ষষ্ঠ দিনে পড়ল সুশান্ত মৃত্যু তদন্ত, কোন পথে CBI-র গতিবিধি, জানুন

সুশান্তের পরিবারের আইনজীবী অভিযোগ করেন, সুশান্তের কোনও বিমা করানো ছিল না৷ তাঁর অভিযোগ, কোনও কোনও মহল থেকে প্রচার করা হচ্ছে যে বিমার টাকা পাওয়ার জন্যই সুশান্তের বাবা ও বোনেরা তাঁর মৃত্যুকে খুন বলে প্রমাণ করার দাবি করছেন৷ কারণ সুশান্ত আত্মহত্যা করে থাকলে তাঁরা সেই টাকা পাবেন না৷ এই অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যে বলে দাবি করেছেন বিকাশ সিং৷

কীভাবে ময়না তদন্তের দিন মর্গে রিয়া প্রবেশ করলেন, এই প্রশ্নের উত্তর চেয়ে নোটিস পাঠানো হয়েছে।

  • Share this:

#মুম্বই: সুশান্ত সিং মৃত্যু মামলা তদন্তে ষষ্ঠ দিনে একই রকম সক্রিয় সিবিআই। আবার জেরা করা হচ্ছে সুশান্তের ফ্ল্যাটমেট সিদ্ধার্থ পিঠানি, স্টাফ দীপেশ সওয়ান্ত ও রাধুনি নীরাজ সিংকে। অন্যদিকে কুপার হাসপাতালকে উত্তর চেয়ে নোটিস পাঠালো হিউম্যান রাইটস কমিশন। কীভাবে ময়না তদন্তের দিন মর্গে রিয়া প্রবেশ করলেন, এই প্রশ্নের উত্তর চেয়ে নোটিস পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি মাদক কিনতেন রিয়া এমনটাই জানিয়েছে ইডি। এই প্রসঙ্গে রিয়ার আইনজীবীর বক্তব্য তিনি কখনও মাদক আসক্ত ছিলেন না। ব্লাড টেস্ট করতে রাজি রিয়া।

অন্যদিকে ভাইয়ের অস্বাভাবিক মৃত্যু৷ তারপর সেই মৃত্যু নিয়ে জলঘোলা৷ শোকে কাতর সুশান্তের পরিবারের কাছে একের পর এক এমন খবর খুবই বেদনাদায়ক হয়ে উঠছে৷ সুশান্তের বান্ধবী টাকা লোপাট করেছেন, এই অভিযোগে আগেই মামলা করেছিলেন সুশান্তের বাবা৷ এবার উঠে এল রিয়ার সঙ্গে ড্রাগ সরবরাহকারীদের চ্যাট৷ যা থেকে জল্পনা যে, রিয়া ড্রাগ সেবন করতেন এবং সেই জালে পড়েছিলেন সুশান্তও৷ যা নিয়ে শুরু হয়েছে চুড়ান্ত টানাপোড়েন৷ ইতিমধ্যেই সেই চ্যাট সামনে এসেছে যেখানে দেখা গিয়েছে যে একাধিকবার সুশান্তের বান্ধবী রিয়া বিভিন্ন ড্রাগের ব্যাপারে জানতে চেয়েছেন৷ রিয়ার কালো ছায়া তাঁদের ভাইয়ের জীবনে পড়েছিল৷ সুশান্তের জীবন শেষ করার পিছনে রিয়ার হাত দেখেছে রাজপুত পরিবার৷ এবার সেই সন্দেহে জুড়ল এই ড্রাগের কড়া ডোজ! যা জানতে পেরে সুশান্তের দিদি শ্বেতা বললেন যে রিয়ার এধরণের কার্যকলাপ দন্ডনীয় অপরাধ৷ এর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিক সিবিআই এই আর্জিই তিনি রাখলেন৷

আরও পড়ুন শুধু টাক নয়, ড্রাগসের নেশা ও কেনার তথ্য রিয়ার বিরুদ্ধে! তাহলে কি সুশান্তকেও করেছিলেন নেশায় বশ

মাদক বিষয়ে সুশান্ত-প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে নিয়মিত কথাবার্তা চালাতেন। মঙ্গলবারই সেই তথ্য় সামনে আসে। এবার সেই জয়া শাকে ডেকে পাঠাল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। অনেকেই মনে করছে, মাদক নিয়ে তাঁর এবং রিয়ার কথোপকথন, সুশান্ত মৃত্যু তদন্তে নতুন দিক খুলবে।

Published by:Pooja Basu
First published: