'আমি হেরে গেলাম'! ট্রাক্টর মিছিলের ঘটনায় এমন কেন বললেন কঙ্গনা রানাওয়াত

'আমি হেরে গেলাম'! ট্রাক্টর মিছিলের ঘটনায় এমন কেন বললেন কঙ্গনা রানাওয়াত
প্রথম দিন থেকেই কৃষক আন্দোলনের উদ্দেশ্য নিয়ে নানা রকমের তির্যক মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী। তাঁর মতে, সুযোগ থাকা সত্ত্বেও, তিনি এই অশান্তি আটকতে পারলেন না। তার জন্য তাঁর মাথা হেঁট হয়ে যাচ্ছে।

প্রথম দিন থেকেই কৃষক আন্দোলনের উদ্দেশ্য নিয়ে নানা রকমের তির্যক মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী। তাঁর মতে, সুযোগ থাকা সত্ত্বেও, তিনি এই অশান্তি আটকতে পারলেন না। তার জন্য তাঁর মাথা হেঁট হয়ে যাচ্ছে।

  • Share this:

    #মুম্বই: সাধারণতন্ত্র দিবসে রাজধানীতে কৃষকদের ট্রাক্টর মিছিলে হিংসা রুখতে না পারার জন্য নিজেকে ব্যর্থ বলে সম্বোধন করলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। নভেম্বর থেকে দিল্লি সীমান্তের রাস্তায় আন্দোলন শুরু করেছিলেন কৃষকরা। গত দুমাস ধরে তাঁরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছিলেন। কিন্তু গত সাধারণতন্ত্র দিবসে কৃষক আন্দোলনের ট্রাক্টর মিছিল চরম রূপ নেয়। এদিন ব্যারিকেডে ভেঙে ফেলেন বলে কৃষকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। রাজধানীতে ঘটনাকে ঘিরে ছড়ায় হিংসা।

    এই হিংসা না থামাতে পারার জন্য নিজেকে ব্যর্থ বলে মনে করছেন কঙ্গনা। প্রথম দিন থেকেই কৃষক আন্দোলনের উদ্দেশ্য নিয়ে নানা রকমের তির্যক মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী। তাঁর মতে, সুযোগ থাকা সত্ত্বেও, তিনি এই অশান্তি আটকতে পারলেন না। তার জন্য তাঁর মাথা হেঁট হয়ে যাচ্ছে।

    কঙ্গনা টুইট করেন, "আমি বিষয়টিকে এড়িয়ে যেতে চেয়েছিলাম। কিন্তু পারলাম না। লজ্জায় আমার মাথা হেঁট হয়ে যাচ্ছে। আমার দেশের সংহতিকে আমি রক্ষা করতে পারলাম না। আমি কেউ নই। তবুও আমি নিজেকে সকলের সমান মনে করি। কিন্তু আজ আমি ব্যর্থ।"


    এক নেটিজেনের টুইটের উত্তরে এই পোস্ট করেন কঙ্গনা। নেটিজেন লিখেছিলেন, "কঙ্গনা যখন কৃষক আন্দোলনের প্রতিবাদীদের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন তখন তাঁকে যে বলিউডের ট্রোল করছিলেন, তাঁরা আজ কোথায়?"

    কৃষকরা পুলিশকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ২৬ জানুয়ারি তাঁরা শান্তি বজায় রেখে ট্রাক্টর মিছিল করবেন। সেই মতো মিছিলের নির্দিষ্ট রুটও ঠিক করা ছিল। কিন্তু একদল কৃষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তাঁরা নাকি অন্য রাস্তা ধরে লাল কেল্লায় পৌঁছে যান। এই প্রসঙ্গেই কঙ্গনা তাঁর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। মঙ্গলবার একটি ভিডিও শেয়ার করে কৃষকদের শাস্তির দাবি তোলেন তিনি। তিনি সেদিন বলেন, প্রতি মাসে রক্ত, হিংসা এসব দেখে তিনি ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন।

    কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করেছিলেন দিলজিৎ দোসঞ্জ ও প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। তাই তাঁদেরকেও নিশানা করেছেন কঙ্গনা। তিনি টুইট করেন, "আপনাদের বিষয়টিকে বর্ণনা করতে হবে। সারা বিশ্ব আমাদের দেখে আজ হাসছে। এটাই তোমরা চেয়েছিলে তো?"

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: