বাড়ি থেকে শ্যুটিং করেই চলছে সিরিয়াল ! আপত্তি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি ফেডারেশনের

photo source collected

বিকল্প ব্যবস্থার আবেদন জানিয়ে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখল তাঁদের সংগঠন ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ান অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া।

  • Share this:

    #কলকাতা:  করোনাকে আটকাতে রাজ্যে কার্যত লকডাউন চলছে। বাস, ট্রেন, ট্রাম, সিনেমাহল থেকে শুরু করে অফিস-কাচারি সব বন্ধ। বাড়ি থেকেই চলছে বেশিরভাগ অফিসের কাজ। কিন্তু অফিসের কাজ বাড়ি থেকে হলেও, শ্যুটিং করা তো বেজায় মুশকিলের কাজ। লকডাউনের ঘোষণার পর করোনার কথা মাথায় রেখে শ্যুটিং বন্ধ রেখেছিল টলিপাড়া। বাংলা সিরিয়াল থেকে সিনেমার শ্যুটিং বন্ধ রাখা হয়েছে। এই অবস্থায় আগে থেকে শ্যুট করে রাখা সিরিয়ালের এপিসোড দিয়ে কিছুদিন চালানোর পর অন্য ভাবনা ভাবতে হয় ধারাবাহিক পরিচালক থেক শুরু করে চ্যানেলকেও। তাঁরা স্টুডিও পাড়াতেও ওয়ার্ক ফর্ম হোম চালু করেন। বিষয়টা এরকম, অভিনেতারা তাঁদের নিজেদের অংশটুকু বাড়ি থেকে শ্যুট করে পাঠাচ্ছেন। বদলে দেওয়া হচ্ছে স্ক্রিপ্ট। এবার এই শ্যুটের সঙ্গে পুরনো পর্ব জুড়ে এডিট করে তা দেখানো হচ্ছে। এভাবে কাজ চালানোতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্টুডিওপাড়ার টেকনিশিয়ানসরা।

    বাড়ি থেকে শ্যুটিং করে পাঠাতে সবকলের অসুবিধা হচ্ছে। কারণ প্রয়োজনীয় মেক-আপ থেকে শ্যুটিংয়ের উপযুক্ত ক্যামেরা নেই তাঁদের কাছে। অন্যদিকে টেকশিয়ানসদের আর কোনও দরকারই থাকছে না। রোজ কাজ করলে তবেই টাকা পান টেকনিশিয়ানসরা। এভাবে ওয়ার্ক ফর্ম হোম কাজের ধারা চালু হলে, সিরিয়াল এগিয়ে যাবে টেকনিশিয়ানসদের ছাড়াই। তাঁদের হাতে কাজ নেই, টাকা নেই। তাই তাঁরা আজ চিঠি লেখেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

    বিকল্প ব্যবস্থার আবেদন জানিয়ে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখল তাঁদের সংগঠন ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ান অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া। ফেডারেশনের সদস্যদের দাবি, এইভাবে শুটিং করার জেরে ধারাবাহিকের কাজ এগিয়ে চলেছে কিন্তু টেকনিশিয়ানদের কাজ বন্ধ, তাই তাঁরা টাকাও পাচ্ছেন না। এটা তাঁদের প্রতি চরম অবহেলা। শুটিংয়ের তীব্র বিরোধিতা করা হচ্ছে। যদিও চ্যানেল কর্তৃপক্ষের মত, বাড়ি থেকে শুটিং করা যাবে না, চুক্তিতে এমন কোথাও বলা নেই। তাই এই কাজ চলতেই পারে। এতে ধারাবাহিক চলবে। কাজ আটকাবে না। কিন্তু এই চিঠির পর মুখ্যমন্ত্রী কি সিদ্ধান্ত নেন, তার ওপরেই নির্ভর করছে টেকনিশিয়ানসদের ভাগ্য। গত বছরেও করোনা শুরু হওয়ার পর এমনই সমস্যার সম্মুখিন হয়েছিলেন তাঁরা। আবার সেই এক সময় ফিরছে।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: