corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিশ্বে করোনার থাবা ! ভয় পাচ্ছেন ‘রাণী রাসমণি’ দিতিপ্রিয়াও, জানেন কেন?

বিশ্বে করোনার থাবা ! ভয় পাচ্ছেন ‘রাণী রাসমণি’ দিতিপ্রিয়াও, জানেন কেন?

আই থিঙ্ক আই আ্যম দ্যা হ্যাপিয়েস্ট। এমনিতেই আমি হোম সিক।

  • Share this:

#কলকাতা: এমনিতে খুবই ব্যস্ত জীবন।এখন একেবারে ঘরবন্দি। কেমন আছেন রানী রাসমণি ওরফে দিতিপ্রিয়া রায়।জানালেন আমাদের। এই যে গৃহবন্দি রয়েছে।

বোর হয়ে যাচ্ছ.?

দিতিপ্রিয়া: আই থিঙ্ক আই আ্যম দ্যা হ্যাপিয়েস্ট। এমনিতেই আমি হোম সিক।আমি এখন ভীষণ এনজয় করছি এই পিরিয়ডটা জানতো। আমার বাবা মা আমি আর আমাদের পোষ্য 'পপকর্ন' দারুন মজাতে আছি ৷ কারণ এই ভাবে নির্বিঘ্নে ফ্যামিলি টাইম স্পেন্ড করবো জাস্ট ভাবতেই পারিনা। এই সময়টা বাড়িতে বেশি নিরামিষই খাওয়া হচ্ছে।মাছ বা মাংস অতো স্টক করা যায়না। ভালোই আছি জানো খাচ্ছিদাচ্ছি, বই পড়ছি, ছবি আঁকছি, নাচানাচি করছি। দিব্বো আছি।

সারাটাদিন ঠিক কি ভাবে কাটাচ্ছ?

দিতিপ্রিয়া: আমি বেশি ছবিই আঁকছি ওই একটা জিনিস আমি করতে খুবই ভালোবাসি।তা ছাড়া ওয়েব সিরিজ দেখছি বা গ্লাস পেইন্টিং করছি গেমস খেলছি এই ভাবেই কেটে যাচ্ছে।

সবার সঙ্গে তো দেখা হচ্ছেনা ভিডিও কলে কার সঙ্গে বেশি গল্প করছো?

দিতিপ্রিয়া: আমি খুব যে ফোনে থাকতে ভালোবাসি তেমনটা নয়। ভিডিও কলেও আমি খুব একটা কমফোর্টেবল নই।মানে কি কথা বলবো কি নিয়ে আলোচনা করবো বুঝতে পারিনা। তার থেকে টেক্সট করতেই বেশি পছন্দ করি।শুধু আমার পিসির মেয়ের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা হয়েছে তাও এক সপ্তাহ আগে, আর আমার টিচারের সঙ্গে কথা হয়েছে।এর বেশি কিছুনা। অনেকেই অনেক রান্নার ছবি পোস্ট করছে।

তুমি কী রান্না করছো?

দিতিপ্রিয়া: এইরে আমি রান্নার র-ও জানিনা। কোনও দিন ট্রাইও করিনি।আমার মা যদি চা করে দদিতে বলেন তাহলে মাইক্রোওভেনে জল গরম করে দিয়ে দি টি ব্যাগ দিয়ে. মায়ের কাছে কি খাওয়ার আবদার চলছে? দেখ এমনি বাড়ির খাবার তো বললাম খুবই সাধারণ রাখা হচ্ছে।কিন্তু আমি কেক, কুকিজ এগুলো খেতে ভালোবাসি। তাই মাঝে মধ্যে ওই আব্দারটা হচ্ছে। ফিটনেসের জন্য কি করা হচ্ছে? আমি বরাবরই খুব স্কিনি।আমার মেটাবলিসম খুবই ভালো। সেই কারণে আমাকে ওই দিকটা ভাবতে হয়না.কিন্তু খুব বেশি তেল ঝাল মশলা এড়িয়ে চলি।

কোন কোন কাজ পেন্ডিং এখন ?

দিতিপ্রিয়া: আমার নিজের বোর্ডের পরীক্ষা চলছিল সেই কারণে এমনিতেই আমার ডেটগুলো মে মাসের পর থেকে নেওয়া ছিল। সিরিয়ালের কাজ তো ছিলই তার সঙ্গে নতুন একটা ছবির প্রমোশন চলছিল। এই সব কিছুই পিছিয়ে গেল।এখন বিষয় হচ্ছে যখন সব স্বাভাবিক হবে তখন আবার সবকিছু একসঙ্গে এসে পরবে।কিন্তু এখন আমরা কত তাড়াতাড়ি এই পুরো পরিস্থিতি থেকে বেরোতে পারবো সেটাই আসল।

চারিদিকে লোকেদের দেখে কি বলবে...

দিতিপ্রিয়া: আসলে সেটাই একটা বিষয়। যারা পড়াশোনা জানেন না তাদের ব্যাপারটা তো আছেই। যারা সো কল্ড শিক্ষিত সমাজ তারাও তো অনেক ক্ষেত্রে নিয়ম পালন করছেন না বলে আমার ধারণা বা আমি দেখতে পাচ্ছি। এইটা একেবারেই মেনে নেওয়া যায়না। যেখানে আমরা রোজ নতুন কেসেস এর খবর পাচ্ছি।নিয়ম আমাদের মেনে চলা খুবি দরকার।

এখন কোন বিষয়টা নিয়ে সব থেকে বেশি টেনশন হচ্ছে?

দিতিপ্রিয়া: আমার তো ভিশন চিন্তা হচ্ছে এটা ভেবে যে আমি কলেজ উঠতে পারবো তো? আমি এই বছর উচ্ছ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিচ্ছিলাম এখনোও আমার একটা পরীক্ষা বাকি আছে।শেষ অবধি কী হবে এখন সেইটাই ভাবছি। (বলে খিল খিল করে হেসে উঠলেন দিতিপ্রিয়া)

Published by: Akash Misra
First published: April 2, 2020, 10:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर