হোম /খবর /বিনোদন /
'আমায় কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না', আদালতে চিৎকারে ফেটে পড়লেন পরীমণি

Porimoni: পরীমণি আদালতে চিৎকারে ফেটে পড়লেন, 'আমায় কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না'

Porimoni: পরীমণি জানান সমস্ত মামলা মিথ্যে। তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#ঢাকা: সমস্ত মামলা মিথ্যে। তাঁকে ফাঁসানো হচ্ছে। আদালতেই চিৎকার করে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করলেন বাংলাদেশের অভিনেত্রী পরীমণি। মাদকযোগে গ্রেফতার হয়েছেন অভিনেত্রী। রয়েছেন পুলিশি হেফাজতে। গত কয়েকদিন এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে খবরের শিরোনামে রয়েছেন পরীমণি। আর এবার তিনি দাবি করলেন, তাঁকে সম্পূর্ণ ফাঁসানো হচ্ছে। তিনি কোনও অপরাধ করেননি।

বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম থেকেই জানা যাচ্ছে, মঙ্গলবার আরও ২ দিন তাঁকে রিমান্ডে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়। আর তখনই জনসমক্ষে চিৎকার করতে থাকেন পরীমণি। পুলিশি ঘেরা‌‌টোপের মধ্যেই চিৎকার করে বলেন, আমায় ফাঁসানো হচ্ছে। আমায় কোনও কথাও বলতে দেওয়া হচ্ছে না।

পরীমণির ঘটনা নিয়ে সোশ্যালে সরব হয়েছেন লেখিকা তসলিমা নাসরিনও। এমন প্রশ্নও তিনি তুলেছেন, রিমান্ডে রেখে পরীমণিকে ধর্ষণ করা হচ্ছে না তো? লেখিকার কথায়, "এই যে তাকে রিমান্ডে নিচ্ছে দিনের পর দিন, রিমান্ডে তো শুনেছি মানুষকে প্রচণ্ড নির্যাতন করা হয়। রিমান্ডে নিয়ে পরীমণিকে তো মানসিক নির্যাতন করা হচ্ছেই, শারীরিক নির্যাতন করা হচ্ছে না তো? ধর্ষণ করা হচ্ছে না তো?"

সম্প্রতি পুলিশ আধিকারিক গোলাম সাকলায়েনের সঙ্গেও পরীমণির সম্পর্কের কথা উঠে এসেছে। তাঁদের একটি চুম্বনরত ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যা নিয়ে নেটদুনিয়ায় তুমুল আলোচনা চলছে। সাকলায়েনের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে আনেন পরীমৎই নিজেই। গত ১৩ জুন পরীমণি অভিযোগ করেন, তাঁকে ঢাকা বোট ক্লাবে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদকে। এই ঘটনার তদন্তের সূত্রেই গোয়েন্দা পুলিশ কর্তা গোলাম সাকলায়েন-এর সঙ্গে পরিচয় হয় পরীমণির। এর পরেই শুরু হয় প্রেম। বিবাহিত হয়েও ও পুলিশ কর্তা নিজেকে অবিবাহিত বলে পরিচয় দিয়েছিলেন।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: