উৎসাহ দিচ্ছেন দেশের যুবকদের ধর্ষণে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ধিক্কারের মুখে আমিরা দস্তুর!

উৎসাহ দিচ্ছেন দেশের যুবকদের ধর্ষণে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ধিক্কারের মুখে আমিরা দস্তুর!

উৎসাহ দিচ্ছেন দেশের যুবকদের ধর্ষণে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ধিক্কারের মুখে আমিরা দস্তুর!

সেলিব্রিটিরাও যে তাঁদের পোশাক নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অশ্লীল মন্তব্যের মুখে পড়েন, সেটা বার বার দেখা গিয়েছে!

  • Share this:

#মুম্বই: ব্যাপারটা ভালো না খারাপ, সে প্রশ্ন উঠবে পরে! কিন্তু এই নিয়ে কোনও সন্দেহই নেই যে ভারতের মতো তৃতীয় বিশ্বের দেশে যে কোনও ব্যাপারেই মেয়েদের কোণঠাসা করাটা দস্তুর! সমাজ এই ব্যাপারে খুব একটা বদলায়নি! ইচ্ছা মতো পোশাক পরার স্বাধীনতা এখনও এই দেশের মেয়েরা অর্জন করতে পারেননি। একমাত্র তাঁরাই পারেন, যাঁদের সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষী থাকে। কিন্তু সেই সব সেলিব্রিটিরাও যে তাঁদের পোশাক নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অশ্লীল মন্তব্যের মুখে পড়েন, সেটা বার বার দেখা গিয়েছে!

এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের পোশাকের জন্য ট্রোলড হলেন নবাগতা আমিরা দস্তুর (Amyra Dastur)। আপাতত Instagram-এ চলছে ডোন্ট রাশ চ্যালেঞ্জ, সেখানেই হিসসা নিয়ে বন্ধুর সঙ্গে একটি নাচের ভিডিও পোস্ট করেছিলেন আমিরা। সেই ভিডিওয় তাঁকে আর তাঁর বন্ধুকে দেখা গিয়েছে ডেনিম হট প্যান্টে, ট্যাঙ্ক টপ আর হাই হিলে তাঁদের নাচের স্টেপ ঝড় তুলেছে ভক্তদের মনে। সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ভিডিওটির ভিউ ৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গিয়েছে।

কিন্তু সবাই তো আর ভক্ত নন! তাই জনৈক পুরুষ আমিরা এবং তাঁর বন্ধুর পোশাক নিয়ে কুৎসিত মন্তব্য করলেন। প্রথমে তিনি এক দফা সমালোচনা করেছেন আমিরাদের পোশাক বেছে নেওয়ার মানসিকতাকে। তার পর জানিয়েছেন যে মহিলাদের এই ধরণের আচরণই পুরুষদের ধর্ষণে উৎসাহ দেয়। আমিরা এত খোলামেলা পোশাক পরেছেন যে এর পর তাঁকে ধর্ষণ করতে কেউ উদ্যত হলে সেই পুরুষের কোনও দোষ থাকবে না! সেই ব্যক্তিটি এও দাবি করেন যে এরকম পোশাক পরে জনসমক্ষে আসা উচিত নয়!

আমিরা কিন্তু এই কমেন্টের জুতসই রিপ্লাই দিতে ছাড়েননি! তিনি এই ব্যক্তিকে যেন তাঁর কমেন্টের প্রতিটি শব্দ দিয়ে চাবকেছেন! আমিরা লিখেছেন যে ধর্ষিতা হওয়ার জন্য আদতে মেয়েদের পোশাক নয়, পুরুষের কদর্য মানসিকতা দায়ী। পাশাপাশি এটাও বলতে ছাড়েননি তিনি যে ছেলেরা এবার কী পরবে, কোথায় যাবে, কী খাবে এই সব নিয়ে মেয়েদের উপদেশ দেওয়া বন্ধ করুক! একটা কাজই কেবল করতে পারে ছেলেরা আর তা হল মেয়েদের সম্মান করা এবং ধর্ষণ না করা!

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর