প্রচারের পঞ্চনামা, বক্স অফিসে লক্ষ্মীলাভের নতুন পন্থা

প্রচারের পঞ্চনামা, বক্স অফিসে লক্ষ্মীলাভের নতুন পন্থা

ছবি পাল্টাচ্ছে। ধরন, প্যাটার্ন সবই হচ্ছে ভিন্ন। বদলে যাওয়া ফর্ম্যাটের সঙ্গে মানানসই ভাবে পরিবর্তন হচ্ছে ছবির প্রচারের ধরন।

  • Share this:

Arunima Dey

#কলকাতা: ছবি পাল্টাচ্ছে। ধরন, প্যাটার্ন সবই হচ্ছে ভিন্ন। বদলে যাওয়া ফর্ম্যাটের সঙ্গে মানানসই ভাবে পরিবর্তন হচ্ছে ছবির প্রচারের ধরন। রানি মুখোপাধ্যায়, তাঁর আগামী ছবি মার্দানি টু-এর প্রমোশন করছেন যারা হটকে। ছবির বিষয়-বস্তু--জুভেনাইল ক্রাইম, এবং নারী নিরাপত্তা। রিয়্যালিটি শোয়ের প্ল্যাটফর্মে গিয়ে কিংবা শুধু সাক্ষাৎকার দিয়ে প্রচার নয়, রানি এবং তাঁর টিম ধরেছেন অন্য পথ। দেশের বিভিন্ন কলেজে ঘুরে-বেড়াচ্ছেন রানি। ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে নারী নিরাপত্তা নিয়ে কথাও বলছেন তিনি। সম্প্রতি কলকাতায় এসে সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজেও গিয়েছিলেন নায়িকা। পর পর দেশের বেশ কিছু কলেজে আরও যাবেন তিনি।

ছবির প্রচারের সঙ্গে সোশ্যাল সেন্টিমেন্ট ব্লেন্ড করা, আইডিয়া মন্দ নয়। এই অঙ্ক কষে বক্স অফিস সাফল্য মিলবে কি না, তা এখনই বলা সম্ভব নয়। কিন্তু ছবি মার্কেটিং-এর ধরন পাল্টাচ্ছে। সেই বদলে যাওয়া টেন্ডে-এর দু’একটা রেফারেন্স রইল।

vidya-bobby

এই লিস্টের প্রথম নাম মিস্টার পারফেকশনিস্ট অমির খানের। চিত্রনাট্য বাছাই থেকে প্রমোশন তাঁর ছবিতে সবকিছুর মধ্যেই থাকে আমিরি টাচ। ‘গজনি’ রিমেক ছবি হলেও আমির তাতে কোনও কমতি রাখেননি। এইট প্যাক অ্যাব থেকে তাঁর বিশেষ লুক, প্যাকেজটাই ছিল অন্য রকম। ছবি মুক্তির আগে একটি ব্র্যান্ডের সঙ্গে কোল্যাবোরেট করে আমির আয়োজন করেছিলেন এক বিশেষ ফ্যাশন শো-য়ের। যেখানে পুরুষ মডেলরা ramp-এ হেঁটেছিলেন আমিরের ‘গজনি’ লুকে। আবার ‘থ্রি ইডিয়টস’-এর সময় দর্শকের সঙ্গে লুকোচুরি খেলেছিলেন আমির। কোন শহরে তিনি ছবির প্রচারে যাবেন, সে বিষয় খোলাখুলি না বলে দিয়েছিলেন হিন্ট। এবং ক্লু দিতেন কোনও সেলিব্রিটি। সেই সংকেত থেকে বুঝতে হবে কোন শহরে আমির আসছেন। এই খেলার প্রথম ক্লু দিয়েছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। দু’টি ছবি দারুণ সফল।

Loading...

raone

আমিরের পরেই বলতে হয় অন্য এক খানের কথা। শাহরুখ খান। ‘রা ওয়ান’ ছবিটি বক্স অফিসে সফল হয়নি বটে। তবে বাজেটের দিক থেকে কোনও কার্পন্য করেননি কিং খান। ৫২ কোটি টাকা শুধু মাত্র ছবির মার্কেটিং-এর জন্য ব্যায় করেছিলেন তিনি। হিন্দি ছবির চরিত্র নিয়ে গেম লঞ্চ করা এবং প্লেস্টেশনের জন্য সেই গেম রিলিজ করা ‘রা ওয়ান’ দিয়েই শুরু হয়। জব হ্যারি মেট সেজল-এর মুক্তির সময় মোট ৭০০০ সেজল নামের মেয়ের সঙ্গে দেখা করেন শাহরুখ। কিং খান বরং প্রথাগত নিয়মই মেনে চলুন কারণ অন্য কিছু করে লক্ষ্মীলাভ তাঁর হচ্ছে না।

বিদ্যা বালনের স্ট্যাটিজি গুলো ছিল বেশ মজার। ‘কাহানি’র মুক্তির সময় প্রেক্ষাগৃহে সারপ্রাইজ ভিসিট দিতেন বিদ্যা। টিকিট কাউন্টারের ওপারে টিকিট বিলি করতে বসে পড়তেন তিনি। ছবি দেখতে আসা দর্শক, তাঁকে দেখে হট করে ঘাবরেই যেতেন। মুম্বইয়ের খার স্টেশনে ‘কাহানি’র লুকে বিদ্যা ঘুরে বেড়িছিলেন। বর হারিয়ে গিয়েছে বলে পেমপ্লেট বিলিও করেছিলেন। কেউ তাঁকে চিনতে পেরেছেন কেউ আবার অবলিলায় পাশ কাটিয়ে চলে গিয়েছেন। বেশি ক্রিয়েটিভ হতে গিয়ে বিদ্যা আবার গালমন্দও খেয়েছেন। ‘ববি জাসুসের’-এর প্রচারের জন্য বিদ্যা ভিক্ষারি সেজে বসেছিলেন হয়দরাবাদ স্টেশনের বাইরে। ভিক্ষা চাওয়ার জন্য এক মহিলা তাঁকে প্রচণ্ড কথা শোনান। কমেডি শেষে ট্র্যাজিডি-তে পরিবর্তন হয়।

প্রথা ভাঙাটাই প্রথা। পত্রিকা, টেলিভিশন, ডিজিটাল-এর কনটেন্ট বা কনসেপ্ট পাল্টাচ্ছে প্রতি নিয়ত। ছবির প্রমোশনেও নতুনত্ব না আনলে চলবে কেন। সোশ্যাল নেটওয়ার্ক-এর জেরে কমে এসেছে স্টারডম। তাই প্রচার করতে হবে মানুষের কাছাকাছি গিয়ে। কারণ দিনের শেষে কমার্স না থাকলে আর্টও বা থাকবে কী করে? ব্যালেন্স স্টাইক করাটাই আসল ব্যালেন্স।

First published: 05:04:57 PM Nov 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर