• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • BOLLYWOOD SHAHID KAPOOR HAS A WITTY RESPONSE TO THIS SOCIAL MEDIA POST ABOUT HIS FACE MASK TC RC

Shahid Kapoor: ফেস মাস্ক নিয়ে মন্তব্য, শাহিদের জুতসই জবাব ভাবিয়ে তুলবে!

ফেস মাস্ক নিয়ে মন্তব্য, শাহিদের জুতসই জবাব ভাবিয়ে তুলবে!

লিউডের সেলেব্রিটি ফটোগ্রাফার ভাইরাল ভায়ানি (Viral Bhayani) একটি ছবি শেয়ার করেন শাহিদ কাপুর (Shahid Kapoor)-এর।

  • Share this:

#মুম্বই: সেলেবদের সঙ্গে পাপারাৎজিদের সম্পর্ক নিয়ে বেশি কিছু বলার থাকে না। তাদের সম্পর্ক হয় অনেকটা টক-ঝাল-মিষ্টির মতো। অতিরিক্ত বিরক্ত করার জন্য পাপারাৎজিদের উপর রেগেও যেমন যান সেলেবরা, তেমনই কোনও অনুষ্ঠান হোক বা পার্টি, তাদের নিমন্ত্রণও জানান। বিশেষ করে জায়গাটা যখন বলিউড, তখন এখানে পাপারাৎজি ও সেলেব সম্পর্ক নিয়ে করা ভিডিও ৩০ হাজার লাইক হতে পারে। কারণ সম্পর্কটা তেমনই। নতুন নতুন স্টাইল স্টেটমেন্ট থেকে নতুন পোশাক, অভিনব স্টাইল সবই তাঁরা ফ্রেমবন্দী করেন। ফলে সেলেবদেরও তাঁদের প্রয়োজন পড়ে তা বলাই বাহুল্য। এই সম্পর্ক সোশ্যাল মিডিয়াতেও মাঝেমধ্যে প্রকাশ্যে আসে।

সম্প্রতি এমনই দেখল নেটিজেনরা। বলিউডের সেলেব্রিটি ফটোগ্রাফার ভাইরাল ভায়ানি (Viral Bhayani) একটি ছবি শেয়ার করেন শাহিদ কাপুর (Shahid Kapoor)-এর। যেখানে শাহিদকে এয়ারপোর্ট লুকে দেখা যায়। পরনে ছিল কালো কার্গো প্যান্ট, কালো টি-শার্ট, সঙ্গে হলুদ রঙের বুটস ও মুখে কালো মাস্ক। সঙ্গে মাস্কের উপরই একটি ট্রান্সপারেন্ট ফেস শিল্ডও ছিল। ছবিটি ৩১ হাজারেরও বেশি লাইক পায় পোস্টের সঙ্গে সঙ্গে।

কিন্তু ছবিটিরই ক্যাপশনে ভায়ানি লেখেন, শাহিদ নিঃশ্বাস নিতে পারছিল কি না তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। যদি তাই হয়, তা হলে আমি তাঁকে ফাইভ স্টার দেব। এই ক্যাপশনটিরই সঙ্গে সঙ্গে উত্তর দেন অভিনেতা। তিনি কমেন্টে লেখেন, আসলে আমি এক বছর ধরেই নিঃশ্বাস নিচ্ছি না। কমেন্টটি করার সঙ্গে সঙ্গেই তা ১৩৫০ লাইক পায়।

শাহিদ বিষয়টিকে এই ভাবে নিলেও তাঁর অনুগামীরা ক্যাপশনটি মোটেও ভালোভাবে নেননি। অনেকেই ভায়ানির এই কথার বিরোধিতা করেছেন। বলেছেন, এভাবে কেন কাউকে বলছেন?

একজন লেখেন, যখন করোনা পরিস্থিতি আবার খারাপ হচ্ছে তখন উনি তো ঠিক কাজই করেছেন। করোনা বিধি মেনে চলাই তো উচিত। তা হলে এই বিষয়টিকে ব্যঙ্গ করে লেখার মানে কী!

আবার একজন লেখেন, বলিউডে যখন সেলেবরা স্টাইলিস্ট মাস্ক পরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, যা আদৌ কোনও কাজে লাগে না, তার উপর মুম্বইয়ে করোনা বাড়ছে, উনি যা করেছেন তা তো ভালোই!

আরেকজন আবার লেখেন, বাড়িতে দু'টো বাচ্চা, স্ত্রী বা পরিবারের জন্য তিনি যদি নিজেকে সুরক্ষিত রাখেন তা হলে তো ভালোই!

প্রসঙ্গত, দেশে ফের বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। দ্রুত গতিতে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে এমন রাজ্যগুলির মধ্যে মহারাষ্ট্র সবচেয়ে প্রথমে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ হাজার ৯১৮ জন।

মহারাষ্ট্র সরকার বার বার করোনা বিধি মেনে চলার আবেদন জানাচ্ছেন। সকলকে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে বলছেন। এবং স্যানিটাইজার ব্যবহারের আবেদনও জানিয়েছেন।

মহারাষ্ট্রের পাশাপাশি আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে অন্যান্য রাজ্যেও। সেখানেও করোনা বিধি মেনে চলার কথা বলা হচ্ছে।

Published by:Raima Chakraborty
First published: