• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • 'দুনিয়ার সেরা ফেমিনিস্ট তুমি, দেখা হচ্ছে সেটে', অনুরাগ কাশ্যপের হয়ে আসরে তাপসী পান্নু

'দুনিয়ার সেরা ফেমিনিস্ট তুমি, দেখা হচ্ছে সেটে', অনুরাগ কাশ্যপের হয়ে আসরে তাপসী পান্নু

তাপসীকে পাশে পেয়ে গেলেন অনুরাগ কাশ্যপ।

তাপসীকে পাশে পেয়ে গেলেন অনুরাগ কাশ্যপ।

অনুরাগকে ক্লিনচিট তো দিলেনই, তাপসীর সার্টিফিকেট , অনুরাগ দুনিয়ার সেরা ফেমিনিস্ট।

  • Share this:

    #মুম্বই: কাঠগড়ায় অনুরাগ কাশ্যপ। জেন ওয়াইয়ের নয়নের মণি অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন, ‘প্যাটেল কি পঞ্জাবি’ বা ‘সাথ নিভানা সাথিয়া’ টিভি শো-র অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ। আর এই অভিযোগকে ঘিরেই দু'ভাগ নেটদুনিয়া। একদল বলছেন অনুরাগ এ কাজ করতেই পারেন না, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবেই কাদা ছোড়া হচ্ছে। দ্বিধান্বিত অন্য পক্ষ। এই অবস্থায় আসরে নামলেন তাপসি পান্নু। অনুরাগকে ক্লিনচিট তো দিলেনই, তাপসীর সার্টিফিকেট , অনুরাগ দুনিয়ার সেরা ফেমিনিস্ট।

    এদিন ইন্সটাগ্রামে তাঁর এবং অনুরাগের একটি ছবি শেয়ার করেন তাপসী। ছবিটিতে দেখা যায় তাপসী ও অনুরাগ হাঁটছেন। তাঁর কাঁধে তাপসীর হাত। অনেকটা চিঠির কায়দায় তাপসী লেখেন, "এইটা তোমার জন্য বন্ধু। আমার চেনা দুনিয়ার সবচেয়ে বড় ফেমিনিস্ট। আবার এমন কোনও ছবির সেটে দেখা হবে শিগগির যেখানে তুমি এমন কোনও মহিলা চরিত্র সৃষ্টি করবে যেখানে দেখা যাবে মহিলারা কতটা শক্তিশালী।"

    ঘটনার সূত্রপাত শনিবার। ট্যুইটারে পায়েল লেখেন, ‘‘ অনুরাগ কাশ্যপ আমার উপর অত্যন্ত খারাপভাবে জোরজবরদস্তি করেন ৷ @PMOIndia @narendramodi ji দয়া করে ওকে শাস্তি দেওয়া হোক ৷ গোটা দেশ জানুক ওর আসল চেহারাটা ৷ আমি জানি এই অভিযোগ আনায় তার প্রভাব পড়বে আমার নিরাপত্তার উপরও ৷ দয়া করে আমায় সাহায্য করুন ! ’’ প্রধানমন্ত্রীকে এই ট্যুইটে ট্যাগও করা হয়। জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মা এরপর পায়েলের ট্যুইটের রিপ্লাইতে লেখেন, ‘‘ আপনি আমাকে এই সংক্রান্ত অভিযোগ বিস্তারিত জানাতে পারেন chairperson-ncw@nic.in এবং @NCWIndia-এ লিখে ৷

    পায়েলের এই ঘটনায় কঙ্গনা রানওয়াতের যোগ দেখতে পেয়েছেন অনুরাগ। এই মর্মে অনুরাগ মুখ খোলেন। পরপর বেশ কয়েকটি ট্যুইটে তিনি দাবি করেন, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন৷ অনুরাগ এও বলেন,যদি দু'বার বিয়ে করা অন্যায় হয়, তাহলে আমি অপরাধী।

    Published by:Arka Deb
    First published: