• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • আত্মহত্যা নাকি ঠাণ্ডা মাথায় খুন! সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়ে সন্দেহ AIIMS-এর

আত্মহত্যা নাকি ঠাণ্ডা মাথায় খুন! সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়ে সন্দেহ AIIMS-এর

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু কীভাবে হয়েছিল ? এই প্রশ্নের উত্তরের অপেক্ষায় গোটা দেশবাসী! গত ১৪ জুন দেহ উদ্ধারের পর মুম্বইয়ের কুপার হাসপাতালের মর্গেই সুশান্তের ময়নাতদন্ত হয়। ১৫ জুন কুপার হাসপাতালের ৫ চিকিৎসকের একটি টিম জানান, অ্যাসফ্যাক্সিয়া অর্থাৎ বেশিক্ষণ ঝুলন্ত অবস্থায় থাকার কারণেই মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার। কিন্তু পুলিশের এহেন দাবি মেনে নেননি সুশান্তের পরিবার, অনুরাগীরা। বারবার সামনে এসেছে একাধিক অসঙ্গতি।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু কীভাবে হয়েছিল ? এই প্রশ্নের উত্তরের অপেক্ষায় গোটা দেশবাসী! গত ১৪ জুন দেহ উদ্ধারের পর মুম্বইয়ের কুপার হাসপাতালের মর্গেই সুশান্তের ময়নাতদন্ত হয়। ১৫ জুন কুপার হাসপাতালের ৫ চিকিৎসকের একটি টিম জানান, অ্যাসফ্যাক্সিয়া অর্থাৎ বেশিক্ষণ ঝুলন্ত অবস্থায় থাকার কারণেই মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার। কিন্তু পুলিশের এহেন দাবি মেনে নেননি সুশান্তের পরিবার, অনুরাগীরা। বারবার সামনে এসেছে একাধিক অসঙ্গতি।

সূত্রের খবর আজ অর্থাৎ মঙ্গলবার সুশান্ত সিং রাজপুতের দেহের ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ঠিক-ভুল নিয়ে বিস্তারিত কথাবার্তা হয়েছে এইমস-এর চিকিৎসক এবং সিবিআই প্রতিনিধিদের মধ্যে

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: অবশেষে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর কার্যকারণ বিষয়ে নিজেদের মতামত জানাল অল ইন্ডিয়া ইন্সটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সের বিশেষজ্ঞদল। চিকিৎসক সুধীর গুপ্তর নেতৃত্বে সুশান্ত সিং রাজপুতের নেতৃত্বে অটোপসি রিপোর্ট ও ভিসেরা রিপোর্ট খতিয়ে দেখতে এই বিশেষ দলটি তৈরি করা হয়েছিল। সিবিআইকে তাঁরা তাদের পর্যবেক্ষণের কথা জানিয়েছে।

    সূত্রের খবর আজ অর্থাৎ মঙ্গলবার সুশান্ত সিং রাজপুতের দেহের ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ঠিক-ভুল নিয়ে বিস্তারিত কথাবার্তা হয়েছে এইমস-এর চিকিৎসক এবং সিবিআই প্রতিনিধিদের মধ্যে।

    মুম্বইয়ের ক্যুপার হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছিল সুশান্ত আত্মহত্যাই করেছেন। সূত্রের খবর এই রিপোর্ট নিয়ে দ্বিধাই জানিয়েছে এইমএস-এর চিকিৎসক প্যানেল। প্যানেলের প্রশ্ন, যদি কেউ গলায় ফাঁস দেয় তবে তার ঘাড়ের ওপর দিকে সেই ফাঁসটি থাকবে। সুশান্তের ক্ষেত্রে তা নীচে ঝুলে গেল কী করে? সেক্ষেত্রে কী করে এত তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্তে পৌঁছে যাওয়া গেল? কোনও 'ফাউল প্লে; হয়নি তো?

    ক্যুপার হাসপাতালের পাশাপাশি মুম্বইয় পুলিশের দাবি নিয়েও ধোঁয়াশা রয়েছে। সেই ধোঁয়াশার কথাও সিবিআই-কে জানিয়েছেন এইমস-এর বিশেষজ্ঞরা। বোর্ডের আরও প্রশ্ন, কেন অটোপসি রিপোর্টে মৃত্যুর সময় নেই!

    ১৪ জুন সুশান্ত সিং রাজপুতের ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়। মুম্বই পুলিশ প্রাথমিক তদন্তের পর আত্মহত্যা তত্ত্ব খাড়া করার চেষ্টা করলেও বাধ সাধে সিবিআই। নতুন করে তদন্ত শুরু করে তারা। এইএমএস-এর বিশেষজ্ঞ দলকে পুনরায় অটোপসি রিপোর্ট ও ভিসেরা রিপোর্ট যাচাই করতে পাঠানো হয়।

    বলা হচ্ছে এইমএস-এর রিপোর্টে নাকি এমনও বলা হয়েছে, কেন জনতার দাবি শোনা হল না! এক্ষেত্রে অবশ্য প্রশ্ন থাকছে , একটি মেডিক্যাল রিপোর্টের সঙ্গে জনতার দাবির কী সম্পর্ক!

    গত সপ্তাহেই সুশান্তের পরিবারের আইনজীবী বিকাশ সিং ট্যুইটারে লেখেন, এইমস-এর এক চিকিৎসক যিনি ওই বিশেষজ্ঞ দলেরই অংশ নাকি তাঁকে বলেছেন, সুশান্তের ছবিগুলি দেখে ২০০ শতাংশ নিশ্চিত হওয়া য়ায় ওটা আত্মহত্যা নয়, হত্যাই ছিল।

    অন্য দিকে রিয়া চক্রবর্তীর আইনজীবী সতীশ মানেশিণ্ডে বলেন সবটাই সাজানো হচ্ছে বিহার ভোটের কথা মাথায় রেখে। নিরপেক্ষতার খাতিরে সিবিআই-এর উচিত একটি নতুন মেডিক্যাল বোর্ড তৈরি করা।

    Published by:Arka Deb
    First published: