বিনোদন

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুশান্তের খুন হননি, AIIMS-এর রিপোর্ট নিয়ে এবার যা বললেন সুশান্তের দিদি...

সুশান্তের খুন হননি, AIIMS-এর রিপোর্ট নিয়ে এবার যা বললেন সুশান্তের দিদি...

খুনের ত্বত্ত্ব উড়িয়ে দিয়ে AIIMS-র রিপোর্ট বলছে সুশান্ত আত্মহত্যাই করেছেন৷ এই মর্মে CBI-কে রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে৷

  • Share this:

#মুম্বই: ভাইয়ের মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে উদগ্রীব সুশান্তের দিদি৷ তবে শুধু তিনিই নন, গোটা রাজপুত পরিবারই জানতে চান যে কীভাবে মৃত্যু হল প্রতিষ্ঠিত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের৷ এখন তাই CBI-র রিপোর্টের দিকে তাঁদের নজর৷ এর আগে যদিও AIIMS-র পক্ষ থেকে তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে সুশান্তকে খুন বা তাঁকে কোনও কিছু খাইয়ে হত্যার ত্বত্ত্ব উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে৷ তাদের রিপোর্টে মোটের ওপর উল্লেখ করা হয়েছে যে আত্মহত্যাতে মৃত্যু হয়েছে সুশান্তের৷

তবে এরপরই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেন সুশান্তের দিদি স্বেতা৷ সেখানে তিনি বলছেন যে সিবিআই-এর ওপর নজর রয়েছে৷ সত্যি সামনে আসবে, দাবি তাঁর৷ তিনি আরও বলেন যে সুশান্ত ভক্তরা সেটাই প্রর্থনা করুন যেন তাদের প্রিয় অভিনেতার মৃত্যুর আসল কারণ সামনে আসে৷ এতে তিনি হ্যাশট্যাগ দিয়েছেন #AllEyesOnCBI ৷ এই পোস্টটি আবার সমর্থন করেছেন অঙ্কিতা লোখান্ডে৷ তিনি এটা রিপোস্ট করেছেন৷

AIIMS- এর সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্তের ভারপ্রাপ্ত চিকিৎসক সুধীর গুপ্তা জানান, "সুশান্তের শরীরে কোনও আঘাতের চিহ্ন ছিল না। শরীরে কোনওরকম মারপিটের আঘাত বা চিহ্নও পাওয়া যায়নি। এমনকি সুশান্ত মৃত্যুর সময় যে কাপড় পরে ছিলেন তাতেও কোনও রকম এই ধরণের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। খুনের কোনও রকম চিহ্ন কোথাও নেই। সুশান্তের ২০ শতাংশ ভিসেরা নিয়ে পরীক্ষা করে AIIMS। এ ছাড়াও অভিনেতার একটি ল্যাপটপ, ক্যামেরা, কিছু হার্ড ডিস্ক এবং দু'টি ফোন থেকে তথ্যপ্রমাণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করে ফরেন্সিক সংস্থা। সমস্ত তথ্য প্রমাণ দিয়ে তাঁরা জানিয়েছেন সুশান্ত আত্মহত্যা করেছেন। খুন করা হয়নি তাঁকে। এর আগে কুপার হাসপাতালও একই দাবি করেছিল। আপাতত এই রিপোর্ট সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে এবার সিবিআই। তবে সুশান্তের মৃত্যু কোনও ভাবেই খুন নয়।

এর পরই ঝড় ওঠে কঙ্গনার ট্যুইট ঘিরে। কঙ্গনা লেখেন, " একদিন সকালে উঠে এক তরতাজা ট্যালেন্টেড স্টার কখনই নিজের মৃত্যু ডেকে আনবে না। নিজেকে মেরে ফেলবে না। সুশান্ত বলেছিল ও ওঁর জীবন নিয়ে ভয় পাচ্ছে। সিনেমা মাফিয়ারা ওকে অপমান করতে চাইছে, ওকে ব্যানড করে দিতে চাইছে। সে মানসিক ভাবে অবসাদে ছিল, কারণ তাঁকে মিথ্যে ধর্ষণের অভিযোগে ফাঁসানো হতে পারে ভেবে।" এখানেই থেমে থাকেননি কঙ্গনা। তিনি আরও একটি ট্যুইট করেন। লেখেন, " আমরা কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর চাই। ১) সুশান্ত বার বার বলেছিল বড় প্রোডাকশন হাউস তাঁকে ব্যানড করে দিতে চায়। কারা তারা? ২) মিডিয়া কেন তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যে ধর্ষণের অভিযোগ প্রচার করেছে? ৩) মহেশ ভাট কেন সুশান্তের মানসিক অবসাদের কথা বলেছেন?" এই ট্যুইটের পর ফের প্রশ্ন উঠছে রিপোর্ট নিয়ে। তবে কি মিথ্যে বলা হচ্ছে ? সিবিআই কেন এখনও কিছু বলছে না? সব কিছু নিয়েই ফের উত্তাল বলিউড।

Published by: Pooja Basu
First published: October 4, 2020, 4:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर