Juhi Chawla : ২০ লাখের জরিমানা, তুমুল ভর্ৎসনা! জুহি চাওলার 5G মামলা খারিজ করে দিল দিল্লি হাইকোর্ট....

বেকায়দায় জুহি Photo : File Photo

দিল্লি হাইকোর্টের (Delhi High Court) ভর্ত্সনার মুখে পড়লেন অভিনেত্রী জুহি চাওলা (Juhi Chawla)। শুক্রবার ৫জি (5G Case) পরিষেবা নিয়ে দায়ের জুহির মামলা খারিজ করে দিল দিল্লি হাইকোর্ট।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি : দিল্লি হাইকোর্টের (Delhi High Court) ভর্ত্সনার মুখে পড়লেন অভিনেত্রী জুহি চাওলা (Juhi Chawla)। শুক্রবার ৫জি (5G Case) পরিষেবা নিয়ে দায়ের জুহির মামলা খারিজ করে দিল দিল্লি হাইকোর্ট। পরিবেশ ও মানুষের উপর ব্যাপক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলবে ৫জি নেটওয়ার্ক পরিষেবা- এই আবেদন জানিয়ে দিল্লি হাইকোর্টে পিটিশন দায়ের করেছিলেন নব্বইয়ের দশকের এই সাড়া জাগানো নায়িকা। তবে পুরোটাই নাকি পাবলিসিটির জন্য। এদিন এমনই মন্তব্য করে আদালত। এই মামলার জন্য উল্টে অতিরিক্ত ২০ লক্ষ টাকার জরিমানা আরোপ করা হয়েছে জুহির উপর।

    মামলা খারিজ করে মামলাকারী জুহিকে দ্বর্থহীন ভাষায় নিন্দা করে আদালত। শুক্রবার শুনানির সময় আদালত স্পষ্ট জানায়, এই আবেদন অযাচিত এবং ভুলভাল তথ্যে ভরা। বিষয়টি নিয়ে আবেদনকারীর কোনও স্পষ্ট ধারণা নেই। যেহেতু জুহি তাঁর মামলার ভার্চুয়াল শুনানির লিঙ্ক সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন তাই দিল্লি হাইকোর্ট জানায়, মিডিয়ার সামনে প্রচারের আলোয় আসতেই নাকি এই মামলা ঠুকেছেন জুহি।

    চলতি সপ্তাহের শুরুতে অভিনেত্রী জুহি চাওয়ালা এবং সমাজকর্মী বীরেশ মালিক ও টিনা ভকানি ৫জি পরিষেবা চালু না করবার স্বপক্ষে একটি মামলা দায়ের করেন। এই নিয়ে সংবাদ মাধ্যমকে জুহি জানিয়েছিলেন, ‘আমরা দেশের প্রযুক্তগত উন্নতির বিপক্ষে নই। আমরা প্রায় সকলেই বাজারে নতুন আসা ওয়্যারলেস নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আরএফ রেডিয়েশন নিয়ে আমাদের সকলের মধ্যেই একটা দ্বিধা কাজ করে। বেশ কিছু সমীক্ষা ও পরীক্ষা নীরিক্ষার মাধ্যমে এর মধ্যেই আমরা জানতে পেরেছি মানুষ ও পশু-পাখিদের শরীরের জন্য এটা কতটা ক্ষতিকর।’ তাঁর বক্তব্য, 'ভারতে যদি 5G নেটওয়ার্ক চালু করা হয়, তাহলে মানুষ থেকে শুরু করে পশু-পাখি - ৩৬৫ দিন রেডিয়েশন থেকে বাঁচতে পারবে না কেউই।' সেই সঙ্গেই আরও একটি বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে জুহি বলেন, 'রেডিয়েশন এখন আগের চেয়ে ১০ থেকে ১০০ গুণ বেশি হয়ে গিয়েছে। তাহলে এটা আমাদের জন্য কতটা ক্ষতিকারক হতে পারে তা আন্দাজ করাই যায়।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: