• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • শুধু পরিচালক নয়, ‘কলকাতা’ তার প্রেমিক হারাল : সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়

শুধু পরিচালক নয়, ‘কলকাতা’ তার প্রেমিক হারাল : সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়

Photo: Collected

Photo: Collected

  • Share this:

    #কলকাতা: প্রয়াত ভারতীয় চলচ্চিত্রের বিশিষ্ট পরিচালক মৃণাল সেন ৷ বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর ৷ রবিবার নিজের বাড়িতেই মৃণাল সেনের জীবনাবসান হয় ৷ বার্ধক্যজনিত রোগে অনেকদিন ধরেই ভুগছিলেন তিনি ৷ মৃণাল সেনের প্রয়াণে শোকহাত গোটা সিনেমহল ৷

    ছাত্র বয়স থেকেই মৃণাল সেনকে খুব কাছ থেকে পেয়েছিলেন চলচ্চিত্র বিশেষজ্ঞ ও লেখক সঞ্জয় মুখোপাধ্যায় ৷ মৃণাল সেনের প্রয়াণের খবর পেয়ে কিছুটা নস্ট্যালজিক হয়ে পড়লেন তিনি ৷ জানালেন,

    ‘মৃণাল সেনের চলে যাওয়ার খবরটা পেয়ে প্রথমেই যেটা মনে হয়েছে, সেটা হল, ‘কলকাতা’ বড় ক্ষতি হয়ে গেল ! মৃণাল সেনের চোখ দিয়েই তো এক অন্যরকম কলকাতা দেখেছিল মানুষ ৷ এক যুবকের দৌঁড়, অলি-গলি, রাজনৈতিক অস্থিরতা সবই তো তাঁর হাত দিয়েই ! সেই কলকাতা ৭১ কি ভোলার মতো ? আসলে ৭০ দশকের ভাঙনের মধ্যে দিয়েই আমরা আসল মৃণাল সেনকে দেখতে পাই ৷ একদিন প্রতিদিন ছবি তো নারীদের অস্তিত্বের এক জলজ্যান্ত দলিল ৷ মৃণাল সেন একজন সমকালীন পরিচালক, একজন নাগরির পরিচালক ৷ তাঁর ছবিতে একটা নতুন বাস্তব তৈরি হয় ৷ বাংলার ‘নবতরঙ্গ’ তো তাঁর হাতেই ! আমার মনে হয়, কলকাতা তাঁর প্রেমিক হারাল !’

    সঞ্জয় মুখোপাধ্যায় আরও জানালেন, ‘আমার মনে পড়ছে ১৯৭২ সাল ৷ তখন সবে ‘ইন্টারভিউ’ মুক্তি পেয়েছে ৷ যাদবপুরে পড়ার সুবাদে মৃণাল সেনের সান্নিধ্য পেয়েছিলাম৷ তাঁর বাড়িটাই একটা সময় আড্ডাখানা হয়ে দাঁড়িয়েছিল ৷ তখন তো আর এই ইন্টারনেট ছিল না ৷ মৃণাল সেন মানেই বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবের খবর, ভেনিস উৎসব খবর ৷ গোগ্রাসে গিলতাম তাঁর কথা ৷

    যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা কারণে বার বার যাওয়া আসা করতেন মৃণাল সেন ৷ সে কথা বলতে গিয়েই সঞ্জয় মুখোপাধ্যায় জানালেন, ‘আমার এখনও মনে হচ্ছে, ৭০ দশকে যাদবপুরে ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যান্টিনে টুলের ওপর দাঁড়িয়ে বক্তৃতা দিয়েছিলেন তিনি ৷ ভাবা যায়, এত বড় একজন মানুষ ৷ এমনকী, বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবের প্রধান কর্তাকে তিনি নিয়ে এসেছিলেন যাদবপুরে ৷ ছাত্রদের সেকি উল্লাস ! আজ সবই একে একে মনে পড়ছে ৷’

    First published: