Home /News /entertainment /
প্যানডেমিকের বছরে শুধু মেয়ে ও পরিবারের দেখভাল করেছি : রানি মুখোপাধ্যায়

প্যানডেমিকের বছরে শুধু মেয়ে ও পরিবারের দেখভাল করেছি : রানি মুখোপাধ্যায়

Rani Mukerji (File image)

Rani Mukerji (File image)

পঁচিশ বছর পূর্ণ হল অভিনয় জীবনের

  • Share this:

    #মুম্বই: অবশেষে ইনস্টাগ্রামে রানি মুখার্জির সঙ্গে লাইভ! সারা বিশ্বের কত শত অনুরাগীর কাছে এ তো হাতে চাঁদ পাওয়ার সামিল। রানি তো কোনওমতেই সোশাল মিডিয়ায় আসেন না। অত ভালও বাসেন না নিজের প্রচার করতে। অভিনয় জগতেরই রানি হয়ে থাকতে চান তিনি।

    যশ রাজ ফিল্মসের অফিসে রানি বসেছেন। সুন্দর একটা শেডস। মেক-আপের লেশমাত্র নেই। অপূর্ব ঊজ্জ্বল ত্বক। প্রাণখোলা হাসি। আর সেই মন-ভাল-করা husky voice! এখনও বলিউডে যেটা রানি মুখোপাধ্যায়ের ট্রেডমার্ক।

    প্যানডেমিকের মেঘ কাটিয়ে সবে পরিচ্ছন্ন হচ্ছে বলিউডের আকাশ। রানি আবার ফিরছেন বড়পর্দায়। "বান্টি আউর বাবলি টু' আমার পরবর্তী প্রজেক্ট। মনে পড়ে সেই প্রথম শুটিংয়ের সময়ে কত মজা করেছিলাম। প্রাণ খুলে দিন রাত শুটিং। কখনও ক্লান্ত মনে হয়নি নিজেকে। প্যানডেমিকের পর ভগবানের কাছে প্রার্থনা, আপনারা সুস্থ শরীরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুন। মনে ভয় যেন না থাকে। নতুন নিয়মের সঙ্গে মানিয়ে আবার আনন্দ করে আমাদের ছবি দেখতে আসুন। " ঠোঁটের কোণে একচিলতে হাসি।

    মুগ্ধ ভক্তরা অনর্গল প্রশ্ন করে চলেছেন। মহামারীর সময়টা আপনি কেমন করে ঘরবন্দি থাকলেন? অন্যান্য সেলিব্রিটিদের যখন প্রায়শ সোশাল মিডিয়ায় দেখা যাচ্ছিল। "দেখুন, এই সময়টা আমাদের সবচেয়ে কঠিন সময়। মানবজাতির দুঃসময়ে সমাজের আসল হিরোদের পরিচয় পেলাম আমরা। সব ফ্রন্টলাইনে থাকা কর্মীদের প্রণাম। ওঁরা না থাকলে আমরা এই কঠিন সময়ে কী করতাম! ডাক্তারবাবুরা যেভাবে দিনরাত শ্রম দিয়ে আমাদের সুস্থ করে তুলছেন। জীবনকে তুচ্ছ করে। দেখলাম কত মানুষ ঘরে ফিরতে চাইছেন। এমন এক কঠিন সময়, যেজন্য কেউ তৈরি ছিলাম না। " বলতে বলতে আবেগপ্রবণ হয়ে গেলেন তিনি।

    "আমার একটাই চিন্তা ছিল আদিরাকে নিয়ে। সুরক্ষিত থাকার চিন্তা শুধু নয়, চিন্তা হচ্ছিল এই ভেবে যে, ওর মাথায় যেন দুশ্চিন্তা গেড়ে না বসে। ছোটবেলা থেকেই যেন একটা ভাইরাস ঘিরে তৈরি হওয়া ভয় ওকে জড়িয়ে না থাকে। এর বয়স মোটে পাঁচ। এখন এর আনন্দে থাকার বয়স। আমি মায়ের মতো সেটাই করতে থেকেছি। পরিবারের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গী জড়িয়ে থেকে উপভোগ করতে চেয়েছি। আমার মায়ের কিছুদিন আগেই একটা সার্জারি হল। চেষ্টা করেছি যথাসম্ভব সেবা করার। " বললেন রানি।

    পঁচিশ বছর পূর্ণ হল অভিনয় জীবনের। আপনার সেরা শিক্ষা? "একটাই । সব সময় শিখে চলতে হবে। প্রতিটি ছবি থেকে শিখেছি। প্রতিটি ক্ষেত্রে করা ভুল থেকে শিখেছি। গুরুজনদের কাছে শিখেছি, সহঅভিনেতাদের কাছ থেকে শিখেছি। প্রতিনিয়ত ছাত্রী হয়ে থেকেছি এই 25 বছর। আজও ছাত্রী হিসেবেই থাকতে চাই। " শেষ করলেন রানি।

    শর্মিলা মাইতি
    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Rani Mukherjee

    পরবর্তী খবর