এক টুইটেই মুশকিল আসান, দেবের সাহায্যে দৃষ্টি ফিরে পেল চন্দ্রকোণার ছাত্র

এক টুইটেই মুশকিল আসান, দেবের সাহায্যে দৃষ্টি ফিরে পেল চন্দ্রকোণার ছাত্র
এক টুইটেই মুশকিল আসান। সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সাবির খানের পাশে দাঁড়ালেন ঘাটালের সাংসদ দেব।

এক টুইটেই মুশকিল আসান। সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সাবির খানের পাশে দাঁড়ালেন ঘাটালের সাংসদ দেব।

  • Share this:

    #কলকাতা: এক টুইটেই মুশকিল আসান। সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সাবির খানের পাশে দাঁড়ালেন ঘাটালের সাংসদ দেব। কলকাতায় অস্ত্রোপচারের পর ডান চোখে দৃষ্টি ফিরে পেল সাবির। চন্দ্রকোণার কাশণ্ড গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের কাছে অভিনেতা-সাংসদ আক্ষরিক অর্থেই দেব-দূত।চন্দ্রকোণার কাশণ্ড গ্রামের বাসিন্দা আজিয়া রহমান খান পেশায় জনমজুর। দিন আনি দিন খাই পরিবার।  দুবেলা দু’মুঠো ভাত জোটে না। একমাত্র ছেলে সাবির খান। কাশণ্ড মাদ্রাসা স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। বেশ কয়েক বছর ধরেই ডান চোখের দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে আসছিল সাবিরের। শিরা শুকিয়ে, ধীরে ধীরে অন্ধকার নেমে আসছিল জীবনে।  চিকিৎসকরা বলেছিলেন, অপারেশন ছাড়া উপায় নেই। কিন্তু এত টাকা কোথায় ?  সেই সময়ে পাশে এসে দাঁড়ান প্রতিবেশী  সাহেব মল্লিক। সাবিরের চিকিৎসার জন্য সাহায্য চেয়ে টুইটারে ছবি পোস্ট করেন। সেই টুইট চোখে পড়ে ঘাটালের সাংসদ দেবের।এরপরের দিনগুলো সাবিরের কাছে যেন রূপকথা। গ্রামে নিজের প্রতিনিধিকে পাঠিয়ে , সাবিরকে কলকাতায় নিয়ে যান দেব। ডান চোখে অস্ত্রোপচার হয়।


    সফল অস্ত্রোপচার পর এখন চোখে পরিষ্কার দেখতে পাচ্ছে সাবির।দেব-দূত' সাংসদের ভূমিকায় খুশি কাশণ্ড গ্রাম। দেবকে একবার চোখের দেখা দেখতে চান সাবিরের বাবা।সিনেমার নায়ক আজ বাস্তব জীবনের হিরো। সপ্তম শ্রেণির ছাত্রের কাছে রিল-রিয়েল মিলেমিশে একাকার।

    Published by:Akash Misra
    First published: