‘হোটেলে হোটেলে খুঁজছি ছেলেকে,’ অভিনেত্রী শ্বেতার বিরুদ্ধে সন্তানকে লুকিয়ে রাখার অভিযোগ তাঁর দ্বিতীয় পক্ষের স্বামীর

ইতিমধ্যেই শ্বেতার বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি৷ আইনি যুদ্ধে জয়ের ব্যাপারে অভিনব আশাবাদী৷

ইতিমধ্যেই শ্বেতার বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি৷ আইনি যুদ্ধে জয়ের ব্যাপারে অভিনব আশাবাদী৷

  • Share this:

    #মুম্বই: অভিনব কোহলির সঙ্গে অভিনেত্রী শ্বেতা তিওয়ারির বিবাদ এখন সোশ্যাল মিডিয়ার অন্যতম চর্চা৷ সম্প্রতি ইনস্টাগ্রাম ভিডিয়োতে শ্বেতাকে কদর্য ভাষায় আক্রমণ করেছেন অভিনব৷ তাঁর অভিযোগ, তাঁদের ছেলে রেয়াংশের রক্ষণাবেক্ষণের বিষয়ে চরম মিথ্যাচার করেছেন শ্বেতা৷ ‘খতরোঁ কে খিলাড়ি’-র একাদশ মরসুমে শুটিঙে শ্বেতা যখন ব্যস্ত থাকবেন, তখন কোথায় থাকবে রেয়াংশ? কে তার দেখাশোনা করবে? এ সব প্রশ্নের উত্তর জানাননি শ্বেতা৷ বিচ্ছিন্ন স্ত্রীকে তীব্র বাক্যবাণে বিদ্ধ করেছেন অভিনব৷

    তাঁর অভিযোগ, অতিমারির প্রকোপে চারদিক যখন বিপর্যস্ত, তখন শ্বেতা ব্যস্ত অর্থোপার্জনে৷ স্ত্রীকে অভিনবের প্রশ্ন, অর্থের কি অভাব আদৌ হয়েছে? একইসঙ্গে জানিয়েছেন, শ্বেতার ক্রমাগত মিথ্যাচারে তিনি ক্লান্ত৷ সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শ্বেতা দাবি করেন, তিনি যখন শুটিঙে ছিলেন, তখন রেয়াংশ ছিল তাঁর পরিবারের তত্বাবধানে৷ এ কথা নাকি অভিনবকে জানিয়েছেন বলেও দাবি করেন তিনি৷ কিন্তু অভিনেত্রীর এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন তাঁর দ্বিতীয় পক্ষের স্বামী৷ উল্টে তাঁর প্রশ্ন, শ্বেতা ফোন করলে তার রেকর্ড তাঁর কাছে থাকবে না কেন? অভিনবের দাবি, শ্বেতা মেসেজ করে তাঁকে জানিয়েছিলেন শুটিঙের কথা৷ তখন অভিনব বলেছিলেন রেয়াংশকে তাঁর নিজের রাখার জন্য৷

    কিন্তু তাঁর পরামর্শকে গুরুত্ব না দিয়ে সম্পূর্ণ অজ্ঞাত জায়গায় শ্বেতা তাঁদের ছেলেকে লুকিয়ে রেখেছেন বলে দাবি অভিনবের৷ তাঁর ধারণা, কোনও হোটেলে ছেলেকে লুকিয়ে রেখেছেন শ্বেতা৷ দরকারে হোটেলে দরজা দরজায় ঘুরে ছেলেকে খুঁজে বার করবেন তিনি৷ সামাজিক মাধ্যমের পাতায় প্রচ্ছন্ন হুমকি অভিনবের৷ ইতিমধ্যে তিনি অন্তত ১০ টি হোটেলে খুঁজেছেন ছেলেকে৷ ফোন করেছেন চাইল্ড হেল্পলাইনে৷ কিন্তু কোনও লাভ হয়নি৷ সন্তানের প্রতি উদসীনতার অভিযোগে শ্বেতার বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগও দায়ের করেছেন অভিনব৷

    ক্ষুব্ধ ও হতাশ অভিনবের দাবি, এর আগে তিনি পরিচর্যা করেছিলেন কোভিড আক্রান্ত রেয়াংশের৷ তিনি তাঁর সন্তানের অভিভাবক৷ কিন্তু তাঁকে সেই অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে৷ অভিযোগ অভিনবের৷ এখানেই শেষ নয়৷ শ্বেতার বিরুদ্ধে তাঁর সই জাল করার অভিযোগও এনেছেন অভিনব৷ ছেলের ভরণপোষণের জন্য টাকা পাঠালেও শ্বেতা সে কথা অস্বীকার করেছেন৷ অভিযোগ অভিনবের৷

    ইতিমধ্যেই শ্বেতার বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি৷ আইনি যুদ্ধে জয়ের ব্যাপারে অভিনব আশাবাদী৷ তাঁকে হত্যা করেই শ্বেতা একমাত্র জয়ী হতে পারবেন, মন্তব্য অভিনবের৷ তবে তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিনবের সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন শ্বেতা৷ তাঁর দাবি, ৪ বছরের রেয়াংশ ভাল আছে, নিরাপদে আছে৷

    প্রসঙ্গত ‘কসৌটি জিন্দগী কে’, ‘বেগুসরাই’-এর মতো জনপ্রিয় ধারাবাহিকের অভিনেত্রী শ্বেতা ৮ বছর আগে বিয়ে করেছিলেন অভিনবকে৷ দাম্পত্যের ৪ বছর পর থেকেই তাঁরা সেপারেটেড৷ শ্বেতার প্রথম পক্ষের স্বামী ছিলেন রাজা চৌধুরী৷ রাজা ও শ্বেতার ৯ বছরের দাম্পত্য ভেঙে যায় ২০০৭-এ৷ তাঁদের একমাত্র মেয়ে পালকও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনেছিলেন অভিনবের বিরুদ্ধে৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: