• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • BOLLYWOOD SUSHMITA SENS DAUGHTER RENEE REVEALS WHY SHE CHOSE TO NOT KNOW HER BIOLOGICAL PARENTS SAYS SHE WANTS TO ADOPT SR

সন্তান দত্তক নেবেন সুস্মিতার বড় মেয়ে রেনেও! তবে নিজের বাবা-মা’কে খুঁজবেন না

‘‘দত্তক আর জন্মদাত্রী...এই দু’টোর মধ্যে কোনও পার্থক্য আমি বুঝি না । আমার কাছে এ দু’টো সমার্থক । সমাজ এদের আলাদা নাম দিয়েছে,’’ বললেন রেনে ।

‘‘দত্তক আর জন্মদাত্রী...এই দু’টোর মধ্যে কোনও পার্থক্য আমি বুঝি না । আমার কাছে এ দু’টো সমার্থক । সমাজ এদের আলাদা নাম দিয়েছে,’’ বললেন রেনে ।

  • Share this:

    #মুম্বই: বয়স তাঁর যাই হোক না কেন, এখনও যেন সেই উনিশের তরুণীই তিনি। শুধু শরীরে নয়, মনের বয়সটাও যেন আটকে রেখেছেন বিশ্ব সুন্দরী, জনপ্রিয় নায়িকা, দুই কন্যাসন্তানের গর্বিত সিঙ্গল মা সুস্মিতা সেন । একাধারে স্বাধীন, স্বাবলম্বী নায়িকা, অন্য দিকে, চূড়ান্ত ব্যক্তিত্বময়ী নারী । বিয়ে না করেও দুই কন্যা সন্তানের মা তিনি । একাধিক প্রেমের গুঞ্জন, ফিসফাস, সব দূরে সরিয়ে এখন তিনি নতুন সম্পর্কে মশগুল । বয়ফ্রেন্ড রোহমান শলের বয়স সবে ২৯ । আর তিনি ৪৪ । কিন্তু লোকের ব্যঙ্গ, কটূক্তিকে থোড়াই কেয়ার করেন বঙ্গললনা ।

    সুস্মিতার বড় মেয়ে রেনে । ছোট মেয়ে আলিশা । দু’জনেই দত্তক সন্তান । মাত্র ২৪ বছর বয়সে ২০০০ সালে বড় মেয়ে রেনে’কে দত্তক নিয়েছিলেন সুস্মিতা । এতটুকু বয়সে এত বড় একটা সিদ্ধান্ত নেওযা কিন্তু মুখের কথা নয় । কিন্তু তিনিই পারেন, তাই তিনি করে দেখিয়ে দিয়েছিলেন । এমন ব্যক্তিত্বময়ী মায়ের মেয়ে যে তাঁর ছায়াই অনুসরণ করবে সে আর নতুন কথা কী । কৈশোর পেরিয়ে সদ্য তারুণ্যের চৌকাঠে পা দেওয়া রেনের মুখেও তাই মায়েরই প্রতিবিম্ব ।

    View this post on Instagram

    A post shared by Renée Sen (@reneesen47)

    রেনে এখন ২১ বছরের সুন্দরী তরুণী । সম্প্রতি পা রেখেছেন বলিউডে । তবে বলি-ডেবিউয়ের ক্ষেত্রেও রেনে সকলের চেয়ে আাদা । যেখানে বিশাল ব্যানারে, বিরাট চমকের সঙ্গে স্টার কিডদের লঞ্চ করা হয়, সেখানে রেনে একেবারে ব্যতিক্রমী । বলিপাড়ায় তাঁর যাত্রা শুরু হল ‘সুত্তাবাজ’ নামের একটি শর্ট ফিল্ম দিয়ে ।

    এই ছবি মুক্তির পর একটি সাক্ষাৎকারে রেনে’কে প্রশ্ন করা হয়েছিল তাঁর জন্মবৃত্তান্ত, প্রকৃত বাবা-মায়ের কথা । সুস্মিতা মেয়েকে আগেই তাঁকে দত্তক নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন । শুধু তাই নয়, রেনের ১৮ বছর হওযার পর তাঁকে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছিলেন, সে চাইলে তাঁর প্রকৃত বাবা-মা’কে খুঁজে নিতে পারে । কিন্তু সে পথে হাঁটেননি রেনে ।

    তাঁর বক্তব্য, ‘‘মা আমার কাছে সব । মা’কে ছাড়া কিছুই ভাবতে পারি না আমি । ভালবাসাকে সবচেয়ে পবিত্র আধারে দেখেছি আমি । আর কিছু আমার দরকার নেই । দত্তক আর জন্মদাত্রী...এই দু’টোর মধ্যে কোনও পার্থক্য আমি বুঝি না । আমার কাছে এ দু’টো সমার্থক । সমাজ এদের আলাদা নাম দিয়েছে ।’’

    View this post on Instagram

    A post shared by Renée Sen (@reneesen47)

    পাশাপাশি রেনে এও বলেন, ‘‘আমি বুঝতে পারি নিশ্চয়ই আমার প্রকৃত বাবা-মায়ের জীবনে কোনও একটা সমস্যা ছিল । কিন্তু সেটা অতীত । এখন ওটাই আমার পরিবার । এটাই আমি । অনেকেই যাঁরা নিজেদের প্রকৃত বাবা-মা’কে খোঁজার চেষ্টা করেন, তাঁদের অসম্মান করছি না আমি । তাঁরা সেটা করে খুশি তাকে । কিন্তু আমি এই ভাবেই খুশি আছি ।’’

    শেষ পর্যন্ত দত্তক নেওয়ার প্রসঙ্গ উঠলে রেনে বলেন, ‘‘অবশ্যই কোনও না কোনওদিন আমিও দত্তক নেব । কারণ অ্যাডপ্ট আর বায়োলজিকালের মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই আমার কাছে ।’’

    Published by:Simli Raha
    First published: