• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • পিপিই কিট পরেই চলছে বলিউডের শ্যুটিং ! সামনে এল কমেডি রানি ভারতী সিংয়ের ভিডিও...

পিপিই কিট পরেই চলছে বলিউডের শ্যুটিং ! সামনে এল কমেডি রানি ভারতী সিংয়ের ভিডিও...

photo source Instagram

photo source Instagram

ট্যালেন্ট থাকলে মানুষ তাঁর সঠিক জায়গা পাবেই। ভারতীও তেমনই একজন যিনি নিজের হাসানোর ক্ষমতায় মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। বলিউডের বড় বড় টিভি শো, অ্যাওয়ার্ড ফাংশন সবেতেই ডাক পড়ে তাঁর।

  • Share this:

    #মুম্বই: এ বছরের শুরুতেই দেশে হানা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস। এই মারণ ভাইরাসের হাত থেকে মানুষকে বাঁচাতে, দেশজুড়ে শুরু হয় লকডাউন। বন্ধ হয়ে যায় স্কুল, কলেজ, সিনেমাহল, শ্যুটিং, শপিংমল থেকে শুরু করে প্রায় সব কিছুই। মানুষের সমাগম এড়াতেই এসব বন্ধ করা হয়। কারণ এই ভাইরাস ছোঁয়াচে। প্রায় তিন মাস পর কিছুটা হালকা করা হয় লকডাউন। কারণ একে বারে সব কিছু বন্ধ করে রাখলেও যে চলছে না। কাজ হারাচ্ছে মানুষ। অর্থনৈতিক চাপ বাড়ছে। এসব কথা মাথায় রেখেই সামান্য ছাড় দেওয়া হয়। এই ছাড়ের আওতায় শুট্যিংও আসে।

    টলিউডে এবং বলিউডে শ্যুটিং শুরু হয়েছে। তবে এই শ্যুটিংয়ে মানতে হচ্ছে করোনা বিষয়ক সব রকম সর্তকতা। হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক এসব কিছু তো থাকছেই। এমনকি কেউ কারও পোশাক বা মেক আপ কিডও ব্যবহার করতে পারবেন না। সকলকে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখেই শ্যুটিং করতে হবে।

    বলিউডের টিভি শো থেকে উঠে এসেছেন ভারতী সিং। কমেডি চরিত্রে, নিজেকে নিয়ে মজা করতে তাঁর চেয়ে ভাল কেউ পারেন না। চেহাড়া দিয়ে যে আসলে কিছুই হয় না, দরকার হয় দক্ষতার। ট্যালেন্ট থাকলে মানুষ তাঁর সঠিক জায়গা পাবেই। ভারতীও তেমনই একজন যিনি নিজের হাসানোর ক্ষমতায় মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। বলিউডের বড় বড় টিভি শো, অ্যাওয়ার্ড ফাংশন সবেতেই ডাক পড়ে তাঁর। অনয়াসে ভারতী পারেন কপিল শর্মা থেকে রণবীর সিংকে নিয়ে মজা করতে।

    সেই ভারতীকেই দেখা গেল শ্যুটিং ফ্লোরে। একটি শোয়ের জন্য ফটোশ্যুট করছেন তিনি। তবে এই পর্যন্ত ঠিক আছে। এর পর যা দেখা গেল, তা শুধু করোনার জন্যই সম্ভব। পিপিই কিট পরে তিন জন দাঁড়িয়ে রয়েছেন তাঁর সঙ্গে। হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে আছেন তাঁরা। একটা করে টেক শেষ হচ্ছে আর সব কিছু ভাল করে স্যানিটাইজ করছেন তাঁরা। এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হতেই ভাইরাল হয়।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: