RIP Dilip Kumar: 'দিলীপ কুমারের আগে ও পরে, এভাবে ভাগ হবে বলিউড,' প্রতিক্রিয়া অমিতাভের

শক্তি (Shakti) ছবিতে দিলীপ কুমারের (Dilip Kumar death) ছেলের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাঁকে (Amitabh Bachchan)৷

শক্তি (Shakti) ছবিতে দিলীপ কুমারের (Dilip Kumar death) ছেলের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাঁকে (Amitabh Bachchan)৷

  • Share this:

    #মুম্বই: প্রয়াত কিংবদন্তী (Legendary actor) অভিনেতা দিলীপ কুমার (Dilip Kumar)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর। দীর্ঘদিন ধরে রোগে ভুগছিলেন তিনি৷ করোনাকলে তাঁকে খুবই সতর্কতার সঙ্গে আইসোলেশনে রাখা হয়েছিল৷ তার মধ্যেও বেশ কয়েকবার হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় দিলীপ সাবকে৷ মঙ্গলবারও শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে মুম্বইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে (Hinduja Hospital) ভর্তি করা হয়েছিল বর্ষীয়ান অভিনেতাকে। চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছিলেন কিন্তু শেষ রক্ষা হল না৷ বাড়ি আর ফেরা হল না দিলীপ কুমারের। বুধবার সকালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি৷ তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা দেশ৷

    প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন চলচ্চিত্র জগত থেকে শুরু করে রাজনীতিকরা৷ শোকাহত অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan)৷ শক্তি (Shakti) ছবিতে দিলীপ কুমারের ছেলের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাঁকে৷ বলিউডের দুই বর্ষীয়ান অভিনেতাই একে অপরের প্রসংশায় পঞ্চমুখ ছিলেন৷ দিলীপ কুমারের চলে যাওয়া কোনও ভাবে মানতে পারছেন না অমিতাভ বচ্চন৷ বলিউডের অত্যন্ত বড় ক্ষতি দিলীপ কুমারের মৃত্যু, বলছেন তিনি৷ শোকবার্তায় তিনি লিখেছেন দিলীপ কুমার অভিনয়ের এক প্রতিষ্ঠান ছিলেন৷ তাই বলিউডের সময়কালকে ভাগ করা হবে দিলীপ কুমার পূর্ববর্তী ও তাঁর পরবর্তী সময় হিসেবে৷ তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন বিগ বি৷

    এরপরও আরও একটি ট্যুইটে শোক প্রকাশ করেছেন অমিতাভ৷ লিখেছেন, এক দীর্ঘ অধ্যয়ের শেষ, যা আর কোনও দিনও ফিরবে না৷

    দীর্ঘ পাঁচ দশকের অভিনয় জীবন ছিল দিলীপ কুমারের৷ কেরিয়ারের একাধিক ছবিতে এই মেথড এবং জনপ্রিয়তার রেকর্ড গড়েছেন দিলীপ কুমার। এই সব উচ্চবিত্ত চরিত্রে অভিনয়ের মাইলফলক গড়লেও এই দিলীপ কুমারই অনায়াসে হয়ে উঠেছেন ছবিতে খেটে খাওয়া জনতার প্রতিনিধি। ১৯৯১ সালে পদ্মভূষণ (Padma Bhushan), ২০১৫ সালে পদ্মবিভূষণ (Padma Vibhushan), ২০০০ সাল থেকে ২০০৬ সাস পর্যন্ত রাজ্য সভার সদস্য হিসাবে মনোনীত হওয়া, ১৯৭৯ সাল থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত বম্বের শেরিফ পদ- কোনওটাই প্রয়াত দিলীপ কুমারের (Dilp Kumar) মর্যাদার পক্ষে যথেষ্ট নয়, এ যেন সম্মান তাঁর হাতে তুলে দিতে পেরে ভারত সরকারেরই নিজেকে ধন্য মনে করা! যদি ভারতীয় ছবির এই অসীম ক্ষমতাধর অভিনেতার সামর্থ্যের মূল্যায়ণ করতেই হয়, তাহলে বোধহয় একমাত্র যথাযথ পুরস্কার হতে পারে ১৯৯৪ সালে পাওয়া দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার (Dadasaheb Phalke Award)। বাদ দেওয়া যায় না একাধিক ফিল্মফেয়ার (Filmfare) পাওয়ার রেকর্ডও।

    Published by:Pooja Basu
    First published: