Rakhi Sawant: 'আপনার কোটি কোটি টাকা, দেশের সেবা করুন!' কঙ্গনাকে কাতর অনুরোধ রাখির

Rakhi Sawant: 'আপনার কোটি কোটি টাকা, দেশের সেবা করুন!' কঙ্গনাকে কাতর অনুরোধ রাখির

হাসপাতালে দেখা গিয়েছে অক্সিজেন ও বেডের ঘাটতি কারণ সংক্রমণ প্রতিদিন নতুন রেকর্ড গড়ছে। আর এই অবস্থা দেখে কঙ্গনাকে অক্সিজেনের ব্যবস্থা করতে বললেন রাখি সাওয়ান্ত।

হাসপাতালে দেখা গিয়েছে অক্সিজেন ও বেডের ঘাটতি কারণ সংক্রমণ প্রতিদিন নতুন রেকর্ড গড়ছে। আর এই অবস্থা দেখে কঙ্গনাকে অক্সিজেনের ব্যবস্থা করতে বললেন রাখি সাওয়ান্ত।

  • Share this:

    #মুম্বই: ‌অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের কাছে অনুরোধ রাখলেন রাখি সাওয়ান্ত। করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে গোটা দেশের চারদিকে হাহাকার পড়ে গিয়েছে। হাসপাতালে দেখা গিয়েছে অক্সিজেন ও বেডের ঘাটতি কারণ সংক্রমণ প্রতিদিন নতুন রেকর্ড গড়ছে। আর এই অবস্থা দেখে কঙ্গনাকে অক্সিজেনের ব্যবস্থা করতে বললেন রাখি সাওয়ান্ত।

    বুধবার পাপারাজ্জিদের সঙ্গে কথা বলেন রাখি। করোনা নিয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার বার্তা দেন বিগবস খ্যাত প্রতিযোগী। তখনই এক পাপারাজ্জি রাখিকে বলেন, কঙ্গনাজি বলছেন যে দেশের অবস্থা খুব খারাপ। মোদিজি ঠিক নাকি ভুল, অক্সিজেন পাওয়া যাচ্ছে না। এই ব্যাপারে আপনি কী বলবেন? রাখি তাঁর চেনা মেজাজেই বলেন, অক্সিজেন পাওয়া যাচ্ছে না? ওহহো! কঙ্গনাজি আপনি দেশের সেবা করুন না। এত কোটি কোটি টাকা আপনার কাছে রয়েছে। অক্সিজেন কিনুন আর সেগুলি লোকেদের মধ্যে ভাগ করে দিন। আমরা তো তাই করছি।

    ভিডিওয় রাখিকে হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে পাপারাজ্জিদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায়। সঙ্গে তিনি মুখে দুটি মাস্ক পরেছিলেন। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই রাখি মুম্বইয়ের এক সবজি বাজারে গিয়েছিলেন। তবে তাঁর ভক্তরা তাজ্জব হয়েছিলেন কারণ তিনি পিপিই পরে বাজারে যান। দেশের যে সব রাজ্য কোভিড ১৯ ভাইরাসের করাল গ্রাসে রীতিমতো ধুঁকছে, তার মধ্যে মহারাষ্ট্র অন্যতম। ফলে অনেকে বলতেই পারেন যে সুরক্ষিত থাকার জন্যই আপাদমস্তক পিপিই স্যুটে ঢেকে পথে নেমেছিলেন রাখি!

    ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, পিপিই স্যুট পরে সবজি বিক্রেতাদের উদ্দেশে রীতিমতো তর্জন-গর্জন করছেন রাখি। বক্তব্য তাঁর একটাই- তাঁকে ভালো মানুষ পেয়ে জিনিসের দাম চড়াচ্ছেন দোকানদারেরা। তাই সবজি বাছাইয়ের সঙ্গে সঙ্গে সমান তালে তাঁদের শাসিয়ে চলেছেন রাখি- ন্যায্য দামের বেশি এক কানাকড়িও তিনি ফেলবেন না! এই ভিডিও মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুহূর্তে ভাইরাল হয়।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published:

    লেটেস্ট খবর