Amitabh Bachchan: দিল্লির গুরুদ্বারের করোনা-তহবিলে ২ কোটি অর্থ সাহায্য অমিতাভের

অমিতাভ বচ্চন।

এই পরিস্থিতিেত অনেক সেলিব্রিটিই এগিয়ে এসেছেন সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে। এবার সেই তালিকায় ঢুকে পড়লেন বলিউডের শাহেনশা অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan)।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দেশজুড়ে করোনাভাইরাসের সংকট (Coronavirus Crisis)। এই পরিস্থিতিেত অনেক সেলিব্রিটিই এগিয়ে এসেছেন সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে। এবার সেই তালিকায় ঢুকে পড়লেন বলিউডের শাহেনশা অমিতাভ বচ্চন (Amitabh Bachchan)। দিল্লির রাকাব গঞ্জ গুরুদ্বারের কোভিড-কেয়ার তহবিলে ২ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন বিগ বি। সোমবার থেকেই এই কমিটি কাজ করা শুরু করবে। অমিতাভের এই অনুদানের কথা জানিয়েছেন, দিল্লি শিখ গুরুদ্বারা ম্যানেজমেন্ট কমিটির প্রেসিডেন্ট মনজিন্দার সিং সিরসা।

    প্রেসিডেন্ট মনজিন্দার সিং সিরসা যিনি অকালি দল পার্টির মুখপাত্রও, তিনি জানিয়েছেন, 'শিখদের কাজের জন্য তাঁদের স্যালুট। শ্রী গুরু তেঘ বাহাদুর কোভিড কেয়ার ফেসিলিটিতে ২ কোটি টাকা অনুদান দেওয়ার সময় এমন কথাই বলেছেন অমিতাভ বচ্চন।' এর পাশাপাশি বিদেশ থেকে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর আনা হবে এই তহবিলের টাকায়, সে ব্যাপারেও নিশ্চিত হয়েছেন অমিতাভ।

    প্রেসিডেন্ট সিরসা বলেছেন, 'দিল্লি যখন অক্সিজেনের অভাবে ধুঁকছে, সেই সময় অমিতাভজি আমাকে ফোন করে জানতে চেয়েছিলেন আমাদের কাজ কতদূর এগিয়েছে।' এই রাকাব গঞ্জ গুরুদ্বার সোমবার থেকে খুলে যাচ্ছে। এখানে ৩০০টি বেড, অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, ডাক্তার, প্যারামেডিক্স ও অ্যাম্বুল্যান্সের পরিষেবা থাকবে। এখানে আসা রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দেওয়া হবে।

    অন্যদিকে, স্ত্রী অনুষ্কা শর্মাকে সঙ্গে নিয়ে ভারতে কোভিড রিলিফের কাজে নেমে পড়েছেন বিরাট কোহলিও। Ketto র অর্থ সংগ্রহের জন্য নিজের ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও বার্তা দেন তাঁরা। যেখানে এই সেলিব্রিটি যুগল দেশের করোনা পরিস্থিতির কথা সকলকে জানান। এবং সকলকে এক হয়ে লড়াই করার পরামর্শ দেন। তাঁরা জানান, কোনও অর্থই ক্ষুদ্র নয়, এই সময় সকলকে সকলের পাশে থেকে লড়াই করতে হবে। এবং আমরা এই লড়াই জিতবই। কেটো মারফত তাঁরা অর্থ সংগ্রহের কথা জানান। তবে আগেই নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতে এই উদ্যোগের কথা জানিয়েছিলেন অনুষ্কা শর্মা। পরে স্বামী স্ত্রী মিলে এই লড়াইয়ের জন্য মাঠে নামেন। একটি ভিডিও বার্তাও দেন তাঁরা।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: