corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘অন্য গলার স্বর শুনতে শুরু করেছিলেন সুশান্ত, মৃত্যু ভয়ে দূরে সরে যান রিয়া’

‘অন্য গলার স্বর শুনতে শুরু করেছিলেন সুশান্ত, মৃত্যু ভয়ে দূরে সরে যান রিয়া’

‘‘ও রিয়াকে বলল, আমি অনুরাগ কাশ্যপের ছবির প্রস্তাব ফিরিয়েছি। ও আমাকে মেরে ফেলবে। তারপর থেকেই রিয়া সুশান্তের সঙ্গে থাকতে ভয় পেতেন।’’

  • Share this:

#মুম্বই: কারণ খুঁজছে সবাই । কেন, কেন এমন তরতাজা প্রতিভাময় এক প্রাণকে এ ভাবে বিদায় নিতে হল পৃথিবী থেকে? সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর দু’দিন পরেও থামছে না সেই তরজা । উঠে আসছে অনেকগুলো কারণ... বলিউডের হৃদয়হীনতা, নেপোটিজমের বাড়বাড়ন্ত, এলিট ক্লাসের উন্নাসিকতা এসব তো আছেই । তবে সবচেয়ে বেশি চর্চা হচ্ছে মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে । সুশান্তের ঘর থেকে কোনও স্যুইসাইড নোট উদ্ধার না হলেও পাওয়া গিয়েছিল চিকিৎসকের প্রেসকিপসন । গত পাঁচ মাস ধরে গভীর ডিপ্রেসনে ভুগছিলেন নায়ক । তাঁর চিকিৎসাও চলছিল । কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে নাকি ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন তিনি । সুশান্তের এই অসুস্থতার খবর জানতেন দিদি, তিনি ভাইয়ের কাছে এসে কিছুদিন ছিলেনও । কিন্তু শেষরক্ষা হল না তাতেও ।

তবে এই মুহূর্তে লেখিকা সুহরিতা সেনগুপ্তের দেওয়া কিছু তথ্য সবচেয়ে আলোচিত হচ্ছে । সুহরিতা আবার রিয়া অভিনীত ‘জলেবি’ সিনেমার কো-রাইটারও । 'ন্যাশনাল হেরাল্ড'-এ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে সুহরিতা জানিয়েছেন, মহেশ ভাটই রিয়া’কে সুশান্তের থেকে দূরে সরে আসার পরামর্শ দিয়েছিলেন । যেন পরভিন ববি’র ঘটনার প্রতিচ্ছবি সুশান্তের মধ্যে দেখতে পেয়েছিলেন তিনি ।

সুশান্তের সঙ্গে সুহরিতার আলাপ হয়েছিল মহেশ ভাটের অফিসে । ‘সড়ক ২’-তে কাজ করার বিষয়ে কথা বলতে গিয়েছিলেন সুশান্ত । সেই সময়েই সুশান্তের মনের এক অন্ধকার দিক নজরে পড়ে ভাট সাহেবের । পরভিন ববিও শেষ দিকে এমনই মানসিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন । মহেশের সঙ্গে তখন তাঁর দুরন্ত প্রেম । তাও মহেশকে ছেড়ে আসতে হয়েছিল নায়িকাকে । এরপরেই সেই রহস্যজনক মৃত্যু । পচাগলা দেহ উদ্ধার হয়েছিল পরভিনের ।

এই ঘটনার সঙ্গে খুব ভালভাবেই পরিচিত মহেশ ভাট । তিনি রিয়াকে বলেন সুশান্তের থেকে সরে আসতে । সুশান্ত ততদিনে ধীরে ধীরে গভীর অবসাদে চলে যাচ্ছেন । মহেশ জানতেন চিকিৎসা ছাড়া আর উপায় নেই । কিন্তু সুশান্ত ওষুধও খেতেন না নিয়ম করে । রিয়াও এক সময় ভয় পেতে শুরু করেন সুশান্ত’কে । কারণ সুশান্ত অন্য গলার স্বর শুনতে শুরু করেছিলেন । ও ভাবত, ওকে কেউ মেরে ফেলতে চাইছে । নিজের মধ্যেই গুটিয়ে যাচ্ছিলেন সুশান্ত, এমনটাই জানিয়েছেন সুহরিতা ।

লেখিকা আরও জানান, ‘‘রিয়া আর সুশান্ত একসঙ্গে বসে একবার অনুরাগ কাশ্যপের সিনেমা দেখছিলেন । ও রিয়াকে বলল, আমি অনুরাগ কাশ্যপের ছবির প্রস্তাব ফিরিয়েছি। ও আমাকে মেরে ফেলবে। তারপর থেকেই রিয়া সুশান্তের সঙ্গে থাকতে ভয় পেত।’’

রিয়া অনেক চেষ্টা করেছিলেন । কিন্তু ওর আর কিছু করার ছিল না । তাই সুশান্তের দিদি মুম্বইয়ে এসে তাঁর ভাইয়ের দেখাশোনা করুক, এমনটাই চেয়েছিলেন রিয়া । কিন্তু সুশান্ত কারও সঙ্গে কথা বলতে চাইতেন না । আস্তে আস্তে সকলের সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন করে ফেলছিলেন । শেষ মাসে সুশান্ত নিজেকে, নিজের তৈরি কারাগারে বন্দি করে ফেলেন ।

Published by: Simli Raha
First published: June 16, 2020, 10:36 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर