প্রশংসা শোনার জন্য দিলীপ সাহাবের সেবা করি না, তাঁর স্পর্শ আমার প্রাণ: সায়রা বানু

প্রশংসা শোনার জন্য দিলীপ সাহাবের সেবা করি না, তাঁর স্পর্শ আমার প্রাণ: সায়রা বানু

সম্প্রতি সায়রা বানু জানান, দিলীপ কুমার স্বাস্থ্য সম্পর্কে তিনি চিন্তিত, ওঁনার শরীর খুব একটা ভাল নেই। তিনি খুব দুর্বল ৷

সম্প্রতি সায়রা বানু জানান, দিলীপ কুমার স্বাস্থ্য সম্পর্কে তিনি চিন্তিত, ওঁনার শরীর খুব একটা ভাল নেই। তিনি খুব দুর্বল ৷

  • Share this:

    #মুম্বই: শারীরিক ভাবে খুব একটা সুস্থ নেই বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেতা দিলীপ কুমার। গত কয়েক বছর ধরেই নানারকম বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছেন তিনি ৷ ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এ কথা জানিয়েছেন তাঁর স্ত্রী অভিনেত্রী সায়রা বানু। আর সবসময়ের মত এই কঠিন সময়েও স্বামীর পাশে আছেন তিনি ৷

    সম্প্রতি ৯৭ বছর বয়সী দিলীপ কুমারের শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চাওয়া হলে সায়রা বানু জানান, দিলীপ কুমার স্বাস্থ্য সম্পর্কে তিনি চিন্তিত, ওঁনার শরীর খুব একটা ভাল নেই। খুব দুর্বল ৷ মাঝেমধ্যে ঘর থেকে হল পর্যন্ত গিয়ে ফের ঘরে ফিরে আসেন। একেবারেই কমে গেছে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা। তিনি সবাইকে স্বামীর সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করতে বলেন।

    তিনি আরও বলেন, ভালবাসা থেকেই স্বামীর দেখাশোনা করেন তিনি, প্রশংসা কুড়োতে নয়৷ তিনি চান না কেউ তাঁকে স্বামী অন্তপ্রাণ স্ত্রী হিসাবে দেখুক বা বলুক৷ দিলীপ সাহাবকে স্পর্শ করা বা তাঁর আদর যত্ন করা তাঁর কাছে দুনিয়ার সেরা প্রাপ্তি ৷ তাঁর স্বামী তাঁর কাছে প্রাণ ৷

    করোনা পরিস্থিতির কারণে মার্চ মাস থেকে সম্পূর্ণ ভাবে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন তাঁরা। ২২ সালে পাকিস্তানের খাইবারে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মেছিলেন দিলীপ কুমার ৷ আসল নাম ছিল মুহাম্মদ ইউসুফ খান। ১৯৯৪ সালে তাঁর বলিউডে পদার্পণ । এরপর থেকে একের পর এক ‘দওর’, ‘মুঘল-এ-আজম’, ‘মধুমতী’ থেকে ‘ক্রান্তি’, ‘মশাল’, ‘কর্মা’, ‘সওদাগর’, ‘কিলা’-এর মত ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন তিনি ৷ তিনিই প্রথম অভিনেতা যিনি প্রতি ছবি পিছু ১ লক্ষ টাকা করে পারিশ্রমিক নিতে শুরু করেন।

    ১৯৬৬ সালে প্রায় ২২ বছরের ছোট সায়রা বানুকে বিয়ে করেন দিলীপ কুমার। সেই থেকে দু’জনেই একে অপরের সবসময়ের সঙ্গী ৷ দাম্পত্য জীবন পেরিয়েছে ৫৪ বছর৷

    Written by: Simli Dasgupta

    Published by:Simli Raha
    First published: