• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • বুদ্ধি আর সৌন্দর্য্য দুইয়ের সমাহার দিয়া, জন্মদিনে ফিরে দেখা সুন্দরীর দারুণ কিছু পোস্ট

বুদ্ধি আর সৌন্দর্য্য দুইয়ের সমাহার দিয়া, জন্মদিনে ফিরে দেখা সুন্দরীর দারুণ কিছু পোস্ট

Photo-File

Photo-File

রূপ আর বুদ্ধিমত্তায় ঝলমল করে সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট, জন্মদিনে ফিরে দেখা দিয়া মির্জার ব্যক্তিত্বকে!

  • Share this:
#মুম্বই: সবার প্রথমে তাঁর সঙ্গে আমাদের পরিচয় সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার আসরে। তা-ও সে দেখতে দেখতে পেরিয়ে এসেছে বছর কুড়ি! ২০০০ সালে মিস এশিয়া প্যাসিফিক ইন্টারন্যাশনালের (Miss Asia Pacific International) খেতাব জিতে বিশ্বদরবারে এই দেশের গৌরব বৃদ্ধি করেছিলেন দিয়া মির্জা

এর পর একে একে তাঁর অনেক সত্ত্বার সঙ্গেই পরিচয় হল আমাদের। সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় জয়লাভ করার ঠিক পরের বছর, মানে ২০০১ সালে বলিউডের রুপোলি পর্দায় আত্মপ্রকাশ করলেন নায়িকা দিয়া মির্জা। ছবির নাম রেহনা হ্যায় তেরে দিল মে (Rehnaa Hai Terre Dil Mein)। সেরা বলিউডের (Bollywood) ছবির একটা তালিকা বানাতে বসলে যা কোনও ভাবেই বাদ দেওয়া যায় না।

এই ছবি নিঃসন্দেহেই তুলে ধরেছিল নায়িকা হিসেবে দিয়ার লাস্যময়ী দিকটি। কিন্তু সঞ্জু (Sanju), থাপ্পড় (Thappad)-এর মতো ছবিতে কাজের মধ্যে দিয়ে দিয়া তাঁর অভিনেত্রী সত্ত্বাটি প্রমাণ করে দিয়েছেন। অতিথি শিল্পী হিসেবেও তাঁর উপস্থিতি যে কত অমোঘ হতে পারে, সে কথা প্রমাণ করেছে পরিণীতা (Parineeta), লাগে রহো মুন্নাভাইয়ের (Lage Raho Munnabhai) মতো ছবিগুলো!

একই সঙ্গে, সামাজিক সচেতনতা প্রসারের দিক থেকেও এই নায়িকা অনন্য। ২০২২ সাল পর্যন্ত তিনিই বহাল রয়েছেন ইউনাইটেড নেশনস এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রামের (UNEP) ন্যাশনাল গুডউইল অ্যাম্বাসাডরের পদে।

আজ ৩৯ বছরে পা রাখলেন এ হেন দিয়া মির্জা! তাঁর রূপ আর বুদ্ধিমত্তা মিলিয়ে যে চেহারাটি ধরা পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়, জন্মদিনে তার সঙ্গে পরিচয় হোক নতুন করে!

১. পুরানো সেই দিনের কথা

সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় জয়লাভ নিঃসন্দেহেই এক কঠিন কাজ। এ কাজে কী ভাবে পরিবার এবং বিখ্যাত এক কবিতা মনোবল বাড়িয়েছিল, সাহস জুগিয়েছিল তা পরে প্রকাশ করেছেন নায়িকা সবার কাছে।

২. সৌন্দর্যের চাবিকাঠি

মনটি সুন্দর হলে তবেই তার আলোয় উদ্ভাসিত হয় শারীরিক কাঠামো। নিয়মিত ধ্যান এবং যোগাভ্যাস এ ব্যাপারে কী ভাবে সাহায্য করে তাঁকে, তা নায়িকা সবাইকে জানাতে দ্বিধা বোধ করেন না কোনও দিনই!

৩. বছরসেরা নারী

আগেই বলা হয়েছে, এই নায়িকা পরিবেশরক্ষার কাজে কতটা তৎপর! ইউনাইটেড নেশনস এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রামের ন্যাশনাল গুডউইল অ্যাম্বাসাডরের কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ভোগ পত্রিকা তাঁকে দিয়েছে ২০২০ সালের উওম্যান অফ দ্য ইয়ার-এর তকমা!

৪. ভূস্বর্গসুন্দরী

কাফির ওয়েব সিরিজের কাজে দিয়া কিছু দিন শ্যুটিং সেরেছেন কাশ্মীরে (Kashmir)। ভূস্বর্গের সৌন্দর্যের সঙ্গে নতুন করে সবার পরিচয় করিয়েছেন তিনি।

৫. আড়াল থেকে

দিয়াকে শেষ পর্যন্ত অনেকেই মনে রাখেন মূলত নায়িকা হিসেবেই। তাঁর সোশ্যাল মিডিয়াতেও তাই মাঝে মাঝে ঘুরে-ফিরে আসে শ্যুটিংয়ের নানা মুহূর্ত।

Published by:Debalina Datta
First published: