corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফের বিতর্কে সাজিদ খান!‌ নাবালিকা মডেলের শরীরে হাত, নগ্ন হতে বলেছিলেন সামনেই

ফের বিতর্কে সাজিদ খান!‌ নাবালিকা মডেলের শরীরে হাত, নগ্ন হতে বলেছিলেন সামনেই

এরপর শাস্তির দাবি করেছেন পাওলা। তিনি বলেছেন, সাজিদ খানের জায়গা শুধুমাত্র জেলে। এটা শুধু কাস্টিং কাউচের মতো অপরাধ নয়। একজন নাবালিকার সমস্ত আশা, ভরসা ছিনিয়ে নেওয়াও অপরাধ।

  • Share this:

মুম্বই:‌ ফের বিতর্কের মুখে পড়লেন বলিউডের চলচ্চিত্র পরিচালক সাজিদ খান। যখন বলিউডে মিটু আন্দোলনের ঝড় উঠেছিল, তখন একাধিক বড় অভিযোগ উঠেছিল সাজিদের বিরুদ্ধে। এবার অভিযোগ করলেন এক নাবালিকা মডেল। তিনি বললেন, ছবিতে কাজ পাইয়ে দেওয়ার জন্য সামনেই তাঁকে নগ্ন হতে বলেছিলেন সাজিদ। এতদিন বাদে ফের সাজিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে নতুন করে মিটু আন্দোলনের ঢেউ তুললেন মডেল পাওলা।

তিনি ইনস্টগ্রামে লিখেছেন, “যখন #মিটু ঝড় ওঠে তখন ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই সাজিদ খানের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন। আমি কিছু বলার সাহস পাইনি। কারণ ইন্ডাস্ট্রিতে আমার কোনও গডফাদার ছিল না। আমার পরিবারের জন্য রোজগার করার দরকার ছি‌ল। এখন আমার সঙ্গে আমার পরিবার নেই। তাই আজ বলতে আমার বিন্দুমাত্র দ্বিধা নেই যে, ১৭ বছর বয়সে, নাবালিকা অবস্থায় ওই পরিচালক আমায় শারীরিক নির্যাতন করেছিল”। এটুকু অভিযোগ করেই থেমে থাকেননি পাওলা। তিনি লেখেন, হাউজফুল ছবির চরিত্র পাইয়ে দেওয়ার নাম করে তাঁকে নোংরা কথা বলতেন সাজিদ। ইচ্ছার বিরুদ্ধে শরীরের নানা জায়গায় হাত দিতেন। এমনকী শেষে একদিন সামনেই জামাকাপড় খুলে নগ্ন হওয়ার প্রস্তাবও দেন তিনি। সাজিদ বলেছিলেন, একমাত্র নগ্ন হলেই তাঁকেই বিশেষ চরিত্রে নেওয়া হবে। দশ বছর বাদে তিনি মুখ খুললেন, কেন?‌ পাওলা বলেছেন, তখন তাঁর মাথার উপর কেউ ছিল না। ছিল না কোনও গডফাদার। তাই চুপ করে থাকতে হয়েছিল।

এরপর শাস্তির দাবি করেছেন পাওলা। তিনি বলেছেন, সাজিদ খানের জায়গা শুধুমাত্র জেলে। এটা শুধু কাস্টিং কাউচের মতো অপরাধ নয়। একজন নাবালিকার সমস্ত আশা, ভরসা ছিনিয়ে নেওয়াও অপরাধ। সেই কারণেই সাজিদের জেল হওয়া দরকার। না হলে গণতন্ত্র শেষ হবে। পাওলা বলছেন, এখনই তার মুখ খোলা দরকার ছিল, তাই খুলেছেন তিনি।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: September 14, 2020, 1:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर