Sonu Sood: ‘১০ মিনিটের আসছি ভাই’, অক্সিজেন নিয়ে সুরেশ রায়নার কাছে পৌঁছলেন সোনু সুদ

রোগীর বিস্তারিত তথ্য দিয়ে রায়না লেখেন, একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার দরকার । উত্তরে সোনু বলেন, মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই অক্সিজেন সিলিন্ডার সঠিক স্থানে পৌঁছে যাবে ।

রোগীর বিস্তারিত তথ্য দিয়ে রায়না লেখেন, একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার দরকার । উত্তরে সোনু বলেন, মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই অক্সিজেন সিলিন্ডার সঠিক স্থানে পৌঁছে যাবে ।

  • Share this:

    #মুম্বই: গত বছর থেকে এখনও পর্যন্ত এক ও একমাত্র বাস্তব হিরো বলিটাউনের অভিনেতা সোনু সুদ (Sonu Sood)! লকডাউন (Lockdown)-এ তিনি নিঃস্বার্থভাবে পরিযায়ী শ্রমিক (Migrant Labour)-দের পাশে দাঁড়িয়েছেন। বিশেষ গাড়ি, বাসের ব্যবস্থা করে শ্রমিকদের পৌঁছে দিয়েছেন নিজ-নিজ বাড়িতে। এখানেই শেষ নয়! দেশের যে-কোনও প্রান্তে যখনই কেউ বিপদে পড়েছেন, সোনুকে একবার জানালেই হল... সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন 'দাবাং' স্টার। লকডাউনে বহু মানুষ কর্মহারা হয়েছেন। সোনু তাঁদের সাহায্য করেছেন নতুনভাবে জীবন শুরু করতে। অসহায়দের চিকিৎসা করিয়েছেন। পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে পৌঁছানো থেকে শুরু করে, বেকারদের কর্মসংস্থান করা, কারও অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা করা, কারও বাড়িতে ট্রাক্টর পৌঁছে দেওয়া, কাউকে আবার চিকিৎসার খরচ দেওয়া.... মানুষের কাছে যেন ঈশ্বরের দূত হয়ে এসেছিলেন সোনু সুদ । এই কাজ করতে গিয়ে তিনি নিজেও করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন । কিন্তু দমে যাননি । মারণ রোগকে হারিয়ে ফের নতুন উদ্যমে ফিরে এসেছেন ।

    এ বার সোনু এগিয়ে এলেন সুরেশ রায়না (Suresh Raina)-র ডাকে সাড়া দিয়ে । প্রাক্তন এই ভারতীয় ক্রিকেটার তাঁর এক আত্মীয়ের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় সাহায্য চান । রোগীর বিস্তারিত তথ্য দিয়ে রায়না লেখেন, একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার দরকার । রায়না লেখেন, খুব জরুরি ভিত্তিতে উত্তরপ্রদেশের মেরঠে তাঁর এক আত্মীয়ার জন্য অক্সিজেনের প্রয়োজন । আর এই ট্যুইট করার কিছুক্ষণের মধ্যেই সোনু উত্তর দেন । বলেন মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই তিনি অক্সিজেন নিয়ে পৌঁছে যাবেন । তাঁকে যেন সমস্ত বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয় ।

    দিন কয়েক আগেই সোনু ও টাঁর টিম ২২ জন করোনা রোগীর প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন ব্যাঙ্গালুরুর আরাক হাসপাতালে । মঙ্গলবার রাতে সোনুর টিম জরুরি ফোন পেয়েছিলেন । জানা গিয়েছিল, ওই হাসপাতালে অক্সিজেনের ভাণ্ডার নিঃশেষ হয়ে আসছে দ্রুত । বহু করোনা রোগী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন । তাঁদের মধ্যে অনেকেরই অক্সিজেন চলছে । এই খবর পাওয়া মাত্র দ্রুত ব্যবস্থা নেন সোনু । জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতালে ১৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার পাঠানো হয় । যার জেরে বেঁচে যায় অন্তত ২২ জনের প্রাণ ।

    Published by:Simli Raha
    First published: