বিনোদন

corona virus btn
corona virus btn
Loading

আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবস: সুযোগ দিচ্ছে স্পোটিফাই,, কী ভাবে আপনিও উপার্জন করতে পারেন এই মাধ্যমে?

আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবস: সুযোগ দিচ্ছে স্পোটিফাই,, কী ভাবে আপনিও উপার্জন করতে পারেন এই মাধ্যমে?

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবসের পথচলা শুরু ২০১৩ সাল থেকে। সে দিন ন্যাশনাল সিনিয়র সিটিজেন ডে-তে রেডিওয় কোনও একটি ঘোষণা শুনছিলেন বিখ্যাত পডকাস্টার ডেভ লি।

  • Share this:

বুধবার আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবস। বিষয়টা গুরুত্বপূর্ণ কারণ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পডকাস্ট কনটেন্ট ও পডকাস্টারদের জনপ্রিয়তাও উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। অফিস থেকে ফেরার সময় গাড়িতে, শোওয়ার ঘরের স্মার্ট-স্পিকারে এমনকি আজকাল স্মার্ট-টিভিতেও আপনি নানা অডিও স্টোরিতে মেতে উঠছেন। কোথাও যেন গল্প বলা আর শোনার সেই পুরনো ঐতিহ্যটা আবার ফিরে আসছে। আর এই সংস্কৃতি পুনরুদ্ধারের কাজে বোধহয় সব চেয়ে বড় ভূমিকা নিয়েছে স্পোটিফাই। নিত্যনতুন বিষয়ের পাশাপাশি নতুন প্রতিভাদের সুযোগও দিচ্ছে এই অনলাইন স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম।

এই করোনা-আবহে স্পোটিফাইয়ের সাবস্ক্রাইবার বেড়েছে বলে জানাচ্ছে এই সংস্থা। স্পোটিফাই জানাচ্ছে, ভারতে অধিকাংশই তরুণ বা যুবক বয়সের সাবস্ক্রাইবার। কিন্তু উল্লেখযোগ্য বিষয়, মোট সাবস্ক্রাইবারের প্রায় এক তৃতীয়াংশই মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নানা পডকাস্ট শোনেন।

ইতিমধ্যেই ভারতে বিরাট মাত্রায় বাজার তৈরি করে ফেলেছে স্পোটিফাই। এর কারণ অবশ্য ভারতে দিন দিন বড় চলা পডকাস্টারদের সংখ্যা। এক বছরের মধ্যেই '২২ ইয়ার্ডস উইথ গৌরব কাপুর', 'মহাভারত উইথ ধ্রুব রাঠি', 'অফ স্ক্রিপ্ট উইথ সলিল' ইত্যাদি নানা অডিও-শো তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছে ভারতে।

সেই লক্ষ্যেই এ বার নতুনদেরও সুযোগ দিচ্ছে স্পোটিফাই। এ ক্ষেত্রে এই পডকাস্টের বিষয়টিকে দারুণ ভাবে ব্যাখ্যা করেছে সংস্থা। স্পোটিফাইয়ের কথায়, এই PODCAST শব্দটি থেকেই নতুনরা অনুপ্রেরণা পাবে। যেমন পি মানে প্ল্যানিং বা পরিকল্পনা, ও মানে অরিজিন্যালিটি অর্থাৎ আপনার কনটেন্ট কতটা নিজস্ব, ডি মানে কনটেন্ট ডিস্ট্রিবিউশনের ক্ষেত্রে আপনাকে কোথায় মনোযোগ দিতে হবে, সি মানে কনসিসটেনন্সি, এ মানে আর্টওয়ার্ক বা আপনার কনটেন্টের নান্দনিক দিক, এস মানে সেটিং আপ অর্থাৎ পডকাস্ট-সংক্রান্ত সমস্ত জিনিসের সেটিং আপ এবং টি মানে আপনার কনটেন্টের টেস্টিং অর্থাৎ যে কনটেন্টটি তৈরি করলেন বন্ধু বা প্রিয়জনদের মধ্যেই তার একটা ছোটখাটো মূল্যায়ন করে নেওয়া।

তাই আপনার যদি পডকাস্টিংয়ে আগ্রহ থাকে, তা হলে স্পোটিফাইয়ের মতো প্ল্যাটফর্মের সুবিধা নিতে পারেন আপনি। খুব সহজেই পডকাস্ট কনটেন্ট তৈরি করার পাশাপাশি তার ডিস্ট্রিবিউশন ও মানিটাইজের বিষয়টিও দেখতে পারবেন আপনি। এখানেই শেষ নয়, এই প্ল্যাটফর্ম আপনাকে অ্যানালিটিকস টুলের সুবিধাও দেয়। তাই কোন ধরনের শ্রোতারা আপনার কনটেন্ট শুনছেন, সেই সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেয়ে যাবেন আপনি। এ ক্ষেত্রে খুব একটা ঝক্কি পোহাতে হবে না আপনাকে। কারণ এই টুল অ্যান্ড্রয়েড, আইফোন, আইপ্যাড থেকে শুরু করে ওয়েব ভার্সনেও পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবসের পথচলা শুরু ২০১৩ সাল থেকে। সে দিন ন্যাশনাল সিনিয়র সিটিজেন ডে-তে রেডিওয় কোনও একটি ঘোষণা শুনছিলেন বিখ্যাত পডকাস্টার ডেভ লি। দশ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এই পডকাস্টারের মাথায় আসে যে এই সময়ে দাঁড়িয়ে আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবস পালন করাটা খুবই জরুরি। সেই থেকেই শুরু আন্তর্জাতিক পডকাস্ট দিবস উদযাপন। লি যে ভুল কিছু ভাবেননি, তৃতীয় বিশ্বের বাজারে পডকাস্টের জনপ্রিয়তাই তো তার প্রমাণ দিচ্ছে!

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: September 30, 2020, 3:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर