মিঠুন এতগুলো দল পরিবর্তন করে নিজের রাজনৈতিক কেরিয়ার ঘেঁটে ফেলেছেন: চিরঞ্জিত

মিঠুন এতগুলো দল পরিবর্তন করে নিজের রাজনৈতিক কেরিয়ার ঘেঁটে ফেলেছেন: চিরঞ্জিত

Trinamool MLA Chiranjeet Chakraborty slams Mithun Chakraborty

মিঠুন শুধুমাত্র অভিনেতা। এতগুলো দল পরিবর্তন করে নিজের রাজনৈতিক কেরিয়ার ঘেঁটে ফেলেছেন বলেই মত বারাসতের তৃণমূল প্রার্থী অভিনেতা চিরঞ্জিতের।

  • Share this:

#বারাসত: মিঠুন শুধুমাত্র অভিনেতা। এতগুলো দল পরিবর্তন করে নিজের রাজনৈতিক কেরিয়ার ঘেঁটে ফেলেছেন বলেই মত বারাসতের তৃণমূল প্রার্থী অভিনেতা চিরঞ্জিতের। তাঁর মতে মিঠুনের মতো স্ট্যাচারের মানুষ ভোটে দাঁড়াবে না বরং বিজেপির হয়ে ভোট প্রচার করবে৷

বারাসতের তৃণমূল প্রার্থী স্বীকার করে নিয়েছেন যে, মিঠুন প্রতিপক্ষের শিবির যোগ দেওয়ায় তাঁরা একটু ব্যাকফুটে।তবে মিঠুন ব্রিগ্রেডে যে বক্তব্য রেখেছেন তা তাঁকে হতাশ করেছে। বরং নকশাল আমল থেকে চেনা  মিঠুন রাজনৈতিক বক্তব্য ভালই রাখতে জানেন বলে মত চিরঞ্জিতের।চিরঞ্জিতের দাবি, তিনি মিঠুনের কাছে ব্রিগ্রেডে আরও বেশি রাজনৈতিক বক্তব্য আশা করেছিলেন।  বাধ্যবাধকতার কারনেই মিঠুনকে হয়তো  বিজেপিতে যেতে হয়েছে বলেও মত চিরঞ্জিতের।

বৃহস্পতিবার বারাসতে নিজের নির্বচনী কার্যালয় উদ্বোধন করতে এসে এভাবেই মহাগুরুকে মূল্যায়ন 'প্রতীক' ও 'বেজন্মা'র নায়ক চিরঞ্জিতের।বারাসাত বিধানসভা ক্ষেত্রের তৃণমূল প্রার্থী বারাসতে প্রচার শুরু করে দিয়েছেন। নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর ওপরে হামলার অভিযোগ সহ অনেক কথাই বলেন চিরঞ্জিত। চিত্র তারকাদের অভিনয় জগতে আসা নিয়ে তাঁর বিশ্লেষণ জোগাতেই পারে কিছু বিতর্কের ইন্ধন।

চিরঞ্জিত জানান,মুখ্যমন্ত্রী এতদিন এত প্রচার করেছেন, কোথাও কিছু হয়নি ৷ মুখ্যমন্ত্রী যখন ষড়যন্ত্রের কথা বলছেন তখন তা অহেতুক হতে পারে না। চিরঞ্জিত মনে করেন কোথাও একটা স্কিমিং আছে৷ কারণ উচ্চ পর্যায়ের পুলিশ আধিকারিকদের সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে । সমগ্র ঘটনার তদন্ত হওয়া উচিত বলেও মনে করেন চিরঞ্জিত।

বারাসাত বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থীর নাম ঘোষণা হয়নি এখনও।এদিন চিরঞ্জিত ঘোষণা করে দিলেন বিজেপি প্রতিদ্বন্দ্বীর নাম৷ তিনি বললেন, সনাতন বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর বিরুদ্ধে বিজেপির হয়ে দাঁড়াচ্ছেন বলে তিনি জেনেছেন। সব কিছু ছাপিয়ে চিত্রতারকা চিরঞ্জিত রূপালি পর্দা ছেড়ে  রাজনীতির আঙিনায় আসা নিয়ে এক নতুন তত্ব হাজির করেন এদিন ।অভিনেতা বললেন, তিনি রাজনীতি থেকে নিজের অর্থিক  দিককে মজবুত করতে আসেননি। কিন্তু এখন যারা প্রার্থী হচ্ছেন বা রাজনীতিতে আসছেন তাঁদের বিষয় সম্পূর্ণ অন্য। বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ সেভাবে না মেলায় অনেকেই দ্বিতীয় পথ হিসেবে রাজনীতিকে বেছে নিচ্ছেন। করোনা আবহে রুগ্ন ফিল্ম জগতে সেভাবে কাজ না মেলায় অনেকে বিকল্প অর্থকরী দিক হিসেবেও ভাবছেন রাজনীতিকে।তাঁর মত ফিল্ম ক্যারিয়র ছেড়ে পলিট্যিক্সে কেরিয়ার করতে টলিপাড়ার লোকজন ভিড় বাড়াচ্ছে রাজনীতিতে৷

(রাজর্ষি রায়)

Published by:Subhapam Saha
First published:

লেটেস্ট খবর