Amitabh Bachchan: 'একাই যা টাকা দিয়েছি তা অন্যদের ত্রাণ সংগ্রহের সমান', করোনাকালে অর্থ সাহায্য নিয়ে যা বললেন অমিতাভ

কোনও ত্রাণ তহবিল গড়েননি করোনার জন্য। বিগবি জানালেন, নিজে সামর্থ মতো অর্থ প্রদান করলেও, তাঁর অন্যদের থেকে টাকা চাইতে অস্বস্তি হয়।

কোনও ত্রাণ তহবিল গড়েননি করোনার জন্য। বিগবি জানালেন, নিজে সামর্থ মতো অর্থ প্রদান করলেও, তাঁর অন্যদের থেকে টাকা চাইতে অস্বস্তি হয়।

  • Share this:

    #মুম্বই: করোনায় (Corona) বহু অভিনেতাই ত্রাণ তহবিলে অর্থ দিচ্ছেন। আবার অনকেই নিজেরা ত্রাণ তহবিল গড়ে অর্থ সংগ্রহ করে তা সংশ্লিষ্ট জায়গায় পৌঁছে দিচ্ছেন। এই প্রসঙ্গে এবার নিজের ব্লগে লিখলেন অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan)। বললেন নিজে অর্থ দিয়ে সাহায্য় করলেও কেন কোনও ত্রাণ তহবিল গড়েননি করোনার জন্য। বিগবি জানালেন, নিজে সামর্থ মতো অর্থ প্রদান করলেও, তাঁর অন্যদের থেকে টাকা চাইতে অস্বস্তি হয়।

    নিজে অর্থ প্রদান করেছেন বিগবি। সে কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন। নেটিজেনরা সে কারণে তাঁকে ট্রোলও করেছেন। কিন্তু অমিতাভ শনিবার তাঁর ব্লগে লিখেছেন, প্রশংসা পাওয়ার জন্য তিনি নিজের অর্থ প্রদান করার কথা শেয়ার করছেন না। সত্যিই যে সাহায্য করা হচ্ছে এবং তিনি কোনও ফাঁকা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন না তা বোঝানোর জন্যই শেয়ার করছেন।

    তিনি লিখছেন, আমি যেখানে পারছি অর্থ দিচ্ছি। আমার অর্থ সত্যিই সীমিত। দেখে তা মনে হয় না। কিন্তু সত্যই তাই। তিনি আরো লিখেছেন, আমি ত্রাণ তহবিল তৈরি করে প্রচারের মাধ্য়মে অর্থ সংগ্রহ করিনি। ফান্ডে অর্থ দেওয়ার জন্য টাকা চাইতে আমার অস্বস্তি বোধ হয়। যদিও সরকারি বিজ্ঞাপনে এই কাজ করেছেন, এও স্বীকার করেন বিগবি। কিন্তু বাস্তবে সরাসরি অর্থ সাহায্যের জন্য তিনি বলতে অস্বস্থি বোধ করেন।

    এই সময়ে অন্যান্য বহু তারকাই ফান্ড তৈরি করে অর্থ সংগ্রহ করছেন। বিগবি লিখছেন, শ্রদ্ধা ও বিনয়ের সঙ্গে বলছি, কিছুক্ষেত্রে আমি একা যা টাকা দিয়েছি তা ওই প্রচারের মাধ্যমে তৈরি তহবিলের অর্থের সমান। আমি অন্যের কাছে চাইনি। নিজেই দিয়েছি। অমিতাভ সম্প্রতি তাঁর ব্লগের মাধ্যমেই জানিয়েছিলেন তিনি করোনাক ত্রাণে নিজে ২৫ কোটি টাকা দিয়েছেন।

    অন্যদিকে অভিনেত্রী অনুষ্কা শর্মা ও ক্রিকেটার বিরাট কোহলি করোনার জন্য ত্রাণ তৈরি করেছেন। তাঁরা নিজেরা ২ কোটি টাকা দিয়েছেন এবং এছাড়াও অর্থ সংগ্রহ করেছেন। নিজেদের সাহায্য মিলিয়ে মোট টাকা উঠেছে ১১ কোটি টাকা।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: