corona virus btn
corona virus btn
Loading

বস্তিবাসীদের হাইজিন নিয়ে কেউ কি ভাবেন? লাইভে এসে রুদ্রনীল যা বললেন

বস্তিবাসীদের হাইজিন নিয়ে কেউ কি ভাবেন? লাইভে এসে রুদ্রনীল যা বললেন

নিউজ 18 বাংলার উইকেন্ড লাইভটা ছিল অন্যরকম। সিনেমা আর কেরিয়ার নয়, সরাসরি সোশাল ওয়ার্ক নিয়ে কথা বললেন রুদ্রনীল ঘোষ। কারণ এটাই সময়ের দাবি, বিনোদনের সময় পড়ে আছে।

  • Share this:

#কলকাতা: নিউজ 18 বাংলার উইকেন্ড লাইভটা ছিল অন্যরকম। সিনেমা আর কেরিয়ার নয়, সরাসরি সোশাল ওয়ার্ক নিয়ে কথা বললেন রুদ্রনীল ঘোষ। কারণ এটাই সময়ের দাবি, বিনোদনের সময় পড়ে আছে। দেশে করোনা সংক্রমণ চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে। মানুষ দিশাহারা। দিশাহারা ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরাও। কীভাবে নিস্তার পাওয়া যাবে, কোন পথে হাঁটছে আমাদের ভবিষ্যত। করোনা আবহ শুরু থেকেই রুদ্রনীল মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কর্তব্যবোধে। বিবেকের তাড়নায়। করোনা আতঙ্কে একাধারে শিল্পীদের কাজ বন্ধ। কাল কী হবে কেউ জানে না। এমতাবস্থায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে মুক্তহস্তে দান করেছেন রুদ্রনীল। সবাইকে করতেও বলেছেন। নিজস্ব ভঙ্গিমায়।

লকডাউন শুরু থেকেই ফেসবুকে ভিডিও দিয়েছেন তিনি। কখনও মধ্যবিত্তের সীমিত অর্থে সংসার চালানোর যন্ত্রণা তুলে ধরেছেন। কখনও বা টুকরো আনন্দ দিতে হাস্যকৌতুক উপহার দিয়েছেন। আমফান বিধ্বস্ত এলাকা ঘুরে দেখে বুঝতে পেরেছিলেন মানুষের দুঃখ দুর্দশা কতটা গভীর। বার বার ত্রাণ নিয়ে গিয়েছেন। দিয়েছেন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস। বলেছেন, প্রয়োজন অনেক, জোগান বড় কম। আপনারা যারা দিনে দুবেলা অন্নসংস্থান করতে পেরেছেন, তাঁরা পকেটে একশ টাকা থাকলে সেটাই দিন। আর কিছু চাই না। সুন্দরবনের পাশে দাঁড়ান।' তিনি আরও বলেছিলেন লকডাউন পরিস্থিতিতে কেনাবেচা প্রায় বন্ধ হওয়ার দরুণ সরকারের রাজস্বে ভাঁটা পড়ছে। টান পড়ছে রাজকোষে। এই অবস্থায় ডোনেশনই একমাত্র ভরসা।"

অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক ও দামী কথা বলে দর্শক ও সাধারণ মানুষকে উদ্বুদ্ধ করেছেন রুদ্রনীল। ফলও পেয়েছেন। দূরদূরান্ত থেকে মানুষ টাকা পাঠিয়েছেন অনলাইনে। এদিন লাইভে দর্শকের অনুরোধে পারফর্ম করলেন রুদ্রনীল। আরো বললেন, করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে যেসব স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার দরকার, তা অনেক জায়গাতেই মানা সম্ভব নয়। বিশেষত বস্তি এলাকায়। যেখানে একই ঘরে দশ বারো জন একত্রে থাকেন, সেখানে তো সোশাল ডিস্ট্যান্সিং মেনে চলা অসম্ভব। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি, যদি কারওর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে, তবে অবধারিতভাবে বাড়ির সকলে আক্রান্ত হবে। কিন্তু এ ব্যাপারে কোনও আশু সমাধানের রাস্তায় কেউ হাঁটেননি। শুধুই তাদের কানে শুনিয়েছেন সতর্কবার্তা। রুদ্রনীল ঘোষ যা করলেন, এক কথায় এখনও কেউ ভাবেননি। জননী বলে একটি অভিনব  স্বাস্থ্য বিমা পরিকল্পনা করেছেন তিনি। যার মাধ্যমে বস্তিবাসীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হবে পনের দিনে একবার । আগামী ছমাস ধরে। যেকোনও বস্তিবাসী এই সুবিধা নিতে পারেন। এই সংস্থায় ফোন করলেই হবে। প্রতি বস্তিবাসীদের বিনামূল্যে প্রাথমিক জ্বরের ওষুধ, ভিটামিন ট্যাবলেট, সাবান, স্যানিটাইজার মাস্ক ও আরও কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস সম্বলিত কিট দেওয়া হবে। প্রাথমিক স্বাস্থ্যরক্ষার কবচ হিসেবে কাজ করবে এটি। জননী সংস্থা নিয়ে অনেক দূর ভাবছেন রুদ্রনীল ঘোষ। ভবিষ্যতে আরও অনেকটা পথ হাঁটবেন,  আশাবাদী তিনি। এ দিন লাইভে এইসব স্বপ্নের কথাই ভাগ করে নিলেন রুদ্রনীল। অভিনেতার সত্তার বাইরে, এক অন্য রুদ্রনীলকে চিনল দর্শক।

Published by: Akash Misra
First published: August 21, 2020, 10:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर