৫৮ বছরে পা দিলেন ফাল্গুনী পাঠক, তাঁর গানের ভেলায় চেপে ফিরে যান স্মৃতির দেশে!

৫৮ বছরে পা দিলেন ফাল্গুনী পাঠক, তাঁর গানের ভেলায় চেপে ফিরে যান স্মৃতির দেশে!

৫৮ বছরে পা দিলেন ফাল্গুনী পাঠক, তাঁর গানের ভেলায় চেপে ফিরে যান স্মৃতির দেশে!

কলেজের প্রেম, প্রেমিক-প্রেমিকার খুনসুটি কিংবা মুখ ফোলানো মান-অভিমান, তাঁর গানে ছোট ছোট অভিব্যক্তিগুলো যেন জীবন্ত হয়ে ওঠে।

  • Share this:

#মুম্বই: তাঁর গলা আর মিষ্টি হাসি আজও দর্শক মনে গেঁথে রয়েছে। বিশেষ করে যাঁরা নব্বইয়ের দশকে বেড়ে উঠেছেন, এই গায়িকার গানের ভেলা বেয়ে আজও তাঁরা এক অদ্ভুত নস্টালজিয়ায় ফিরে যান। কলেজের প্রেম, প্রেমিক-প্রেমিকার খুনসুটি কিংবা মুখ ফোলানো মান-অভিমান, তাঁর গানে ছোট ছোট অভিব্যক্তিগুলো যেন জীবন্ত হয়ে ওঠে। ফাল্গুনী পাঠক (Falguni Pathak)। ১৯৬৪ সালে আজকের দিনে (১২ মার্চ) জন্মেছিলেন তিনি।

মাত্র ন'বছর বয়সে লায়লা ও লায়লা গানে মঞ্চে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন। সেই শুরু। গান গাওয়া, সুর দেওয়া, মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় থেকে শুরু করে নানা অবতারে বার বার দর্শকদের মন জিতে নিয়েছেন তিনি। গুজরাতের ভদোদরার মেয়ে নিজের গানের মধ্য দিয়ে গুজরাতের লোকসঙ্গীতকে এক নতুন অবয়বে ফিরিয়ে এনেছিলেন। ডান্ডিয়া হোক বা নবরাত্রি, আজও ফাল্গুনী পাঠকের গানের জুড়ি মেলা ভার।

আজ ৫৮ বছরে পা দিলেন তিনি। আসুন ফিরে দেখা যাক ফাল্গুনী পাঠকের কিছু জনপ্রিয় গানের তালিকা।

ম্যায়নে পায়েল হ্যায় ছনকাই (Maine Payal Hai Chhankai)

সেই পুতুল নাচের দৃশ্য। প্রেমিক-প্রেমিকার খুনসুটি। আজও সমান জনপ্রিয় ফাল্গুনী পাঠকের গাওয়া এই গান। ১৯৯৯ সালে মুক্তি পায় ম্যায়নে পায়েল হ্যায় ছনকাই গানটি। সেবার MTV ইন্ডিয়ায় ইন্টারন্যাশনাল ভিউয়ারস চয়েস অ্যাওয়ার্ড পান তিনি। গোটা একটা প্রজন্ম এই গান গুনগুনিয়ে বড় হয়ে উঠেছে। আজও ভোল যায় না সেই সুর।

চুড়ি জো খনকি হাতোঁ মে (Churi Jo Khanki Haaton mein)

চুড়ি জো খনকি হাতোঁ মে, ইয়াদ পিয়া কি আনে লাগি...। আজও এক আলাদা ফ্যান বেস রয়েছে এই গানটির। অ্যালবামের নাম ইয়াদ পিয়া কি আনে লাগি। ১৯৯৮ সালে মুক্তি পেয়েছিল গানটি। নীল লেহঙ্গাতে রিয়া সেনকেও (Riya Sen) বেশ মানিয়েছিল। গানের স্টেপগুলি সেই সময়ে দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল।

মেরি চুনর উড় উড় যায়ে (Meri Chunar Udd Udd Jaye)

গানটির মধ্যে গল্প বলার ধরণ দর্শকদের মন জিতে নিয়েছিল। গানে অভিনয় করতে দেখা যায় আয়েশা টাকিয়া (Ayesha Takia) ও তৃষ্ণা কৃষ্ণণকে (Trisha Krishnan)। গানটির সিগনেচার মুভ ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছিল। ২০০০ সালে মুক্তি পায় মেরি চুনর উড় উড় যায়ে। সেই সূত্রে আরও একবার MTV ইন্ডিয়ায় ইন্টারন্যাশনাল ভিউয়ারস চয়েস অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন পেয়েছিল গানটি।

ইয়ে কিসনে জাদু কিয়া (Yeh Kisne Jadoo Kiya)

২০০২ সালে মুক্তি পায় গানটি। অ্যালবামের নাম ইয়ে কিসনে জাদু কিয়া (Yeh Kisne Jadoo Kiya)। কলেজ স্মৃতির চেনা গলিতে ফিরিয়ে নিয়ে যায় এই গান। গানের ভিডিওতে আমনা শরিফকে (Aamna Sharif) অভিনয় করতে দেখা যায়। ভিডিওতে দেখা যায়, নায়িকা তার কলেজের প্রফেসরের প্রেমে পড়েছে।

ও পিয়া লেকে ডোলি আ (O Piya leke doli aa)

২০০১ সালে মুক্তি পায় গানটি। অ্যালবামের নাম ও পিয়া। প্রেমিক-প্রেমিকার খুনসুটি, মন কেমন আর পাগলামিগুলোকে দারুণ ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছিল গানের ভিডিওতে। ফাল্গুনী পাঠকের গলা বাড়তি পাওনা। ভিডিওতে দেখা যায়, দড়ির উপরে ভর করে এক জ্যোৎস্না রাতে প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছে তার প্রেমিকা।

আইয়ো রামা হাত সে (Aiyo Rama Haat se)

২০০০ সালে মুক্তি পায় গানটি। অ্যালবামের নাম মেরি চুনর উড় উড় যায়ে (Meri Chunar Udd Udd Jaye)। দিব্যা কুমার খোসলা (Divya Kumar Khosla) গানের ভিডিওয় দর্শকদের নজর কেড়েছিলেন।

Published by:Debalina Datta
First published: