কেন ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন? বিচ্ছেদের এক বছর পর বিস্ফোরক মিনিশা লাম্বা

কেন ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন? বিচ্ছেদের এক বছর পর বিস্ফোরক মিনিশা লাম্বা!

বিবাহবন্ধন খুব বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। বিয়ের ৫ বছর পর তথা ২০২০ সালেই বিবাহবিচ্ছেদ হয় অভিনেত্রীর।

  • Share this:

#মুম্বই: মিনিশা লাম্বা (Minissha Lamba), বলিউডে আর পাঁচটা জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের তালিকায় হয় তো পড়েন না তিনি। কারণ এই সুন্দরী অভিনেত্রী খুব কম সময়ের জন্য বলিউডে কাজ করে, অভিনয় জীবন থেকে অবসর নিয়েছেন। এর পরেই ২০১৫ সালে রায়ান থামের (Ryan Tham) সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মিনিশা। খুব ধুমধাম করে তাঁদের বিবাহ অনুষ্ঠান হয়নি। পরিবারের লোকজন এবং খুব কাছের বন্ধুবান্ধবকে নিয়েই এই বিশেষ অনুষ্ঠান সারেন অভিনেত্রী।

বিয়ের আগে থেকেই তাঁরা একে অপরের সঙ্গে ডেট করেন। ২০১৩ সালে মুম্বইয়ের একটি নাইট ক্লাবে তাঁদের প্রথম দেখা হয়, আর সেখান থেকেই শুরু তাঁদের ভালোবাসার যাত্রাপথের। কিন্তু তাঁদের এই বিবাহবন্ধন খুব বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। বিয়ের ৫ বছর পর তথা ২০২০ সালেই বিবাহবিচ্ছেদ হয় অভিনেত্রীর।

এক বছর হয়েছে স্বামীর থেকে আলাদা মিনিশা। এই পরিস্থিতিতে ফের নিজের বিবাহবিচ্ছেদ প্রসঙ্গে মুখ খুললেন অভিনেত্রী। কেন তাঁর বিবাহ জীবন সুখের হয়নি, সেই কারণই এদিন জানান তিনি। নবভারত টাইমস (Navbharat Times)-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেন, পৃথিবীতে প্রত্যেকটা মানুষেরই সুখে থাকার অধিকার রয়েছে। তিনি আরও বলেন, এটা আগেকার সময় নয়, এখন সম্পর্ক ভালো রাখার দায়িত্ব এককভাবে কোনও মহিলার উপর বর্তায় না। বছর কয়েক আগেও বিবাহবিচ্ছেদের বিষয়টিকে সমাজে ছোট করে দেখা হত, তবে এখন পরিস্থিতি অনেক বদলেছে, কারণ এখন মহিলারা তাঁদের মতামত নির্দ্বিধায় প্রকাশ করতে শিখেছেন।

এদিন মিনিশা আরও বলেন, সুখী না থাকলে যে কোনও সম্পর্ক এমনকি বৈবাহিক সম্পর্কে থাকারও কোনও যুক্তি নেই। ‘বিষাক্ত’ সম্পর্কের মধ্যে থাকা অত্যন্ত কঠিন কাজ। এখানেই শেষ না করে অভিনেত্রী আরও বলেন, একমাত্র বিবাহ কোনও মানুষের জীবনকে সম্পূর্ণ করতে পারে না। বিয়ে ছাড়াও মনোনিবেশ করার মতো আরও অনেক বিষয় আমাদের সকলের জীবনে রয়েছে। আমাদের সেই বিষয়গুলির প্রতি আরও যত্নবান হওয়া উচিত। তবে একই সঙ্গে অভিনেত্রী এই বিষয়টিও স্বীকার করেন যে, একজন মহিলা কেবলমাত্র তাঁর বৈবাহিক সম্পর্কের ভিত্তিতেই সমাজে পরিচিতি পান এবং তা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক।

তবে অভিনেত্রী আশা প্রকাশ করেছেন যে, সময়ের সঙ্গে আরও বেশি মানুষের কাছে তাঁদের ভুল সম্পর্ক বা ভুল বিবাহ বন্ধন থেকে বেরিয়ে আসার বিষয়টি স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: