Iman Chakraborty : ‘ভাল রাখাটা একটা আর্ট’, কটূক্তি উড়িয়ে শিল্পী এ বার খাবার হাতে পথের কুকুরদের পাশে

ইমন চক্রবর্তী, ছবি-ফেসবুক

সঙ্গীতশিল্পী জানিয়েছেন, এই কার্যত লকডাউনে এ বার থেকে তাঁর প্রতিষ্ঠান ‘ইমন সঙ্গীত অ্যাকাডেমি’ দায়িত্ব নিল পথকুকুরদের খাবার যোগানেরও ৷ যে নেটিজেন এই সমস্যার দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন, তাঁকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইমন ৷ অবলা প্রাণীদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য ইমনকে বাহবা জানিয়েছেন অনুরাগীরা ৷

  • Share this:

    কলকাতা : ট্রোলিং ঝড়ে দমে যাওয়ার পাত্রী নন তিনি ৷ আগেই বুঝিয়ে দিয়েছেন ইমন চক্রবর্তী ৷ কোভিড পরিস্থিতি এবং তার পর ইয়াসতাণ্ডব, তারকা হিসেবে নজিরবিহীন ভূমিকা পালন করেছেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত এই গায়িকা ৷ ক্রমাগত কটূক্তির পরেও ত্রাণ নিয়ে পৌঁছে গিয়েছেন ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকায় ৷

    এ বার তিনি পাশে দাঁড়ালেন পথের সারমেয়দের ৷ কার্যত লকডাউনে রাস্তার ধারের ছোট থেকে মাঝারি হোটেল এবং খাবার দোকানগুলি বন্ধ পড়ে থাকায় অভুক্ত থাকতে হচ্ছে রাস্তার কুকুরগুলিকে ৷ কারণ এই হোটেল এবং খাবারের দোকান থেকে দেওয়া বা ফেলে দেওয়া খাবারেই বেঁচে থাকে প্রাণীগুলি ৷ এ বার তাদের কাছে খাবার নিয়ে হাজির হল ইমনের সহযোগীরা ৷ সঙ্গীতশিল্পী জানিয়েছেন, এই কার্যত লকডাউনে এ বার থেকে তাঁর প্রতিষ্ঠান ‘ইমন সঙ্গীত অ্যাকাডেমি’ দায়িত্ব নিল পথকুকুরদের খাবার যোগানেরও ৷ যে নেটিজেন এই সমস্যার দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন, তাঁকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইমন ৷ অবলা প্রাণীদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য ইমনকে বাহবা জানিয়েছেন অনুরাগীরা ৷

    তবে নেটিজেনদের একাংশের ব্যবহারে ইমন ক্ষুব্ধ ৷ তাঁদের বিরুদ্ধে নিজের ক্ষোভ প্রকাশও করেছেন সামাজিক মাধ্যমে ৷

    গত কয়েক দিন তাঁর সমাজসেবামূলক কাজ দেখে অনেকেরই তির্যক মন্তব্য ছি,ল তিনি নিজের প্রচার করছেন ৷ কেউ কেউ আবার আরও কর্কশ কথা বলেছেন ৷ তাঁদের ধারণা, ইমনের পরিকল্পনা হল পরের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ! তাঁদের উদ্দেশে ইমন লিখেছেন, ‘আমি একজন সঙ্গীতশিল্পী ৷ শেষ এক বছরে হাতে গুনে দশটা শো করেছি ৷ আমার মতো সব শিল্পীরই প্রায় একই অবস্থা ৷ তা ঠিক আছে৷ তা চলে যাচ্ছে ৷ ’

    কিন্তু এই পরিস্থিতিতেও শিল্পীকে যাঁরা কটূক্তি করেছেন, তাঁদের কটুবাক্য আদতে তাঁকে এগিয়ে যেতেই সাহায্য করেছে ৷ তাঁর দৃপ্ত বাক্য, ‘আমি কিন্তু পিছিয়ে যাচ্ছি না ৷ আর যাবও না৷’

    তবে শুধু ক্ষোভ উগরে দেওয়াই নয় ৷ ইমন মনে রেখেছেন, যাঁরা তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছেন, তাঁদের সকলকে ৷ বলেছেন, তাঁদের সাহায্যের জন্যই তিন হাজার মানুষ এক বেলা হলেও খেতে পেয়েছেন ৷ শিল্পী মনে করেন, ‘ভাল রাখাটা একটা আর্ট ৷ ওটা সবাই পারে না৷’ হিতৈষীদের তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন অন্তর থেকে ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: