আবার অশনি সঙ্কেত কার্তিক আরিয়ানের কেরিয়ারে! এই নিয়ে তিনবার হাতছাড়া হল বিগ বাজেট ছবি!

একের পর এক ছবি হাতছাড়া কার্তিকের ।

ছবি থেকে সরে যাওয়া, বাদ পড়া, শ্যুটিং করেও মাঝপথে ছবি ছেড়ে দেওয়া বলিউডে নতুন নয়। কিন্তু একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে মনে প্রশ্ন জাগে।

  • Share this:

#মুম্বই: বছর সাতেকের সংগ্রামের পর উল্কা গতিতে উত্থান হয়েছিল কার্তিক আরিয়ানের (Kartik Aaryan)। পরের পর হিট ছবি, নামি দামি ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন সব মিলিয়ে রাতারাতি মহাতারকা হয়ে উঠেছিলেন তিনি। সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) মৃত্যুর পড়ে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠা স্বজনপোষণ বিতর্কে একজন বহিরাগতের এ হেন সাফল্য ছিল চমকে দেওয়ার মতো। কিন্তু এখন পরিস্থিতি যা দাঁড়িয়েছে তাতে কার্তিকের অনুরাগীরা বলছেন যে, এই অভাবনীয় সাফল্যই কাল হয়েছে অভিনেতার। বলিউডের মাথারা এসব মোটেই ভাল চোখে দেখছেন না। এখানে ইঙ্গিত করণ জোহর (Karan Johar) ও শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) প্রতি।

মূলত এঁদের দু'জনের ছবি থেকে বাদ পড়া দিয়েই কার্তিককে নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত হয়। বেশ কিছুটা অংশ শ্যুটিং করার পরেও আচমকা করণের দোস্তানা ২ (Dostana 2) থেকে বাদ পড়েন কার্তিক। সম্ভবত পরিচালক ও নায়কের মধ্যে টাকাপয়সা নিয়ে কিছু গোলমাল হয়েছিল। এই ছবিতে যুক্ত হওয়ার সময় কার্তিক সেই অর্থে সুপারস্টার ছিলেন না। কিন্তু এখন তাঁর মার্কেট ভ্যালু আকাশছোঁয়া। সেই অনুযায়ী পারিশ্রমিকে রদবদল করতে বলেন তিনি। আরে এতেই বেঁকে বসেন করণ। দোস্তানা ২-এর প্রায় পর পরই শাহরুখ খানের রেড চিলি এন্টারটেনমেন্টের (Red Chillies Entertainment) ছবি ফ্রেডি (Freddy) থেকে সরে দাঁড়ান কার্তিক।

সূত্রের খবর কার্তিকের ছবির নায়িকা ক্যাটরিনা কাইফকে (Katrina Kaif) নিয়ে আপত্তি ছিল। তাঁর মনে হয়েছিল ক্যাট তাঁর চেয়ে বয়সে বেশ কিছুটা বড়। ফলে পর্দায় তাঁদের একসঙ্গে দেখতে মোটেই ভাল লাগবে না। তবে এখানেই থেমে থাকেননি কার্তিক। তিনি না কি ছবির চিত্রনাট্যে বদল চেয়েছিলেন। সমস্যা ছিল পরিচালকের সঙ্গেও।

তবে কার্তিকের শুভাকাঙ্ক্ষীরা বলছেন অন্য কথা। তাঁদের কথা অনুযায়ী ধমাকার (Dhamaka) পর একই গোত্রের থ্রিলার ছবি করতে চাননি কার্তিক। সেই জন্য নিজেই সরে এসেছেন তিনি। যদিও কার্তিকের অনুরাগীদের মতে এসব কিছুই নয়, আসলে করণ তাঁর বিশেষ বন্ধু শাহরুখকে প্রণোদিত করেছেন কার্তিককে ছবি থেকে বাদ দিতে!

ছবি থেকে সরে যাওয়া, বাদ পড়া, শ্যুটিং করেও মাঝপথে ছবি ছেড়ে দেওয়া বলিউডে নতুন নয়। কিন্তু একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে মনে প্রশ্ন জাগে। আনন্দ এল রাইয়ের (Anand L Rai) আগামী ছবিতে কাজ করার কথা প্রায় পাকা হয়ে গিয়েছিল কার্তিকের। কিন্তু আনন্দ সম্প্রতি জানিয়েছেন যে তিনি এই চরিত্রে আয়ুষ্মান খুরানার (Ayushman Khurana) কথা ভাবছেন। চিত্রনাট্য ও ন্যারেশান শুনে এই গ্যাংস্টার ছবি করতে রাজি হয়েছিলেন তিনি কার্তিক। এর পরেও কেন বাদ পড়লেন, সেই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। আনন্দ অবশ্য বলেছেন, কোনও অভিনেতাকে ছবির গল্প শোনানো মানেই তাঁকে ছবিতে নেওয়া নয়!

First published: