়ার মেয়ে নন। এর আগেই ভিডিও পোস্ট করে কঙ্গনা জানিয়েছিলেন, "যতক্ষণ আমার শরীরে প্রাণ আছে আমি সবার মুখোশ টেনে খুলে দেব!" সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে অনেকেই এখন একটাই কথা তবে কি ভয়ে পেয়ে কঙ্গনার নামে অভিযোগ দায়ের করা হল। কঙ্গনা মুখ খুলেছিলেন সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে। অভিযোগ করেছিলেন বলিউডের তাবড় তাবড় পরিচালক প্রযোজকদের বিরুদ্ধে। নেপোটিজম, বলিউডের ড্রাগচক্রের মতো বহু বিষয় নিয়ে তিনি সরব হয়েছেন। এর পর থেকেই কঙ্গনা প্রাণের হুমকি পেতে শুরু করেন। ঘটনার সূত্রপাত দিনয়কয়েক আগে। বলিউডে নেপোটিজম এবং মাদক চক্র নিয়ে সরব কঙ্গনা মুম্বইকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা করেন। মুম্বইবাসীর ভাবাবেগে আঘাত করে এই মন্তব্য, এই যুক্তিতে প্রতিবাদে মুখর হয় শিবসেনা। শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত কঙ্গনাকে 'হারামখোর' ও বলেন। এই বিতণ্ডায় স্পষ্টই দু'ভাগ হয়ে যায় বলিউড। অনেকেই বলতে থাকেন, কঙ্গনা যেমন মুম্বইকে কদর্য আক্রমণ করছেন, তেমনই সঞ্জয়ের এই মন্তব্যও অত্যন্ত কুৎসিত।মুম্বইয়ের দিকে আঙুল তুলতে সঞ্জয় সপাটে বলেন, কঙ্গনার আর মুম্বই আসার দরকার নেই। দমবার পাত্রী নন কঙ্গনা। উত্তর ফিরিয়ে তিনিও সরাসরি বলেন, "আমার বাকস্বাধীনতা রয়েছে। যে কোনও প্রান্তে যাওয়ার অধিকারও রয়েছে।" কঙ্গনা একই সঙ্গে জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি ৯ সেপ্টেম্বর মুম্বইয়ে পা রাখতে চলেছেন। সেইমতো মুম্বই আসেন তিনি। এর পরই শিবসেনার উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বাধীন মহারাষ্ট্র সরকার কঙ্গনা রানাওয়াতের বিরুদ্ধে একের পর এক পদক্ষেপ নিতে শুরু করে দেয়। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় কঙ্গনা রানাওয়াত মুখ খোলার পর থেকেই শিবসেনার সঙ্গে অভিনেত্রীর একাধিক ইস্যুতে সংঘাত শুরু হয়। গতকাল বুধবার কঙ্গনার মুম্বইয়ের অফিস ভেঙে দেয় বিমসি। যার প্রতিবাদ করেন ফের কঙ্গনা। ফেসবুকে সরাসরি ভিডিও পোস্ট করে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ ছোড়েন তিনি। বলেন, 'আজ আমার বাড়ি ভাঙছে কাল তোমার অহংকার ভাঙবে।' এই ভিডিওতেই কঙ্গনা বলেন আমার প্রাণ থাকতে সবার মুখোশ খুলবো। যদিও তিনি সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকেই বলিউডের অনেকের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। রিয়াকেও নিশানায় রেখেছিলেন কঙ্গনা। এখন এটাই দেখার কার কার মুখোশ খোলেন তিনি।

Published by: Akash Misra
First published: September 14, 2020, 3:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर