Surekha Sikri Death: অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রির প্রয়াণে শোকস্তব্ধ মমতা-কেজরিওয়াল, ট্যুইটারে বার্তা

অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রির প্রয়াণে শোকস্তব্ধ মমতা-কেজরিওয়াল, ট্যুইটারে বার্তা

শুক্রবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বর্ষীয়াণ ও সুদক্ষ অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি (Surekha Sikri Death) প্রয়াত হয়েছেন৷

  • Share this:

    #মুম্বই: শুক্রবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বর্ষীয়াণ ও সুদক্ষ অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি (Surekha Sikri Death) প্রয়াত হয়েছেন৷ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৭৫ বছর বয়সে তিনি মারা গেলেন৷ প্রিয় অভিনেত্রীর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরাও। এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের মনের কথা শেয়ার করে সুরেখা সিক্রির পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ শিশোদিয়ারা। ২০২০ তে সুরেখা সিক্রির ব্রেন স্ট্রোক হয়েছিল৷ তারপর থেকে কিছুদিন অসুস্থ ছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর।

    সুরেখা সিক্রির প্রয়াণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ট্যুইটে লিখেছেন, 'প্রবীণ অভিনেত্রীর সুরেখা সিক্রির প্রয়াণে শোকস্তব্ধ। বহুমুখী ও অসামান্য অভিনয়ের জন্য তিনি জনপ্রিয় ছিলেন। তাঁর পরিবার ও ভক্তদের সমবেদনা জানাই।' অন্যদিকে, সুরেখা সিক্রির একাধিক ছবির কোলাজ শেয়ার করে ট্যুইট করেছেন মণীশ শিশোদিয়া এবং অরবিন্দ কেজরিওয়াল। শিশোদিয়া ট্যুইটে লিখেছেন, 'খুব কম অভিনেতাই এতটা বহুমুখী প্রতিভাধর হন। তিনি একজন প্রতিষ্ঠান স্বরূপ। নতুন অভিনেতাদের তাঁর কাজ দেখা উচিত।' এরই সঙ্গে রেস্ট ইন পিস লিখেছেন তিনি।

    অরবিন্দ কেজরিওয়াল মণীশ শিশোদিয়ার ট্যুইটি রি-ট্যুইট করেছেন। তাঁর সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন, 'সুরেখা সিক্রিজির প্রয়াণে গভীর সমবেদনা জানাই। তাঁর আত্মাকে ঈশ্বর শান্তি দিক।' ২০২০ সালে ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন অভিনেত্রী। তাঁর ম্যানেজার এদিন জানিয়েছেন, 'তিনবারের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি (Surekha Sikri) আজ সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন৷ তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর৷ দ্বিতীয় ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর বিভিন্ন অসুবিধার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন৷ মৃত্যুর সময় তাঁর পাশে তাঁর পরিবার ও সেবাকর্মীরা ছিল৷ তাঁর মৃত্যুর এই সময়ে পরিবার নিজেদের প্রাইভেসি বজায় রাখার আবেদন৷ ওম সাঁই রাম৷'

    ১৯৭৮ সালে কিস্সা কুর্সি কা (Kissa Kursi Ka) তাঁর আত্মপ্রকাশের ছবি৷ তিনবার তিনি সেরা সহ অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন৷ ১৯৮৮ তে তামাস ( Tamas), মাম্মো (Mammo) ১৯৯৫ তে, এবং ২০১৮ তে বাধাই হো (Badhaai Ho) -জন্য৷ তিনি রূপোলি পর্দা ছাড়া ছোট পর্দাতেও অভিনয় করেছেন৷ তাঁর অভিনয় করা জনপ্রিয় ডেইলি সোপ হল বালিকা বধূ (Balika Vadhu)৷ এটা তাঁর কেরিয়ারের কামব্যাক হিসেবে চিহ্নিত রয়েছে৷

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: