'আমার বিয়ে দিয়ে দিন প্লিজ'! ভক্তের আবদারে কী করলেন সোনু সুদ

'আমার বিয়ে দিয়ে দিন প্লিজ'! ভক্তের আবদারে কী করলেন সোনু সুদ

'আমার বিয়ে দিয়ে দিন প্লিজ'! ভক্তের অনুরোধে কী বললেন সোনু সুদ

কখনও ওষুধের বিল মিটিয়ে দেওয়া বা কখনও স্কুল কলেজের ফি দেওয়া অথবা বাড়ি ভাড়া দিয়ে দেওয়া সহ নানা রকমের অনুরোধ আসে সোনুর কাছে। তবে এর পাশাপাশি কিছু অদ্ভুত রকমের অনুরোধও আসে তাঁর কাছে।

  • Share this:

    #মুম্বই: বিতর্ক তৈরি না করেই বার বার খবরের শিরোনামে উঠে আসেন অভিনেতা সোনু সুদ। লকডাউনের সময়ে মানুষের ত্রাতার ভূমিকায় কাজ করেছেন তিনি। এমনকি তার পরেও মানুষের জন্য কাজ করা থামাননি তিনি। তবে লোকহিতকর কাজ করার পাশাপাশি তাঁর সেন্স অফ হিউমর বা রসবোধেরও ভক্ত বহু মানুষ। কারণ তাঁর কাছে নানা লোআরকে নানা রকমের অনুরোধ নিয়ে আসেন। প্রত্যেককেই যথাযথ উত্তর দেন অভিনেতা।

    কখনও ওষুধের বিল মিটিয়ে দেওয়া বা কখনও স্কুল কলেজের ফি দেওয়া অথবা বাড়ি ভাড়া দিয়ে দেওয়া সহ নানা রকমের অনুরোধ আসে সোনুর কাছে। তবে এর পাশাপাশি কিছু অদ্ভুত রকমের অনুরোধও আসে তাঁর কাছে। কেউ কেউ রসিকতা করতেও এই ধরনের মেসেজ পাঠান অভিনেতাকে।

    সোমবার, এক ভক্ত তাঁরে বিয়ে করিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করেন। তাঁর উত্তরেও সোনু যা বলেছেন তা দেখে মুগ্ধ তাঁর ভক্তরা। ওই ভক্ত সোনুকে টুইট করেন, "স্যর আপনি আমার বিয়ে দেবেন?" সেই অনুরোধের উত্তরে সোনু বলেন, "কেন দেব না? বিয়েতে মন্ত্রও পড়ে দেব। শুধু বিয়ে করার জন্য মেয়ে নিজে দেখে নাও।"

    তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও তাঁর কাছে এসেছে এমন সব উদ্ভট অনুরোধ। কেউ বলেছেন গাড়ি কিনে দেওয়ার কথা, আবার কেউ চেয়েছেন মলদ্বীপ বেড়াতে যেতে। আবার কেউ বলেছেন ডিভোর্সের মামলায় সাহায্য করতে। এক ভক্ত টুইট করেছিলেন, "স্যর আমি মলদ্বীপ যেতে চাই। আমায় পৌঁছে দিন না।" উত্তরে সোনু বলেছিলেন, "ভাই, সাইকেলে যাবে নাকি রিক্স-তে চেপে।"

    প্রসঙ্গত, লকডাউন চলাকালীন একের পর এক জনহিতকর কাজ করছেন সোনু সুদ। লকডাউন চলাকালীন বহু শ্রমজীবী মানুষকে সাহায্য করেছেন তিনি। অন্য রাজ্যে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিক দের ঘরে ফিরিয়েছেন অভিনেতা। কখনো ট্রেন-বাস, আবার কখনও একটি বিমান ভাড়া করে পরিযায়ী শ্রমিক দের ঘরে ফিরিয়েছেন তিনি। বলা যায় ত্রাতার ভূমিকা পালন করেছেন সোনু সুদ।

    উল্লেখ্য, সাধারণত খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করেন সোনু। কিন্তু বাস্তবে তিনি যে একজন বড় মনের মানুষ তার পরিচয় তিনি বার বার দিয়েছেন।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: