corona virus btn
corona virus btn
Loading

মাদক খাইয়ে আমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা, দুবাইয়ে পাচারের চেষ্টা...বিস্ফোরক অভিযোগ কঙ্গনার

মাদক খাইয়ে আমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা, দুবাইয়ে পাচারের চেষ্টা...বিস্ফোরক অভিযোগ কঙ্গনার

যখন সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলার নয়া ড্রাগ অ্যাঙ্গেল নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে, তখনই ফের একবার বোমা ফাটালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত

  • Share this:

#মুম্বই: সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু-রহস্যে নয়া মোড়, ড্রাগ র‍্যাকেটের গন্ধ পাচ্ছে CBI! ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে তদন্ত শুরু করে করেছে NCB! প্রসঙ্গত, বুধবার রিয়া চক্রবর্তীর কিছু হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজের স্ক্রিনশট প্রকাশ্যে আসে! এরপরই অভিযোগ ওঠে, মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত সুশান্তের চর্চিত বান্ধবী রিয়া। তিনিই নাকি সুশান্তকে নিয়মিত মাদক দিতেন! যদিও, মেসেজগুলির সত্যতা এখনও যাচাই করেনি তদন্তকারী দল।'

যখন সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলার নয়া ড্রাগ অ্যাঙ্গেল নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে, তখনই ফের একবার বোমা ফাটালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। এক সর্বভারতীয় বৈদ্যুতিন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কঙ্গনার দাবি, 'আমাকে জোর করে মাদক খাইয়েছিল এক চরিত্রাভিনেতা।' সাক্ষাৎকারে কঙ্গনা জানান, অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন বুকে নিয়ে মাত্র ১৬ বছর বয়সে মানালি ছেড়েছিলেন। সেই সময় চণ্ডীগড়ে একটি প্রতিযোগিতায় জিতে মুম্বই আসেন, শুরুর কিছুদিন একটি হস্টেলে থাকতেন, তারপর এক 'আন্টি'র বাড়িতে থাকতে শুরু করেন। কঙ্গনার কথায়, সেই সময় বলিউডের এক 'চরিত্রাভিনেতা' কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে তাঁর সঙ্গে বন্ধুত্ব করেন। 'আন্টি'র চোখেও ভাল হয়ে ওঠেন, তারপর তাঁরা ৩ জন  একসঙ্গে একই বাড়িতে থাকতে শুরু করেন।

কিছুদিন বাদেই পরিস্থিতি বদলাতে শুরু করে! কঙ্গনার ভাষায়, 'সেই চরিত্রাভিনেতা আমাকে বিভিন্ন বলিউড পার্টিতে নিয়ে যাওয়া শুরু করল। একবার পানীয়তে মাদক মিশিয়ে খাইয়েছিল, আমি বেহুঁশ হয়ে পড়ি, নেশার জেরে আমাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কও হয়েছিল সেদিন।' কঙ্গনার অভিযোগ, ' ওই ঘটনার এক সপ্তাহের মধ্যেই সেই চরিত্রাভিনেতা নিজেকে আমার স্বামী ভাবতে শুরু করে। যখন আমি আপত্তি জানাই, বলি 'তুমি আমার বয়ফ্রেন্ড নও', আমাকে জুতোপেটা করত!''

কঙ্গনা এও জানান, দুবাইয়ের অনেকের সঙ্গে মিটিং করাতে নিয়ে যেত সেই চরিত্রাভিনেতা। কঙ্গনার ভাষায়, '' দুবাইয়ের বয়স্ক মানুষদের মাঝে বসিয়ে ও চলে যেত। ওরা আমার নাম্বার নিত। আমার ভয় হত, ও আমাকে দুবাইয়ে পাচার না করে দেয়।'

২০০৬ সালে অনুরাগ বসুর 'গ্যাংস্টার'-এ ব্রেক পাওয়ায় বেজায় চটে গিয়েছিল সেই চরিত্রাভিনেতা! কঙ্গনা জানান, '' আমি যাতে শুটে যেতে না পারি, ও আমায় ঘুমের ওষেধের ইঞ্জেকশন দিয়ে রাখত। আমি অনুরাগ বসুকে সবটা জানাই। আমাকে বাঁচাতে উনি বহুবার নিজের অফিসে থাকতে দিয়েছিলেন আমায়।''

Published by: Rukmini Mazumder
First published: August 29, 2020, 7:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर