বিনোদন

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

অভিনেতার নেই চিকিৎসা করার মতো টাকা! হতাশায় মৃত্য

অভিনেতার নেই চিকিৎসা করার মতো টাকা! হতাশায় মৃত্য
প্রতীকী ছবি

চিকিৎসা পর্যাপ্ত টাকা ছিল না বলে জানিয়েছে পরিবার৷ আর লকডাউনে বন্ধও হয়েছিল কাজ৷ ফলে খুবই আর্থিক সমস্যায় ছিলেন তিনি৷

  • Share this:

#চেন্নাই: এই মৃত্যু খুবই মর্মান্তিক৷ শুধুমাত্র চিকিৎসার টাকা না থাকায় তিল তিল করে মৃত্যু হল অভিনেতার৷ পরিচিত মুখ৷ তিনি আবার ছিলেন কমিডিয়ান৷ স্ক্রিনজুড়ে সকলকে হাসাতেন৷ কিন্তু কে খোঁজ রেখেছিল যে ধীরে ধীরে তাঁর মুখেরই হাসি উধাও হয়েছে৷ এমনকি চিকিৎসা শুরু হওয়ার পরও কেউ সেভাবে তাঁর দিকে নজয় দেননি৷ কারণ অনেকেই জানতেনই না তাঁর শরীর খারাপের কথা৷ এমন অবস্থা হয় যে বেসরকারি হাসপাতালেও চিকিৎসা করা সম্ভব হয়নি৷ স্থানান্তর করতে হয় সরকারি হাসপাতালে৷ তবে ততক্ষণে সব শেষ৷ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন অভিনেতা ভাদিভেল বালাজি (Vadivel Balaji)৷ তাঁর এভাবে মৃত্যুতে শোকের ছায়া দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে৷

বালাজির মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন দক্ষিণী স্টার ধনুশ, ঐশ্বর্য রাজেশ, শিবকাতিৃকায়ন প্রমুখ৷ অভিনেতার সুক্ষ কমিডি সেন্সের কথা অনেকেই মনে করেছেন এবং প্রশংসায় ভাসিয়েছেন৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁরা দুঃখপ্রকাশ করেছেন এই প্রতিভাবান অভিনেতার মৃত্যুতে৷ অভিনেতা বিজয় সেতুপতি বালাজির বাড়িতেও যান৷ পরিবারের সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানান৷

বালাজির বন্ধু অরনথঙ্গি নিশা জানিয়েছেন অভিনেতার কষ্টদায়ক মৃত্যুর কথা৷ তিনি বলেন যে, করোনার কারণে লকডাউন শুরু হতেই হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েন বালাজি৷ কারণ কাজ না থাকায় হাতে আসছিল না কোনও টাকা৷ বালাজি ছিলেন টিভির অভিনেতা৷ তাঁর আয় পুরোপুরি নির্ভরশীল ছিল টিভির ওপর৷ সেখানেই নিয়মিত শো করতেন তিনি৷ তবে শেষ চার মাসে কিছুই রোজগার হয়নি৷ হাত প্রায় শূন্যই ছিল৷

আরও পড়ুন হেনস্থা ও ব্ল্যাকমেলের শিকার, বাথরুমে আত্মহত্যা করলেন টিভি অভিনেত্রী শ্রাবণী

টিভি শো থেকে এরপর বাদও দেওয়া হয় তাঁকে৷ এতেই মানসিক সমস্যা শুরু হয় বালাজির, জানাচ্ছেন তাঁর বন্ধু৷ কারণ তিনি ভাবতে পারেননি যে এত তাড়াতাড়ি শোয়ে তাঁর চরিত্রটির ওপর কোপ পড়বে৷ বালাজির স্ত্রীও সেভাবে সমর্থ ছিলেন না৷ তিনিও পড়াশুনা বেশি জানেন না, ফলে আয়ের কোনও উপায়ও তাঁর নেই৷ মোটের ওপর সংসারের আয় পুরোপুরি বন্ধ হয়৷ এরমধ্যেই অসুস্থ হন বালাজি৷ তাঁকে প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ তবে সেখানে চিকিৎসা চালানোর মতো সামর্থ ছিল না পরিবারের৷ তাই তাকে কিছুদিনের মধ্যেই ফের আনা হয় সরকারি হাসপাতালে৷ সেখানে আসার পরই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় অভিনেতার৷ অনেকে মনে করছেন যে, বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা চললে, সম্ভবত তাঁকে বাঁচানো যেত৷

Published by: Pooja Basu
First published: September 11, 2020, 12:42 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर