corona virus btn
corona virus btn
Loading

বারবার সুশান্তের উপর মানসিক চাপ তৈরি করা হচ্ছিল, এটা আত্মহত্যা নয়...খুন: কঙ্গনা

বারবার সুশান্তের উপর মানসিক চাপ তৈরি করা হচ্ছিল, এটা আত্মহত্যা নয়...খুন: কঙ্গনা

কঙ্গনার মতে, ইন্ডাস্ট্রিতে যাঁদের কোনও গডফাদার নেই ৷ তাঁদের উপর চাপ অনেক বেশি ৷ কোনও ভাল কাজের স্বীকৃতি দেওয়া হয় না ৷ খারাপ খারাপ সিনেমাও অ্যাওয়ার্ড পায় ৷

  • Share this:

#মুম্বই: বলিউডে সাফল্য হাতের মুঠোয়। তরুণীদের হার্টথ্রব। তাঁর এক হাসি, যেন বলত তোমায় ভালবাসি। সুশান্ত কি নিজের জীবনে ভাল ছিলেন? কৈশোরে মাকে হারানো, বারবার সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার যন্ত্রণা লুকোচ্ছিলেন ওই হাসির পিছনেই। কেউ কি বুঝেছিল? তিনি চলে গেলেন, বলে গেলেন না... ৷

গলায় ফাঁস লেগে শ্বাসরোধ হয়েই সুশান্তের মৃত্যু হয়েছে বলে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে উল্লেখ হয়েছে ৷ তবে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুতে বিস্ফোরক কঙ্গনা রানাওত। তিনি বলেন, ‘‘বারবার সুশান্তের ওপর মানসিক চাপ তৈরি করা হয়েছিল। আত্মহত্যা নয়, পরিকল্পিতভাবে খুনই করা হয়েছে সুশান্তকে।’’

কঙ্গনার মতে, ইন্ডাস্ট্রিতে যাঁদের কোনও গডফাদার নেই ৷ তাঁদের উপর চাপ অনেক বেশি ৷ কোনও ভাল কাজের স্বীকৃতি দেওয়া হয় না ৷ খারাপ খারাপ সিনেমাও অ্যাওয়ার্ড পায় ৷ কিন্তু ভাল কাজের কদর নেই ৷ ইন্ডাস্ট্রিতে অনেকেই নিজেকে ‘লেফট ওভার’ মনে করেন ৷

ভীষণ জেদি একটা ছেলে। পড়াশোনায় মেধাবী। মন চাইত, অভিনয়। মন চাইত, মন জিততে। উজ্জ্বল কেরিয়ার ছেড়ে উড়ে গিয়েছিলেন বলিউডের আকাশে। হৃদয় দিয়ে হৃদয় জেতেন। পর্দায় বারবার বলেন, হার নয়। বেঁচে থেকে জিততে হবে। কিন্তু, সেই সুশান্ত সিং রাজপুতই সব ছেড়ে পাড়ি দিলেন এক অজানা দেশে... ৷

বান্দ্রার কার্টার রোডে ফ্ল্যাট। মঁ ব্লাঁ। সুশান্তের ডেরা। সাত তলায় বসে আকাশ দেখতেন। অনন্ত আকাশ। তারা দেখতে ভালবাসতেন। আসলে কি মা-কে খুঁজতেন ? তারার দেশে মা যে চলে গেছেন সেই ২০০২-এ। মা’কে হারানোর যন্ত্রণায় সুশান্ত কাঁদতেন হয়ত। ৩ জুন, মা’য়ের ছবি পোস্ট করে সুশান্ত লেখেন, চোখের জলে ঝাপসা হচ্ছে স্মৃতিগুলো, অথচ স্বপ্নের আনাগোনা লেগেই থাকে। জীবন চলতে থাকে, এই দুইয়ের সঙ্গে বোঝাপড়া...মা।

বোঝা যায়, সুশান্ত মা-কে কতটা তীব্রভাবে মনে করতেন। কষ্ট পেতেন। সুশান্তর জীবনে সম্পর্কের টানাপোড়েন এসেছে বারবার। পবিত্র রিস্তা ধারাবাহিকের ফ্লোরে প্রেম অঙ্কিতা লোখান্ডের সঙ্গে। এক টিভি শোতে মারাঠি মেয়েকে বিয়ের প্রস্তাবও দেন সুশান্ত। কিন্তু, ২০১৫ সালে দু’জনের ব্রেকআপ। ঘনিষ্ঠমহল দাবি করে, অঙ্কিতার মাদকাসক্তিই এর কারণ। একবার নাকি নাইট ক্লাবে সুশান্তকে থাপ্পড় মেরেছিলেন অঙ্কিতা।

এরপর বলিউডের অনেক অভিনেত্রীর সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন। সুশান্তের লাভ লাইফ নিয়ে অনেক কানাঘুষো। সেসবে পাত্তা দেননি বছর চৌত্রিশের অভিনেতা। তিনি কখনও হেসেছেন। কখনও উড়িয়ে দিয়েছেন। তারপর সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে। ভিডিও জকি রিয়া তেলুগু ও পঞ্জাবি ছবিতে নায়িকা হন। একসঙ্গে বিদেশ ভ্রমণেও গিয়েছিলেন তাঁরা।

শরীরচর্চা ছিল যাঁর নেশা, সেই সুশান্ত ডিসেম্বর থেকে জিমও নিয়মিত করতেন না। ডিপ্রেশনের চিকি‍ৎসা চললেও কয়েকদিন ধরে ওষুধ খাওয়া ছেড়ে দেন। বেঁচে থাকার, ভাল থাকার সব ইচ্ছেই ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছিল সুশান্তর? কেউ জানতে চায়নি। হাসির নীচে লুকিয়ে থাকা অন্ধকারের খোঁজ কেউ করেননি। সুশান্তের ব্যক্তিগত জীবনে অবিরাম আহত স্মৃতির ভিড়। সুশান্ত, চলে গেল, বলে গেল না-- কোথায় গেল আর... ফিরে এল না।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 15, 2020, 5:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर